ঢাকা : বুধবার, ২৫ নভেম্বর ২০২০

সংবাদ শিরোনাম :

  • পদ্মা সেতুর কাজের অগ্রগতি প্রায় ৯১ ভাগ : সেতুমন্ত্রী          মার্কিন প্রেসিডেন্ট নির্বাচনে হোয়াইট হাউসে যে-ই আসুক বাংলাদেশের সমস্যা নেই : মোমেন           মাস্ক পরিধান সংক্রান্ত নির্দেশনা প্রদান          গত ২৪ ঘন্টায় শনাক্ত ১৩২০ করোনা রোগী, মৃত্যুবরণ ১৮ জন          ব্রহ্মপুত্র-যমুনা ও পদ্মা ছাড়া সব নদ ও নদীর পানি কমছে           শিক্ষা প্রতিষ্ঠানের ছুটি ফের বাড়লো          ২০২০ অর্থবছরে জিডিপি প্রবৃদ্ধি হার হয়েছে ৫.২৪ শতাংশ : বিবিএস          ভ্যাট পরিশোধ করা যাবে অনলাইনে
printer
প্রকাশ : ২৬ জুন, ২০১৬ ১৪:৩১:৩৭
সরকারি পলিটেকনিকে ভর্তির ফল প্রকাশ
টাইমওয়াচ রিপোর্ট


 

ডিপ্লোমা ইন ইঞ্জিনিয়ারিং কোর্সে সরকারি পলিটেকনিক ইনস্টিটিউট ও টেকনিক্যাল স্কুল অ্যান্ড কলেজে ভর্তির ফল প্রকাশ করা হয়েছে।
২৬ জুন সচিবালয়ে শিক্ষামন্ত্রী নুরুল ইসলাম নাহিদ এক সংবাদ সম্মেলনে অনলাইনে দু’জন শিক্ষার্থীর ফল দেখে আনুষ্ঠানিকভাবে ফলাফল প্রকাশ করেন।
কারিগরি শিক্ষা অধিদফতরের ওয়েবসাইটে www.techedu.gov.bd ফল পাওয়া যাবে। এ ছাড়া আবেদনের সময় দেওয়া শিক্ষার্থীর মোবাইল নম্বরে ফল জানিয়ে দেওয়া হবে।
মূল মেধাতালিকা থেকে সরকারি পলিটেকনিকগুলোতে রবিবারই শিক্ষার্থী ভর্তি শুরু হবে। ৩০ জুন পর্যন্ত ভর্তি চলবে। ক্লাস শুরু হবে ১৬ আগস্ট।
একাধিক ধাপে অপেক্ষমাণ তালিকা প্রকাশ করা হবে জানিয়ে শিক্ষামন্ত্রী বলেন, এসব তালিকা থেকে আগামী ২ থেকে ২৪ জুলাই শিক্ষার্থী ভর্তি করা হবে।
এবার ডিপ্লোমা ইন ইঞ্জিনিয়ারিং কোর্সে ৪৯টি সরকারি পলিটেকনিক ইনস্টিটিউট, ৬৪টি কারিগরি স্কুল অ্যান্ড কলেজ ও একটি ভোকেশনাল টিটার্স ট্রেনিং ইনস্টিটিউটে (ভিটিটিআই) দুই শিফটে মোট ৫৭ হাজার ৭৮০টি আসন রয়েছে। এ আসনের বিপরীতে এবার ১ লাখ ৬৫ হাজার ১৭৭ জন শিক্ষার্থী আবেদন করেন।
প্রথম শিফটে ৩২ হাজার ৩৪০ আসনের বিপরীতে ৯৯ হাজার ৭১৮টি, দ্বিতীয় শিফটে ২৫ হাজার ৪৪০টি আসনের বিপরীতে ৬৫ হাজার ৪৫৯টি আবেদন জমা পড়ে বলে সংবাদ সম্মেলনে জানানো হয়।
গত বছর দুই শিফটে ৩১ হাজার ৫৬০টি আসন থাকলেও এবার আরও ২৬ হাজার ২২০টি আসন বাড়ানো হয়েছে জানিয়ে শিক্ষামন্ত্রী বলেন, বেসরকারি কারিগরি শিক্ষা প্রতিষ্ঠানে আগামী ৩০ জুন পর্যন্ত আবেদন নেওয়া হবে, ফল প্রকাশ করা হবে ১ জুলাই।
শিক্ষামন্ত্রী বলেন, মাধ্যমিক উত্তীর্ণ ৬ লাখ ৫ হাজার ৬০৬ শিক্ষার্থী দেশের সরকারি-বেসরকারি বিভিন্ন কারিগরি শিক্ষা প্রতিষ্ঠানে ভর্তি হতে পারবেন।
তিনি বলেন, ২০২০ সালের মধ্যে কারিগরিতে মোট শিক্ষার্থীর ২০ শতাংশ এবং ২০৩০ সালের মধ্যে ৩০ শতাংশে উন্নীত করা হবে।
নুরুল ইসলাম নাহিদ বলেন, ২০২০ সালের মধ্যে কারিগরি শিক্ষার এনরোলমেন্ট (অন্তর্ভুক্তি) ২০ শতাংশ এবং ২০৩০ সালের মধ্যে ৩০ শতাংশে উন্নীত করার লক্ষ্যমাত্রা নির্ধারণ করা হয়েছে।
কারিগরিতে ভর্তির হার ১ দশমিক ২ শতাংশ থেকে বৃদ্ধি পেয়ে বর্তমানে ১৪ শতাংশে উন্নীত হয়েছে জানিয়ে শিক্ষামন্ত্রী বলেন, ‘আমরা দৃঢ়ভাবে বিশ্বাস করি নির্ধারিত সময়ের মধ্যে আমাদের লক্ষ্যমাত্রা ছাড়িয়ে যাবে।
সংবাদ সম্মেলনে শিক্ষা সচিব মো. সোহরাব হোসাইন, মাধ্যমিক ও উচ্চ শিক্ষা অধিদফতরের মহাপরিচালক অধ্যাপক ফাহিমা খাতুন, শিক্ষা মন্ত্রণালয়ের অতিরিক্ত সচিব (কারিগরি) অশোক কুমার বিশ্বাস উপস্থিত ছিলেন।

printer
সর্বশেষ সংবাদ
খেলাধূলা পাতার আরো খবর

Developed by orangebd