ঢাকা : বৃহস্পতিবার, ২৩ নভেম্বর ২০১৭

সংবাদ শিরোনাম :

  • সরকার নদীখননের কার্যক্রম হাতে নিয়েছে : নৌ-পরিবহনমন্ত্রী          দক্ষতা-জ্ঞান-প্রযুক্তির মাধ্যমেই সক্ষমতা অর্জন সম্ভব : পররাষ্ট্রমন্ত্রী           বাংলাদেশে এ বছর রেকর্ড পরিমাণ প্রবৃদ্ধি হয়েছে          জাতীয় নির্বাচনে সেনা মোতায়েনের সিদ্ধান্ত হয়নি : সিইসি          আ.লীগ সরকার ছাড়া কোনো দলই এত পুরস্কার পায়নি : প্রধানমন্ত্রী          মোবাইল ব্যাংকিং সেবার চার্জ কমে আসবে : অর্থমন্ত্রী          রোহিঙ্গাদের ফিরিয়ে নিতে সু চিকে জাতিসংঘের অনুরোধ
printer
প্রকাশ : ২৪ জানুয়ারি, ২০১৫ ১১:২১:০৪আপডেট : ২৪ জানুয়ারি, ২০১৫ ১১:২৮:০৪
নওগাঁ পৌরসভাকে আদর্শ হিসেবে গড়তে চাই : মো. নজমুল হক সনি

 
নওগাঁ পৌর মেয়র মো. নজমুল হক সনি। তিনি ১৯৬২ সালে নওগাঁ পৌরসভার অন্তর্গত জগাবিলা গ্রামের এক সম্ভ্রান্ত মুসলিম পরিবারে জন্মগ্রহণ করেন । বাবা আলহাজ আছির উদ্দিন আহমেদ এবং মাতা আলহাজ জাহেরা খাতুনের ২য় সন্তান। ১৯৭৭ সালে নওগাঁ কে.ডি সরকারি উচ্চ বিদ্যালয় থেকে এসএসসি ও ১৯৭৯ সালে রাজশাহী কলেজ থেকে এইচএসসি পাস করেন। ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের লোক প্রশাসন বিভাগ থেকে সম্মান ও মাস্টার্স ডিগ্রি অর্জন করেন । ১৯৮০ সালে ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় শাখা জাতীয়তাবাদী ছাত্রদলের পরিচিত মুখ ছিলেন এই মেধাবী ছাত্রনেতা। দীর্ঘ রাজনৈতিক জীবনে তিনি নওগাঁ জেলা বিএনপি’র সফল সাধারণ সম্পাদক, কেন্দ্রীয় বিএনপি’র সদস্য ও বর্তমানে নওগাঁ পৌর মেয়র হিসাবে দায়িত্ব পালন করছেন। ব্যক্তিগত জীবনে তিনি বিবাহিত। সহধর্মিণী আনজুমান আরা স্বপ্না পেশায় গৃহিণী। তিনি দুই ছেলে ও এক মেয়ের জনক। বড় ছেলে তানভিন মোহম্মাদ রিয়াদ, পাবলিক বিশ্ববিদ্যালয় থেকে বিবিএ সমাপ্ত করেছে। ছোট ছেলে ক্রীড়াপ্রেমী সাদনাম হক নওগাঁ কে.ডি সরকারি বিদ্যালয় থেকে এসএসসি পরীক্ষার্থী ও জাতীয় পর্যায়ের টেনিস খেলোয়াড়। মেয়ে নাহিয়ান আবিদা সৃষ্টি নওগাঁ সরকারি বালিকা বিদ্যালয়ের চতুর্থ শ্রেণির ছাত্রী। নওগাঁ জেলা শহরসহ দেশের একজন বিশিষ্ট ব্যবসায়ী ও সফল সংগঠক হিসাবে স্টার আটোমেটিক রাইস মিল তৈরি করে দীর্ঘদিন যাবৎ সুনামের সাথে ব্যবসা পরিচালনা করেছেন। ব্যবসা-বাণিজ্য, রাজনৈতিক ও পৌরসভার বিভিন্ন উন্নয়ন ভাবনা নিয়ে টাইমওয়াচ প্রতিনিধির কাছে গুরুত্বপূর্ণ মতামত ব্যক্ত করেন। সাক্ষাৎকারটি এখানে উপস্থাপন করা হল। সাক্ষাৎকার নিয়েছেন নওগাঁ প্রতিনিধি এনামুল হক

টাইমওয়াচ : আপনার পৌরসভার যাত্রা শুরু এবং বর্তমান অবস্থা সম্পর্কে জানতে চাইছি?
মো. নজমুল হক সনি : নওগাঁ পৌরসভা ১৯৬৩ সালে দ্বিতীয় শ্রেণির পৌরসভা হিসাবে যাত্রা শুরু করে। এর দুই বছর পরে প্রথম শ্রেণিতে উন্নতী হয়। এই পৌরসভা নওগাঁ শহরের একটি পুরাতন ভবন। ব্যবসা-কেন্দ্রিক জেলা শহর হওয়াতে পুরাতন স্থাপনাগুলো অপসারণ করে নতুন স্থাপনা গড়া অনেকটা সমস্যা হচ্ছে। আমি ক্ষমতা গ্রহণের পর নাগরিকবান্ধব পৌর পরিবেশের জন্য পৌর মাস্টার প্ল্যানপ্রণয়ন করি। পৌরবাসীর দারিদ্র্য  হ্রাসকরণের লক্ষ্যে বিভিন্ন বাস্তবানুগ প্রকল্প গ্রহণ করি । রাজশাহী বিভাগের শ্রেষ্ঠ মেয়র ও সমাজসেবায় বিশেষ অবদানের জন্য সম্মাননা পুরস্কার-২০১৩ গ্রহণ করি। জনগণকে সঙ্গে নিয়ে পৌর উন্নয়নের অগ্রযাত্রা অব্যাহত আছে।নওগাঁ পৌরসভাকে আদর্শ হিসেবে গড়তে চাই : মো. নজমুল হক সনি
টাইমওয়াচ : আপনার পৌরসভার গুরুত্বপূর্ণ স্থাপনা সম্পর্কে বলবেন কী?
মো. নজমুল হক সনি : গুরুত্বপূর্ণ স্থাপনা বলতে পৌরসভা ভবন যা প্রয়োজনের চেয়ে অপ্রতুল। এই ভবনটি আরো বড় হওয়া দরকার। ইতিমধ্যে আমরা নতুন পৌরভবন নির্মাণ করার জন্য পদক্ষেপ নিয়েছি। পাশাপাশি নগরবাসীর চিত্ত বিনোদন ও মনোরঞ্জনের জন্য জেলা পরিষদের পার্ক  আছে। পৌরসভার পার্ক নেই। কিন্তু ব্যাপকভিত্তিতে পার্কের প্রয়োজনীয়তা রয়েছে। অতিদ্রুত আমি একটি শিশু পার্ক চালু করব। এখন দুই লক্ষাধিক লোক নওগাঁ শহরে বসবাস করে। এই শহরে একটি টাউন কমিউনিটি হল ছিল তা এখন অকেজো অবস্থায় পড়ে আছে। ইজি ৩ প্রকল্পের কমিউনিটি সেন্টার আছে, যা ইতিমধ্যে পাস হয়েছে। কেন্দ্রীয় বাস টার্মিনাল,  ট্রাক টার্মিনাল, মাছের বাজার, মাংস বাজার, মুরগির বাজার যেগুলোকে আধুনিকায়ন করার চেষ্টা চলছে। পৌর সুপার মার্কেট তৈরির প্রস্তুতি চলছে। এছাড়া পৌরবাসীর সেবাদানের লক্ষ্যে রাস্তা-ব্রিজ, কালভার্ট, ড্রেন প্রভৃতি আবকাঠামো উন্নয়ন করা হচ্ছে।
টাইমওয়াচ : নওগাঁ পৌরসভার আর্থ-সামাজিক উন্নয়নের গুরুত্বপূর্ণ খাত সম্পর্কে বলবেন কী ?
