ঢাকা : বৃহস্পতিবার, ২৩ নভেম্বর ২০১৭

সংবাদ শিরোনাম :

  • সরকার নদীখননের কার্যক্রম হাতে নিয়েছে : নৌ-পরিবহনমন্ত্রী          দক্ষতা-জ্ঞান-প্রযুক্তির মাধ্যমেই সক্ষমতা অর্জন সম্ভব : পররাষ্ট্রমন্ত্রী           বাংলাদেশে এ বছর রেকর্ড পরিমাণ প্রবৃদ্ধি হয়েছে          জাতীয় নির্বাচনে সেনা মোতায়েনের সিদ্ধান্ত হয়নি : সিইসি          আ.লীগ সরকার ছাড়া কোনো দলই এত পুরস্কার পায়নি : প্রধানমন্ত্রী          মোবাইল ব্যাংকিং সেবার চার্জ কমে আসবে : অর্থমন্ত্রী          রোহিঙ্গাদের ফিরিয়ে নিতে সু চিকে জাতিসংঘের অনুরোধ
printer
প্রকাশ : ১৪ অক্টোবর, ২০১৫ ১৭:২৫:৩৬আপডেট : ১৪ অক্টোবর, ২০১৫ ১৮:১২:৩১
সরকারের নজর অব্যাহত থাকলে আইটি সেক্টরের উন্নয়ন ত্বরান্বিত হবে
প্রকৌশলী নজরুল ইসলাম, ব্যবস্থাপনা পরিচালক, নাজবেল ইঞ্জিনিয়ারিং অ্যান্ড টেকনোলজি লিমিটেড

 
নজরুল ইসলাম; একজন তরুণ প্রকৌশলী যিনি বর্তমান ‘ইন্ডাস্ট্রিয়াল ফায়ার সেফটি’ ও তথ্য প্রযুক্তি নিয়ে কাজ করছেন। তিনি ২০০৭ সালে খুলনা প্রকৌশল ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয় (কুয়েট)-এর পুরকৌশল বিভাগ থেকে স্নাতক ডিগ্রি অর্জন করেন। জীবিকার সন্ধানে প্রথমে মধ্যপ্রাচ্য গমন করে দুই বছর কনস্ট্রাকশন ফার্মে চাকরি করেন। তারপর দেশে ফিরে এসে ঢাকা ওয়াসা, খুলনা ওয়াসা, চিটাগাং ওয়াসা, জনস্বাস্থ্য প্রকৌশল অধিদপ্তর, জাইকাসহ জাতীয় ও আন্তর্জাতিক বিভিন্ন প্রজেক্টে ওয়াটার সলিউশন কনসালট্যান্ট হিসাবে কাজ করেন। এ সময় ইন্টারন্যাশনাল জার্নালে তার একটি গবেষণা নিবন্ধ প্রকাশিত হয়। বর্তমানে তিনি ‘নাজবেল’- এর প্রতিষ্ঠাতা ও ব্যবস্থাপনা পরিচালক হিসাবে দায়িত্ব পালন করছেন। সম্প্রতি এই তরুণ উদ্যোক্তার মুখোমুখি হলে তিনি ইন্ডাস্ট্রিয়াল ফায়ার সেফটি ও তথ্য প্রযুক্তির উপর একটি গুরুত্বপূর্ণ সাক্ষাৎকার প্রদান করেন। সাক্ষাৎকার গ্রহণ ও সম্পাদনা চীফ রিপোর্টার কাজল আরিফ

