ঢাকা : সোমবার, ২৬ আগস্ট ২০১৯

সংবাদ শিরোনাম :

  • ডেঙ্গু এখনো নিয়ন্ত্রণের বাইরে : কাদের          ঈদে হাসপাতালের হেল্প ডেস্ক খোলা রাখার নির্দেশ          নবম ওয়েজ বোর্ডের ওপর হাইকোর্টের স্থিতাবস্থা           বন্দরসমূহের জন্য ৩ নম্বর স্থানীয় সতর্ক সংকেত          দেশের সব ইউনিয়নে হাইস্পিড ইন্টারনেট থাকবে
printer
প্রকাশ : ৩০ জুন, ২০১৫ ১২:৩৮:২৭আপডেট : ৩০ জুন, ২০১৫ ১৩:১৩:৫৪
ফিজিওথেরাপি চিকিৎসার বিরুদ্ধে ষড়যন্ত্র বন্ধের দাবি জানিয়েছে বিপিএ
নিজস্ব প্রতিবেদক


 

 
ফিজিওথেরাপি চিকিৎসক ও চিকিৎসা পেশার বিরুদ্ধে ষড়যন্ত্রের প্রতিবাদে বাংলাদেশ ফিজিওথেরাপি অ্যাসোসিয়েশন (বিপিএ) ২৯ জুন সকালে জাতীয় প্রেস কাবের সামনে মানববন্ধনের আয়োজন করে। এতে বাংলাদেশ ফিজিওথেরাপি অ্যাসোসিয়েশনের সভাপতি ডা. নাসিরুল ইসলাম, সাধারণ সম্পাদক ডা. ফরিদ উদ্দিনসহ অন্যান্য কার্যকরী কমিটির সদস্যরা উপস্থিত ছিলেন। মানববন্ধনে শতাধিক ফিজিওথেরাপি চিকিৎসক, শিক্ষক ও ছাত্রছাত্রীরা অংশ নেন।
বক্তারা বলেন, ফিজিওথেরাপি চিকিৎসা পেশার বিরুদ্ধে নানা রকমের ষড়যন্ত্র চলছে। তারা বলেন, বাত ব্যথা, প্যারালাইসিস ও প্রতিবন্ধীদের চিকিৎসায় দিন দিন ফিজিওথেরাপি চিকিৎসার চাহিদা বাড়ছে। এ কারণেই ফিজিওথেরাপি চিকিৎসাসেবা নিয়ে চলছে বিভিন্ন গুঞ্জন। আর এই সুযোগে ফিজিক্যাল মেডিসিন বিভাগের কিছু চিকিৎসক ফিজিওথেরাপি চিকিৎসা নিয়ে বিভিন্ন ষড়যন্ত্রে লিপ্ত হয়েছেন। উল্লেখ্য, সরকারি মেডিক্যাল কলেজগুলোতে স্বাধীনতা পূর্ববর্তী সময় থেকে ফিজিওথেরাপি বিভাগ চালু ছিল এবং সেখানে সেই বিভাগের কর্ণধার হিসেবে ফিজিওথেরাপি চিকিৎসকরাই দায়িত্ব পালন করে আসছিলেন। কিন্তু পরবর্তীতে ফিজিওথেরাপি বিভাগের নাম পরিবর্তন করে অনেকটা অবৈধভাবেই ফিজিক্যাল মেডিসিন বিভাগে রূপান্তর করা হয়। প্রধানমন্ত্রী ও স্বাস্থ্যমন্ত্রী কর্তৃক ঘোষিত কলেজ অব ফিজিওথেরাপির কাজ ও ফিজিওথেরাপি চিকিৎসকদের স্বতন্ত্র কাউন্সিল গঠনের কাজও ফিজিক্যাল মেডিসিন চিকিৎসকদের ষড়যন্ত্রের কারণে বাধাগ্রস্ত হয়ে পড়েছে। অন্য দিকে ফিজিওথেরাপি চিকিৎসকদের জন্য প্রস্তাবিত প্রথম শ্রেণীর সরকারি পদ ঘোষণা হওয়ার দ্বারপ্রান্তে ফিজিক্যাল মেডিসিন অ্যাসোসিয়েশন সরকারের কাছে ফিজিওথেরাপিস্টদের জন্য তৃতীয় শ্রেণীর পদ সৃষ্টি করার যুক্তিহীন প্রস্তাবনা বাস্তবায়নের চেষ্টা করে যাচ্ছে।
বক্তারা বলেন, এককথায় ফিজিক্যাল মেডিসিনের চিকিৎসকেরা স্বাধীনতার পূর্ব থেকে চলে আসা সম্পূর্ণ স্বতন্ত্র ও স্বাধীন পেশা ফিজিওথেরাপিকে কুক্ষিগত করে ধ্বংস করার ষড়যন্ত্রে মেতে উঠেছে। এতে প্রতারণার শিকার হচ্ছেন সাধারণ রোগীরা। উন্নত বিশ্বে ফিজিক্যাল মেডিসিন বিভাগটি অকার্যকর প্রমাণিত হওয়ায় আজ বিলুপ্তির পথে হলেও বাংলাদেশে বিজ্ঞানে অরাজকতা করার চেষ্টা করছেন। ফিজিক্যাল মেডিসিন চিকিৎসকেরা সরাসরি ফিজিওথেরাপি প্র্যাকটিস করতে না পারলেও তারা তা করে যাচ্ছেন নিয়মবহির্ভূতভাবে।
বক্তারা ফিজিওথেরাপি পেশাকে টিকিয়ে রাখতে অবিলম্বে চারটি দাবি বাস্তবায়নের জন্য সরকারের কাছে অনুরোধ জানান। দাবিগুলো হলো- প্রজ্ঞাপনকৃত ফিজিওথেরাপি চিকিৎসকদের স্বতন্ত্র কাউন্সিল দ্রুত বাস্তবায়ন। বরাদ্দকৃত জমিতে বাংলাদেশ কলেজ অব ফিজিওথেরাপি ভবণ নির্মাণ অবিলম্বে বাস্তবায়ন। সরকারি এনাম কমিটির রিপোর্ট অনুযায়ী সারা দেশে ফিজিওথেরাপি চিকিৎসকদের জন্য প্রথম শ্রেণীর পদ সৃষ্টি বাস্তবায়ন এবং ফিজিওথেরাপি চিকিৎসাসেবা ধ্বংসের ষড়যন্ত্র বন্ধ করতে হবে।

printer
সর্বশেষ সংবাদ
স্বাস্থ্য ও জীবন পাতার আরো খবর

Developed by orangebd