মো. নজমুল হক সনি : পরিবেশবান্ধব পৌর মাস্টার প্ল্যান প্রণয়ন ও বাস্তবায়ন, অপরিকল্পিত নির্মাণাদির কারণে সৃষ্ট জটিলতা নিরসন, নাগরিকবান্ধব পরিবেশ সৃষ্টির লক্ষ্যে ইমারত, স্থাপনার নিয়ন্ত্রণ, পরিকল্পিত উপায়ে ঔষুধি, ফলজ, বনজ বৃক্ষরোপণ ও রক্ষণাবেক্ষণ ও বাস্তবায়নের কাজ চলছে। জনস্বার্থে বাস টার্মিনাল, ট্রাক টার্মিনাল, যানবাহনের পার্কিংয়ের ব্যবস্থা, পৌরবাসীর দারিদ্র্য হ্রাসকরণের লক্ষ্যে বিভিন্ন বাস্তবানুগ প্রকল্প গ্রহণ, পানি নিষ্কাশন ব্যবস্থাসহ পয়ঃনিষ্কাশনের ব্যবস্থা গ্রহণ করা হচ্ছে। বর্জ্য অপসারণের জন্য বর্জ্য ভাগাড় (ডাম্পিং এরিয়া) এর উন্নয়ন ও বর্জ্য ব্যবস্থাপনাদির উন্নয়ন,  বিভিন্ন স্থাপনাদির প্ল্যানসমূহ সরকারি বিধিমালার আলোকে স্বল্প সময়ে তদন্তপূর্বক অনুমোদন ও পৌরসভার নিজস্ব সম্পত্তির রক্ষণাবেক্ষণ করা হচ্ছে।
টাইমওয়াচ : আপনার দৃষ্টিতে নওগাঁ পৌরসভায় কী কী সমস্যা রয়েছে এবং এসকল সমস্যা-সমাধানে কী করণীয় বলে আপনি মনে করছেন?নওগাঁ পৌরসভাকে আদর্শ হিসেবে গড়তে চাই : মো. নজমুল হক সনি
মো. নজমুল হক সনি : প্রত্যেক পৌরসভারই সমস্যা থাকে। তবে নওগাঁ পৌরসভায় রাস্তাঘাটের পাশাপাশি জলাবদ্ধতা নিরসনের জন্য ড্রেনের সমস্যা আছে। পৌরসভার প্রধান সড়ক চওড়া করা, নওগাঁর ৩৮.৬৪ বর্গ কি.মি. বিদ্যুতায়নের আওতায় আনা ও বিশুদ্ধ পানি সরবরাহের ব্যবস্থা করতে হবে। মাদকাসক্ত হ্রাস করতে হবে। ইউজি-৩ নামে যে প্রকল্প গ্রহণ করা হয়েছে, তা ছয় বছর মেয়াদি নব্বই কোটি টাকার প্রকল্প। এই প্রকল্প বাস্তবায়িত হলে নওগাঁ পৌরবাসীর এই প্রকট সমস্যাগুলো অনেকাংশে সমাধান হয়ে যাবে বলে আমি মনে করি। তাছাড়া নগরবাসীর সচেতনতা বৃদ্ধিই পারে আমাদের এই সমস্যাগুলো সমাধানের প্রধান সহায়ক হতে। পাশাপাশি প্রশাসনকেও এগিয়ে আসতে হবে ।
টাইমওয়াচ : আপনার পৌরসভার সামগ্রিক উন্নয়নে সরকারের সহায়তার ধরন কেমন হওয়া উচিত বলে আপনি মনে করেন?
