ঢাকা : সোমবার, ২৬ আগস্ট ২০১৯

সংবাদ শিরোনাম :

  • ডেঙ্গু এখনো নিয়ন্ত্রণের বাইরে : কাদের          ঈদে হাসপাতালের হেল্প ডেস্ক খোলা রাখার নির্দেশ          নবম ওয়েজ বোর্ডের ওপর হাইকোর্টের স্থিতাবস্থা           বন্দরসমূহের জন্য ৩ নম্বর স্থানীয় সতর্ক সংকেত          দেশের সব ইউনিয়নে হাইস্পিড ইন্টারনেট থাকবে
printer
প্রকাশ : ১৭ এপ্রিল, ২০১৭ ১৭:৩১:৫৫
তিস্তার পানি নিয়ে আসার ক্ষমতা সরকারের নাই
টাইমওয়াচ রিপোর্ট


 

বিএনপির মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর বলেছেন, তিস্তার পানি নিয়ে আসার ক্ষমতা সরকারের নাই। ভারতের সাথে বারগেইনিং করবে সে ক্ষমতাও সরকারের নাই। আজকে যখন ভারত সরকার বলে, আমরা তিস্তার পানি দিতে পারব না, তখন এই সরকার তো বলতে পারত আমরাও অন্যান্য চুক্তিগুলোতে সই করতে পারব না। সে কথা তিনি (প্রধানমন্ত্রী) বলেননি। তিনি নতজানু হয়ে অন্যান্য সব চুক্তি সই করে এসেছেন। কিন্তু আমাদের সবচেয়ে বেশি যা দরকার- পানি, তার চুক্তি হয় নাই।
 
১৭ এপ্রিল সোমবার রাজধানীর কাকরাইলে ইনস্টিটিউশন অব ডিপ্লোমা ইঞ্জিনিয়ার্স, বাংলাদেশ (আইডিইবি) মিলনায়তনে এক আলোচনা সভায় তিনি এ মন্তব্য করেন।
 
বিএনপির প্রাক্তন সাংগঠনিক সম্পাদক এম ইলিয়াস আলীর গুম হওয়ার ৫ বছর পূর্তি উপলক্ষে এবং তাকে ফিরে পাওয়ার দাবিতে এ আলোচনা সভার আয়োজন করে সিলেট বিভাগ সংহতি সম্মেলনী, ঢাকা।
 
ফখরুল বলেন, এই নতজানু, সেবাদাস সরকার দিয়ে আমাদের জনগণের সমস্যার সমাধান হবে না। আমাদের ন্যায্য হিস্যা পাব না, গণতান্ত্রিক অধিকারগুলো ফিরে পাব না। তারা জোর করে ক্ষমতায় টিকে থাকতে চায়। তাদেরকে জনগণের শক্তি দিয়ে পরাজিত করতে হবে এবং জনগণের ঐক্যবদ্ধ শক্তির মাধ্যমে আমরা আমাদের অধিকারগুলো ফিরে পাব।
 
তিনি বলেন, ইলিয়াস আলীর গুম হওয়ার শোককে শক্তিতে রূপান্তরিত করতে হবে। আমরা বারবার ব্যর্থ হয়ে যাচ্ছি। কোনো গণতান্ত্রিক আন্দোলনে বিএনপির মতো এত লোকক্ষয় হয়েছে বলে আমার জানা নাই।
 
তিনি আরো বলেন, হাওর এলাকায় বন্যা হয়েছে, সেই বন্যাদুর্গত মানুষদের পাশে দাঁড়ানোর জন্য, দেশনেত্রীর (খালেদা জিয়া) নির্দেশে গিয়েছিলাম। আমি মানুষের মধ্যে যে অভূতপূর্ব আবেগ দেখেছি, তাদের যে সাড়া দেখেছি, আমার কাছে বিশ্বাস জন্মে গেছে, আমরা যদি নিজেরা ঐক্যবদ্ধ হতে পারি, সমগ্র জাতীয় শক্তিকে ঐক্যবদ্ধ করতে পারি, তাহলে এই অপশক্তি (সরকার) ক্ষমতায় টিকে থাকতে পারবে না।
 
বিএনপির নেতা-কর্মীদের উদ্দেশে মির্জা ফখরুল বলেন, আসুন আমরা স্বাধীনতা, গণতন্ত্র ও মানুষের অধিকার ফিরে আনতে শপথ গ্রহণ করি।
 
যুবদলের প্রাক্তন সহ-সভাপতি আব্দুল কাইউমের সভাপতিত্বে সভায় আরো বক্তব্য রাখেন- এম ইলিয়াস আলীর স্ত্রী তাহাসিনা রুশদির রুনা, বিএনপির স্থায়ী কমিটির সদস্য গয়েশ্বর চন্দ্র রায়, মির্জা আব্বাস, যুগ্ম মহাসচিব হাবিব উন-নবী-খান সোহেল, মোয়াজ্জেম হোসেন আলাল, খায়রুল কবির খোকন, মুজিবুর রহমান সোহরাওয়ার প্রমুখ।

printer
সর্বশেষ সংবাদ
রাজনীতি পাতার আরো খবর

Developed by orangebd