ঢাকা : শুক্রবার, ০৩ জুলাই ২০২০

সংবাদ শিরোনাম :

  • এইচএসসি পরীক্ষায় বিষয় সংখ্যা কমানোর চিন্তা চলছে : শিক্ষামন্ত্রী          কোরোনায় আরও ৩৪ জনের মৃত্যু, শনাক্ত ৩৫০৪ জন          যুক্তরাষ্ট্র আর লকডাউন হবে না : ট্রাম্প          করোনাভাইরাস সারাবিশ্বটাকে স্থবির করে দিয়েছে : হাসিনা          স্ত্রীসহ হাসপাতালে ভর্তি মুক্তিযুদ্ধবিষয়ক মন্ত্রী          করোনায় ক্ষতিগ্রস্তদের ব্যাংক ঋণের ২ হাজার কোটি টাকা সুদ মওকুফ ঘোষণা
printer
প্রকাশ : ১১ মে, ২০১৫ ১৪:৫১:১১
২৮ বছরেও বাস্তবায়ন হয়নি মঠবাড়িয়ায় শহীদের নামে সড়ক-বাজার নামকরণ
মঠবাড়িয়া (পিরোজপুর) সংবাদদাতা


 


পিরোজপুরের মঠবাড়িয়া উপজেলায় মুক্তিযুদ্ধের সময় শহীদ ২৩ জনের নামে বিভিন্ন সড়ক ও একটি বাজারের নামকরণ করার সিদ্ধান্ত দুই যুগেও বাস্তবায়ন হয়নি। শহীদদের নামে বাজার ও সড়কগুলোর নামকরণ বাস্তবায়ন না হওয়ায় মুক্তিযোদ্ধা ও শহীদ পরিবারের সদস্যরা ক্ষোভ প্রকাশ করেছেন।
শহীদ আবদুল রাজ্জাক বিশ্বাসের স্ত্রী নূরজাহান বেগম বলেন, আমার স্বামী মঠবাড়িয়ায় প্রথম সম্মুখ যুদ্ধে শহীদ হন। অথচ তাঁর নামে কোন প্রতিষ্ঠান বা সড়কের নামকরণ করা হয়নি। ভবিষ্যৎ প্রজন্মের কাছে শহীদ রাজ্জাক বিশ্বাসকে পরিচিতি করার দায়িত্ব রাষ্ট্রকে নিতে হবে।
মঠবাড়িয়া উপজেলা মুক্তিযোদ্ধা সংসদ সূত্রে জানা গেছে, ১৯৮৬ সালের ২৪ নভেম্বর উপজেলা মুক্তিযোদ্ধা সংসদের এক সভায় মুক্তিযুদ্ধের সময় নিহত ২৩ জন শহীদের নামে উপজেলার বিভিন্ন সড়ক ও বাজারের নামকরণের সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়। সড়কগুলো হলো- মঠবাড়িয়া পোষ্ট অফিস হতে সদর রোডের সেতু পর্যন্ত শহীদ আবু সড়ক, কাপুড়িয়াপট্টি সড়ক শহীদ রাজ্জাক বিশ্বাস সড়ক, মঠবাড়িয়ার দক্ষিণ বন্দরকে শহীদ জিয়া বাজার, ওষুধপট্টি সড়ক শহীদ গণপতি সড়ক, পোষ্ট অফিস থেকে মঠবাড়িয়া সরকারি কলেজ পর্যন্ত শহীদ আনোয়ারুল কাদির সড়ক, মঠবাড়িয়া হাসপাতাল সড়ক শহীদ মোশারেফ হোসেন সড়ক, মঠবাড়িয়া হাসপাতাল হতে বড় মাছুয়া পর্যন্ত শহীদ আসমত আলী সড়ক, মঠবাড়িয়া বাজার থেকে বহেরাতলা পর্যন্ত শহীদ মাখন দাস সড়ক, বহেরাতলা থেকে তুষখালী সড়ক শহীদ মোতালেব সড়ক, বহেরাতলা থেকে সাফা বন্দর পর্যন্ত শহীদ আবদুল মালেক সড়ক, সাফা বাজার থেকে ঝাউতলা পর্যন্ত শহীদ সালেহ সড়ক, মঠবাড়িয়া হতে গুলিসাখালী শহীদ হাই সড়ক, গুলিসাখালী হতে টিয়ারখালী পর্যন্ত শহীদ সিদ্দিক সড়ক, গুলিসাখালী থেকে হলতা পর্যন্ত শহীদ আহম্মেদ সড়ক, গুলিসাখালী হতে বান্ধবপাড়া পর্যন্ত শহীদ মানিক সড়ক, শিংগা হতে কুমিরমারা পর্যন্ত শহীদ বজলুর রহমান সড়ক, সাপলেজা থেকে নলী পর্যন্ত শহীদ মোজাম্মেল হক সড়ক, রাজারহাট সড়ক শহীদ বাচ্চু সড়ক, মঠবাড়িয়া হতে বেতমোড় পর্যন্ত শহীদ আবুল হোসেন সড়ক, সাপলেজা হতে সোনাখালী পর্যন্ত শহীদ সালাম সড়ক, সাপলেজা হতে গোলবুনিয়া পর্যন্ত শহীদ হাতেম আলী সড়ক, মিরুখালী বাজারের সড়ক শহীদ বীরেন সড়ক, মিরুখালী বাজার থেকে হারজী পর্যন্ত শহীদ আবদুল হাকিম সড়ক।
সূর্যমণি বধ্যভূমি সুরক্ষা কমিটির সভাপতি পরিমল চন্দ্র হালদার বলেন, শহীদদের নামে সড়কের নামকরণের সিদ্ধান্ত মুক্তিযোদ্ধা সংসদ থেকে নেওয়া হলেও স্থানীয় প্রশাসন ও পৌরসভা কর্তৃপক্ষের উদ্যোগ না থাকায় তা বাস্তবায়ন করা যায়নি।
উপজেলা মুক্তিযোদ্ধা সংসদের সহকারী কমান্ডার মো. শাহাদাৎ হোসেন বলেন, উপজেলা প্রশাসনের অসহযোগিতার কারণে মুক্তিযোদ্ধা সংসদের ওই সিদ্ধান্ত দীর্ঘ ২৮ বছরেও বাস্তবায়ন করা যায়নি। সম্প্রতি মুক্তিযোদ্ধাদের নামে সড়কের নামকরণের ব্যাপারে মুক্তিযোদ্ধা কেন্দ্রীয় কমান্ড কাউন্সিল থেকে আমাদের চিঠি দেওয়া হয়েছে। উপজেলা পরিষদের মাসিক সভায় শহীদ ও মুক্তিযোদ্ধাদের নামে সড়কের নামকরণের জন্য আমরা সংসদের পক্ষ হতে বিষয়টি তুলবো।
মঠবাড়িয়া পৌরসভার মেয়র রফি উদ্দিন আহমেদ জানান, পৌরসভার উদ্যোগে শহরের সড়কগুলো শহীদদের নামে নাম ফলক স্থাপনের উদ্যোগ নেওয়া হচ্ছে। শীঘ্রই তা বাস্তবায়ন করা হবে।
উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা (ইউএনও) মো. আহসান হাবিব বলেন, মুক্তিযোদ্ধা সংসদের পক্ষ হলে উপজেলা পরিষদের মাসিক সমন্বয় সভায় এ বিষয়ে প্রস্তাব করা হলে, আমরা তা রেজুলেশন করে অনুমোদনের জন্য ঊর্ধ্বতন কর্তপক্ষের কাছে প্রস্তাব আকারে পাঠাতে পারি।

printer
সর্বশেষ সংবাদ
বিশেষ প্রতিবেদন পাতার আরো খবর

Developed by orangebd