মো. নজমুল হক সনি : প্রত্যেক প্রথম শ্রেণির পৌরসভার প্রতি সরকারের সহায়তার ধরন একই হওয়া উচিত বলে আমি মনে করি। দলমত নির্বিশেষে সকল পৌরসভার দিকে সমভাবে সরকারের দৃষ্টি দেওয়া দরকার ।
টাইমওয়াচ : আপনার পৌরসভার রাজস্ব আয় সম্পর্কে বলবেন কি ?
মো. নজমুল হক সনি : আপনাকে ধন্যবাদ। রাজস্ব আয় পৌরসভার অত্যন্ত একটি গুরুত্বপূর্ণ বিষয়। রাজস্ব আয় বৃদ্ধিকরণের জন্য আমি বিভিন্ন এলাকায় গিয়েছি। এ বিষয়ে সচেতনতা বৃদ্ধির জন্য দল-মত, শ্রেণি-পেশা নির্বিশেষে সবার সাথে পৌরসভার আয় বৃদ্ধির ব্যাপারে কথা বলেছি। বিশেষ করে উঠান বৈঠকগুলো সচেতনতা বৃদ্ধির ব্যাপারে বিশেষ সহায়তা করছে। পৌরসভার রাজস্ব আয় বলতে পানির বিল, হল রুম ভাড়া, জরিপ শাখা, প্ল্যান শাখা, মার্কেট ভাড়া, বিভিন্ন হাট ইজারা প্রদান, রেজিস্ট্রি অফিস হতে আয়, জেলখানা হতে আয়, অটো রিকশা ও ভ্যানের লাইসেন্স প্রদান ইত্যাদি হতে রাজস্ব আয়ই উল্লেখযোগ্য। জনগণের সেবা করতে জনগণের যে সহযোগিতা প্রয়োজন সেখানে রাজস্ব প্রদান একটি উল্লেখযোগ্য বিষয়। আমি আমার সাড়ে তিন বছরে পৌরসভার রাজস্ব আদায়ে আশানুরূপ সাড়া পাচ্ছি। ফলে পূর্বের যে কোনো সময়ের তুলনায় বর্তমানে পৌরসভার রাজস্ব অনেক ভাল আছে। আগামী ৫ বছরে পৌরসভার রাজস্ব আয় দ্বিগুণ করতে পারব বলে আমি আশাবাদী।
টাইমওয়াচ : পৌরসভার মেয়র হিসেবে দায়িত্ব প্রাপ্তির পর থেকে আপনি কোন বিষয়টিকে সর্বাধিক গুরুত্ব দিয়ে কাজ করেছেন। এক্ষেত্রে আপনি কোনো সমস্যার সম¥ূখীন হয়েছেন কী?নওগাঁ পৌরসভাকে আদর্শ হিসেবে গড়তে চাই : মো. নজমুল হক সনি
মো. নজমুল হক সনি : পৌরসভার সবচেয়ে গুরুত্বপূর্ণ বিষয় চারটি। রাস্তা, জলাবদ্ধতা নিরসন, পানি সরবরাহ এবং লাইটিং। আমার পৌরসভার রাস্তা ও জলাবদ্ধতার সমস্যার সমাধান কিছুটা করতে পেরেছি। আর বাকিটা আগামী ডিসেম্বরের শেষের দিকে রাস্তা ও ড্রেনের কাজগুলো শেষ করতে পারলে আমি সফল হব বলে মনে করি । দ্বিতীয় দফায় আমি নওগাঁর বর্ধিত এলাকাসহ পৌরবাসীকে আয়রণ মুক্ত পানি সরবরাহ করতে পারব। ইতিমধ্যে আমি নওগাঁ বাজারে একটি প্রকল্পের কাজ শুরু করেছি । বাস্তবায়নাধীন এই কাজটি শেষের পথে । পাশাপাশি মুক্তির মোড় একটি জনবহুল মোড়। এই মোড়ে ছোট ছোট বাচ্চারা পারাপারের সময় বিভিন্ন ধরনের সমস্যায় পড়ে। এ সমস্যা উত্তোরণের জন্য এখানে একটি ফুট ওভারব্রিজ ডিসেম্বরে শুরু করব। এটা শেষ হলে নওগাঁবাসী আমাকে মনে রাখবে বলে আমার বিশ্বাস।
টাইমওয়াচ : আপনি একটি রাজনৈতিক দলের সক্রিয় কর্মী ও নেতা । ফলে রাজনৈতিক কর্মকা- ও পৌর মেয়র হিসাবে নাগরিক সেবা প্রদানের সমন্বয় কীভাবে করেন; বলবেন কী ?
