ঢাকা : সোমবার, ১৭ জুন ২০১৯

সংবাদ শিরোনাম :

  • পণ্য মজুদ আছে, রমজানে পণ্যের দাম বাড়বে না : বাণিজ্যমন্ত্রী          বঙ্গবন্ধুর খুনিদের দেশে ফিরিয়ে আনতে চায় সরকার          অর্থনৈতিক উন্নয়নে সব ব্যবস্থা নিয়েছি : প্রধানমন্ত্রী          বনাঞ্চলের গাছ কাটার ওপর ৬ মাসের নিষেধাজ্ঞা          দেশের সব ইউনিয়নে হাইস্পিড ইন্টারনেট থাকবে
printer
প্রকাশ : ০৯ জুন, ২০১৫ ১৭:৩৩:৩০
রাজারহাটে একটি ব্রীজের অভাবে দুর্ভোগে ২ হাজার পরিবার
কুড়িগ্রাম সংবাদদাতা


 


কুড়িগ্রামের রাজারহাট উপজেলার সদর ইউনিয়নের হরিশ্বর তালুক পুর্বপাড়া গ্রামের প্রায় ২ হাজার পরিবারের যাতায়াতের একমাত্র ভরসা হরিশ্বর খালের উপর জরাজীর্ণ বাঁশের সাঁকোটির স্থানে আজও ব্রিজ নির্মাণ হয়নি। ফলে স্কুল-কলেজ ও মাদ্রাসাগামী ছাত্র-ছাত্রীসহ জনসাধারণ প্রতিনিয়ত জীবনের ঝুঁকি নিয়ে সাঁকোটির উপর দিয়ে চলাচল করছে। বর্তমান প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা, তৎকালীন বিরোধী দলীয় নেত্রী থাকা কালীন অবস্থায় ক্ষমতায় গেলে ওই ব্রীজটি তৈরীর প্রতিশ্রুতি দিলেও তা আজও বাস্তবায়ন হয়নি।
হরিশ্বর তালুক গ্রামের আব্দুল করিম জানান, বাঁশের সাকোটি দিয়ে জীবনের ঝুকি নিয়ে যাতায়াত করতে হচ্ছে। দেশের অনেক উন্নয়ন হলেও আমাদের গামের বাঁশের সাকোটির জায়গায় ব্রীজ নির্মাণ হচ্ছে না।
হরিশ্বর তালুক উচ্চ বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক মোঃ আব্দুল লতিফ মোল্ল¬া (৫৫) বলেন,  ব্রীজটি নির্মাণ না হওয়ায় ওই এলাকার প্রাইমারী, হাই স্কুল ও কলেজ-মাদ্রাসা পড়–য়া  ছাত্র-ছাত্রীসহ জনসাধারণ অতিকষ্টে সাঁকোটির উপর দিয়ে জীবনের ঝুঁকি নিয়ে প্রতিনিয়ত চলাচল করছে।
রাজারহাট উপজেলা আওয়ামী লীগের সাধারন সম্পাদক ও প্রাক্তন উপজেলা পরিষদের চেয়ারম্যান আলহাজ্ব আবুনুর মো. আক্তারুজ্জামান বলেন, রাস্তার অভাবে ব্রিজটি করা সম্ভব হয়নি এবং ওই ব্রিজটি না হলেও পার্শ্ববর্তী ড্রেনের ওপরে দুটি নিতুন ব্রিজ করা হয়েছে।
রাজারহাট ইউনিয়ন পরিষদ চেয়ারম্যান মো. এনামুল হক জানান, ব্রিজটির ব্যাপারে উপজেলা চেয়ারম্যানসহ সংশ্লিষ্ট বিভাগে অনেকবার যোগাযোগ করা হয়েছে। কিন্তু কোন কাজ হচ্ছে না। কিছুদিন পূর্বে আমার ব্যক্তিগত উদ্যোগে সাঁকোটির সংস্কার করেছি।
এ ব্যাপারে রাজারহাট উপজেলা প্রকৌশলী জিকেএম আনোয়ারুল আলমের সাথে যোগাযোগ করা হলেও তাকে পাওয়া যায়নি।
এলাকাবাসীর দাবী স্কুল কলেজগামী ছাত্র-ছাত্রীদের ভবিষতের কথা চিন্তা করে দ্রুত একটি কংক্রিটের ব্রীজ নির্মাণ করা হোক।

printer
সর্বশেষ সংবাদ
বিশেষ প্রতিবেদন পাতার আরো খবর

Developed by orangebd