 
টাইমওয়াচ : একজন সাধারণ মানুষ ও প্রকৌশলী হিসেবে আগামীর বাংলাদেশ কেমন দেখতে চান?
নজরুল ইসলাম : একজন সাধারণ মানুষ হিসেবে আমি বাংলাদেশ তথা বিশ্বকে দেখতে চাই সেরকম অবস্থানে যেখানে প্রতিটি মানুষ তার অবস্থানগত দিক থেকে সুখী ও শান্তিতে বসবাস করবে। সরকারের নজর অব্যাহত থাকলে আইটি সেক্টরের উন্নয়ন ত্বরান্বিত হবে
যেখানে থাকবেনা কোনো হানাহানি, জুলুম, নিপীড়ন, হিংসা, বিদ্বেষ। একজন প্রকৌশলী হিসেবে বাংলাদেশের রাস্তাঘাট, আবাসন ও মার্কেট সব জায়গাতেই থাকবে প্রযুক্তির ছোঁয়া ও উন্নত ব্যবস্থাপনা যা দেখে লোকে বলবে আমরা উন্নত দেশ থেকে এগিয়ে। সবমিলিয়ে দারুণ এক অবস্থান যা সারা বিশ্বে সভ্যতার দিক থেকে বাংলাদেশ থাকবে উচ্চতর স্থানে আর একজন প্রকৌশলী হিসেবে সে অবস্থানে নিয়ে যাওয়াটাই আমাদের প্রচেষ্টা।
টাইমওয়াচ : বর্তমান সময়ে তথ্যপ্রযুক্তির অনেক বিকাশ ঘটছে; এ সম্পর্কে আপনার মতামত কী?
নজরুল ইসলাম : হ্যাঁ, আপনি ঠিকই বলেছেন। তথ্য প্রযুক্তির খুব দ্রুত উন্নতি ঘটছে। কয়েক বছর আগেও আমরা যখন আইটি সেক্টরে কাজ করেছি তখন অনেক ভালো ভালো কোম্পানিও ওয়েব সাইট সম্পর্কে জানতেন না আর এখন বিল বোর্ডের দিকে তাকালেই বুঝতে পারবেন যে শুধু লিখা আছে কোম্পানির নাম ও ওয়েব সাইট। তাতেই বোঝা যায় আমরা কতটুকু অ্যাডভান্সড। প্রতিটি সেক্টর খুব দ্রুত পরিবর্তন হচ্ছে।
টাইমওয়াচ : এই দ্রুত পরিবর্তনের পিছনে বিশেষ কারো মুখ্য ভূমিকা আছে বলে আপনি মনে করেন কী?
নজরুল ইসলাম : দেখুন, কোনা কিছুর পরিবর্তনে সচেতন ব্যক্তির হাত লাগেই। যিনি স্বপ্ন দেখতে জানেন; সেই স্বপ্নকে বাস্তবায়ন করার লক্ষ্যে কাজ করেন। সেরকম কারো ছোঁয়া না থাকবেসরকারের নজর অব্যাহত থাকলে আইটি সেক্টরের উন্নয়ন ত্বরান্বিত হবে
আমরা এতদূর এগোতে পারতামনা। বর্তমান সরকার আইটি সেক্টরে যতটা নজর দিয়েছে এ ধারা অব্যাহত থাকলে শিগগিরই নতুন দিগন্তের মুখ উন্মোচিত হবে। আর এই বিষয়টা যিনি বুঝেন, উপলব্ধি করেন তিনিই কিন্তু ডিজিটাল বাংলাদেশ গড়ার লক্ষ্যে কাজ করে যাচ্ছেন।
সরকার যেমন ভাবছে আমরা ডিজিটাল বাংলাদেশ গড়বো। আমাদেরও মনে রাখতে হবে, ডিজিটাল বাংলাদেশ গড়তে সহায়তা করতে হবে। এই দুইয়ের সম্মিলিত প্রয়াসেই আমরা অনেকদূর পৌঁছাবো।
 
 
 
টাইমওয়াচ : আপনি পাবলিক রিলেটেড কোনো আইটি প্রোডাক্ট নিয়ে কাজ করছেন কী?
নজরুল ইসলাম : আমাদের আধুনিক ফায়ার সেফটি বিষয়টাও সরাসরি আইটির সাথে ওতোপ্রোতভাবে জড়িত। তাছাড়া জনগণের উপকারে আসে এমন ২টি আইটি প্রোডাক্ট নিয়ে কাজ করছি।
টাইমওয়াচ : সরকারের কাছে আপনার চাওয়া কী?
নজরুল ইসলাম : আমার প্রোডাক্টের সাথে পাবলিকের সংযোগ থাকার কারণে সরকার এগিয়ে এলে আমরা সকলেই উপকৃত হবো। উন্নত বিশ্বের মতো তরুণ উদ্যোক্তাদের অনেক বেশি সাহসী করে তুলবে-এ আমার বিশ্বাস।

printer
সর্বশেষ সংবাদ
সাক্ষাৎকার পাতার আরো খবর

Developed by orangebd