মো. নজমুল হক সনি : আমি আমার কথা বলবো না। নওগাঁর সাধারণ মানুষ, দল-মত নির্বিশেষে সকলেই বলবে, আমি যখন অফিসে থাকি অফিসটা সবার, সর্বদলীয়। আমি সকল মতের মানুষকে একই চোখে দেখি। তার প্রমাণ যে কেউ খোঁজ নিলে জানতে পারবেন। আমি যেমন একটি দল করি, সে দলের বিভিন্ন ধরনের কর্মসূচি থাকে। দলের কর্মসূচি বাস্তবায়নে দলের নেতা হিসাবে আমার উপর অর্পিত দায়িত্ব যথাযথভাবে পালন করি। আমি যখন পৌর মেয়র হিসাবে পৌরসভায় আসি তখন আমি সবার। এভাবে কাজ করতে আমার কোনো সমস্যা হয় না ।
টাইমওয়াচ : আপনার পৌরসভা নিয়ে ভবিষ্যৎ পরিকল্পনা কি ?
মো. নজমুল হক সনি : আমি দায়িত্ব নেওয়ার পর আগামী ২০ বছরের মহাপরিকল্পনা পাস করেছি। এই ২০ বছরের মহাপরিকল্পনা বাস্তবায়ন করা অত্যন্ত কঠিন কাজ হবে যদি জনগণ আমাকে সহায়তা না করে। নওগাঁ পৌরসভাকে আদর্শ হিসেবে গড়তে চাই : মো. নজমুল হক সনি
নওগাঁ শহরে একটি রিং রোড স্থাপন করবো যাতে পুরো শহর একটা বৃত্তের মধ্যে থাকে। যাতে এক এলাকার মানুষ অন্য এলাকায় অতি সহজে যেতে পারে। নওগাঁর বর্ধিত এলাকায় আবাসিক এলাকা স্থাপন করা এবং নদীর পাশে গাঁজা সোসাইটির গোডাউনগুলো আবাসনের আওতায় আনা যায় তবে সবার জন্য সুন্দর আবাসন হবে। এটি নওগাঁ শহরের সৌন্দর্যবর্ধক হিসেবেও কাজ করবে। বিশুদ্ধ পানি সরবরাহের ব্যবস্থা আরো বৃদ্ধি করব। পুরো নওগাঁ এলাকা আরো আলোকোজ্জ্বল করা, কমিউনিটি সেন্টার স্থাপন করা, বৃদ্ধ লোকদের বিনোদনের জন্য পার্ক স্থাপন বাচ্চাদের জন্য শিশু পার্ক স্থাপন, পৌরবাসীর জন্য আধুনিক পৌর সুপার মার্কেট তৈরি করা, ফুটওভার স্থাপন, নওগাঁ বাজারকে আরো সম্প্রসারণ করা, পৌরসভার কর্মকর্তাদের জন্য আবাসনের ব্যবস্থা করা, নওগাঁ শহরকে সবুজ শহর, যানজটমুক্ত, বর্ধিত এলাকায় সোলার লাইটিং, সন্ত্রাসমুক্ত, মাদকমুক্তকরা প্রভৃতি কাজ করব। আমার ইচ্ছা, আমার স্বপ্ন নওগাঁকে বাংলাদেশের অন্যান্য পৌরসভার জন্য আদর্শ পৌরসভা হিসাবে গড়ে তোলা।
 

printer
সর্বশেষ সংবাদ
সাক্ষাৎকার পাতার আরো খবর

Developed by orangebd