ঢাকা : শনিবার, ২৫ নভেম্বর ২০১৭

সংবাদ শিরোনাম :

  • সরকার নদীখননের কার্যক্রম হাতে নিয়েছে : নৌ-পরিবহনমন্ত্রী          দক্ষতা-জ্ঞান-প্রযুক্তির মাধ্যমেই সক্ষমতা অর্জন সম্ভব : পররাষ্ট্রমন্ত্রী           বাংলাদেশে এ বছর রেকর্ড পরিমাণ প্রবৃদ্ধি হয়েছে          জাতীয় নির্বাচনে সেনা মোতায়েনের সিদ্ধান্ত হয়নি : সিইসি          আ.লীগ সরকার ছাড়া কোনো দলই এত পুরস্কার পায়নি : প্রধানমন্ত্রী          মোবাইল ব্যাংকিং সেবার চার্জ কমে আসবে : অর্থমন্ত্রী          রোহিঙ্গাদের ফিরিয়ে নিতে সু চিকে জাতিসংঘের অনুরোধ
printer
প্রকাশ : ০৩ এপ্রিল, ২০১৭ ১৩:২১:৩৩
যৌবন ধরে রাখতে চান, থানকুনি খেয়ে যান
টাইমওয়াচ ডেস্ক


 

থানকুনি আমাদের অতিপরিচিত পাতা।পুকুর পাড় বা জলাশয়ে হামেশাই দেখা মেলে।থানকুনি পাতার রস খুবই উপকারী।
 
 
লাবণ্যতা/যৌবণ : বয়স বাড়লেও যৌবন ধরে রাখে থানকুনি পাতার রস।যদি মুখ মলিন হয়, লাবণ্যতা কমে যায় তবে ৫-৬ চা চামচ থানকুনি পাতার রস দুধ দিয়ে খেতে হবে। নিয়মিত করলে উপকার পাবেন।
 
 
দূষিত ক্ষত : মূলসহ সমগ্র গাছ নিয়ে সিদ্ধ করে সেই পানি দিয়ে দূষিত ক্ষত ধুতে হবে।
 
 
জ্বর ও আমাশয় : আমাশয়ের সঙ্গে জ্বর হলে থানকুনি পাতার রস গরম করে ছেঁকে খাওয়াতে হবে।
 
 
মুখে ঘা : থানকুনি পাতা সিদ্ধ পানি দিয়ে গারগিল করতে হবে।
 
 
আঘাত : কোথাও থেঁতলে গেলে থানকুনি গাছ বেটে অল্প গরম করে আঘাতপ্রাপ্ত স্থানে প্রলেপ দিলে উপকার পাবেন।
 
 
সাধারণ ক্ষত : থানকুনি পাতা বেটে ঘিয়ের সঙ্গে জ্বাল দিয়ে ঠাণ্ডা করে তা ক্ষত স্থানে লাগাতে হবে।
 
 
চুল পড়া : অপুষ্টির অভাবে, ভিটামিনের অভাবে চুল পড়লে পুষ্টিকর ভিটামিন সমৃদ্ধ খাবারের পাশাপাশি ৫-৬ চা চামচ থানকুনি পাতার রস দুধের সঙ্গে মিশিয়ে খেতে হবে।
 
 
পেটের দোষ : মলের সঙ্গে শ্লেষ্ণা গেলে, মল পরিষ্কারভাবে না হলে, পেটে গ্যাস হলে, কোনো কোনো সময় মাথা ধরা এসব ক্ষেত্রে ৩-৪ চা চামচ থানকুনি পাতার গরম রস ও সমপরিমাণ গরুর কাঁচা দুধ মিশিয়ে খেতে হবে। নিয়মিত খেলে উপকার পাবেন।
 
 
স্মরণশক্তি : মনে না থাকলে আধা কাপ দুধ, ২-৩ তোলা থানকুনি পাতার রস ও এক চা চামচ মধু মিশিয়ে খেতে হবে।
 
 
বাক স্টম্ফুরণ : বাচ্চার দেরিতে কথা বললে অথবা পরিষ্কার কথা না বললে এক চামচ থানকুনি পাতার রস গরম করে ঠাণ্ডা হলে ২০-২৫ ফোঁটা মধু, ঠাণ্ডা দুধ এক সঙ্গে মিশিয়ে বাচ্চাকে খাওয়াতে হবে।
 
 
নাক বন্ধ : ঠাণ্ডায় নাক বন্ধ হলে, সর্দি হলে থানকুনির শিকড় ও ডাঁটার মিহি গুঁড়ার নস্যি নিলে উপকার পাওয়া যায়।
 
 
প্রসঙ্গত, কাঁচা বাজারে এই থানকুনি পাতা পাওয়া যায়।
 
 
থানকুনি পাতার বহুবিদ ব্যবহার আছে, আপনি রসের পাশাপাশি ভর্তা বানিয়েও এই পাতা খেতে পারবেন। রস বানানোর জন্য আপনি সিমপ্লি ব্লেন্ডার ব্যবহার করতে পারেন, স্বাদের জন্য আপনি হাল্কা কাচা মরিচ দিতে পারেন ব্লেন্ডারে, এতে করে একটু ঝাঁজ ঝাঁজ স্বাদ পাওয়া যাবে, একটু চিনিও দিতে পারেন। মোট কথা স্বাদের বিষয়টা নিরভর করবে আপনি কি ধরনের স্বাদ পেতে চান, তবে যেই স্বাদেরই বানান না কেন সাথে বরফ কুচি অবশ্যই দিবেন। খাওয়ার কোন ধরা বাঁধা সময় নেই, আপনার রুচি অনুযায়ী খেতে পারেন তবে সকালে খালি পেটে খেলে ভাল (নির্ভর করবে আপনার পেট যদি তখন সমস্যা না করে)।

printer
সর্বশেষ সংবাদ
স্বাস্থ্য ও জীবন পাতার আরো খবর

Developed by orangebd