ঢাকা : বুধবার, ২৯ জানুয়ারি ২০২০

সংবাদ শিরোনাম :

  • একবিংশ শতাব্দীর চ্যালেঞ্জ মোকাবিলায় দক্ষ প্রকৌশলীর বিকল্প নেই : রাষ্ট্রপতি          রাজধানীর ৬৪ স্থানে বাস স্টপেজ নির্মাণ হবে : কাদের          ২০৩০ সালের মধ্যে দেশে ৩ কোটি যুবকের কর্মসংস্থানের হবে : অর্থমন্ত্রী          দ্বীপ ও চরাঞ্চলে পৌঁছাচ্ছে ইন্টারনেট           সরকারি ব্যয়ে স্বচ্ছতা ও জবাবদিহিতা নিশ্চিত করতে হবে : স্পিকার          রপ্তানি বাজার সম্প্রসারণের তাগিদ প্রধানমন্ত্রীর          বাংলাদেশে আইএস বলে কিছু নেই : হাছান মাহমুদ
printer
প্রকাশ : ১৪ নভেম্বর, ২০১৫ ০৯:৫৪:১৫
পুষ্টিগুণে ভরপুর লাল শাক
টাইমওয়াচ ডেস্ক


 

লাল শাক অনেকেরই অকেক প্রিয় শাক। খেতেও যেমন সুস্বাদু তেমনি পুষ্টিগুণে ভরপুর। পুষ্টিগুণ এবং রোগ প্রতিরোধের দিক দিয়ে লাল শাকের চেয়ে যোজন যোজন দূরে অন্যান্য শাকসবজি। 
প্রতি ১০০ গ্রাম লাল শাকে আছে ৩৭৪ মি. গ্রা. ক্যালসিয়াম, ৫.৩৪ মি. গ্রা. প্রোটিন, ০.১৪ মি. গ্রা. স্নেহ, ৪.৯৬ মি. গ্রা. শর্করা। এছাড়া ভিটামিন বি, ভিটামিন বি২, ভিটামিন সি, ক্যারোটিন ও অন্যান্য খনিজ পদার্থ এবং খাদ্য শক্তি তো আছেই।
ভিটামিন 'এ'-তে ভরপুর লালশাক। ফলে নিয়মিত এই শাক খেলে অন্ধত্ব ও রাতকানা রোগ প্রতিরোধের পাশাপাশি দৃষ্টিশক্তি ভালো থাকে।
এতে আছে এন্টি-অক্সিডেন্ট, যা ক্যান্সার প্রতিরোধে সাহায্য করে। এছাড়া শরীরে অতিরিক্ত ক্যালসিয়াম জমার কারণে যে অসুখ হওয়ার সম্ভাবনা থাকে লাল শাক তা প্রতিরোধ করে। লাল শাকে আছে বিটা-ক্যারোটিন। যেটি আপনার হার্টস্ট্রোকে আক্রান্ত হওয়ার ঝুঁকিকে অনেকাংশে কমিয়ে আনবে। আর রক্তে কোলেস্টেরলের মাত্রা কমাতে লাল শাকের জুড়ি নেই। যাদের দাঁতে সমস্যা আছে তারা বেশি করে লাল শাক খাওয়া প্রয়োজন। কারণ এতে আছে ভিটামিন 'সি'। আর লাল শাক দাঁত ও দাঁতের অস্থি গঠনে দারুণভাবে সাহায্য করে। দাঁতের মাড়ি ফোলা দূর করে। যেহেতু আঁশ জাতীয় অংশ খাবার তাই নিশ্চিতভাবেই খাবার পরিপাকে সহায়তা করে এবং কোষ্ঠকাঠিন্য দূর করতে ভূমিকা রাখে। ডায়াবেটিস রোগীদের জন্যও লাল শাক অনেক উপকারী। কারণ এতে ক্যালরি নেই বললেই চলে। আর লাল শাকে ক্যালরি না থাকায় ওজন বাড়ারও ভয় নেই লাল শাকে।
সুতরাং এই শীতে লাল শাকই হোক আপনার প্রতিদিনের খাদ্য।

printer
সর্বশেষ সংবাদ
স্বাস্থ্য ও জীবন পাতার আরো খবর

Developed by orangebd