ঢাকা : শুক্রবার, ২২ সেপ্টেম্বর ২০১৭

সংবাদ শিরোনাম :

  • মেক্সিকোতে ভূমিকম্প : নিহত ২৪৮          রোহিঙ্গাদের ব্যাপার ঐক্যবদ্ধ হতে ওআইসি’র প্রতি প্রধানমন্ত্রীর আহ্বান          দু-এক দিনের মধ্যে চালের দাম কমবে : বাণিজ্যমন্ত্রী          রোহিঙ্গাদের প্রতি আন্তরিকতার কমতি নেই : ওবায়দুল কাদের          রোহিঙ্গারা ক্যাম্প ত্যাগ করলে অবৈধ বলে গণ্য হবেন : আইজিপি          রোহিঙ্গাদের আশ্রয় দিয়ে বাংলাদেশ নৈতিক সাফল্য অর্জন করেছে : রুশনারা আলী
printer
প্রকাশ : ১১ জুলাই, ২০১৭ ১৬:৩৪:১৯আপডেট : ১১ জুলাই, ২০১৭ ১৬:৩৪:৪৮
ফটিকছড়িজুড়ে রসালো ফলের সমাহার
ফটিকছড়ি সংবাদদাতা


 


ফটিকছড়িজুড়ে মধুমাসের মৌসুমী ফলের সমাহার। গাছে গাছে হাট বাজারে যে দিকে চোখ যাচ্ছে রসালো ফল চোখে পড়ছে। বাতাসে ভেসে আসছে মৌসুমী রসালো ফলের মৌ মৌ সু গন্ধ। মৌ মৌ পাকা ফলের সু গন্ধে জিহ্বায় জল এসে ফল খাওয়ার জন্য মনকে জাগিয়ে তুলছে।
এদিকে উপজেলার হাট বাজারেও জমে উঠেছে মৌসুমী রসালো ফলের বাজার। আম, জাম, আনারস, কাঁঁঠাল, লিচু, জামরুলসহ বাহারী মৌসুমী ফলে সয়লাব উপজেলার হাটবাজারগুলো।তবে দাম এখনো চড়া হওয়ায় নিম্ন আয়ের সাধারন মানুষগুলো চাহিদা অনুযায়ী  ক্রয় করতে পারছেনা।
জানা যায়, উপজেলার বিভিন্ন স্থানে বিশেষ করে পাহাড়ি এলাকাগুলোতে আম, কাঁঠাল, আনারস ভাল ফলে। তাই ফলের বাগান করা ছাড়াও বসত ভিটায় ফলের গাছ রোপন করে নিজেদের চাহিদা মিটিয়ে বাজারে বিক্রি করে।এছাড়া বিক্রেতারা র্পাবত্য অঞ্চলের হাটবাজার থেকে সংগ্রহ করে ফটিকছড়িতে বিক্রি করে বিধায় ক্রেতারা খুব সহজে ক্রয় করতে পারে।ইতিমধ্যে উত্তর ফটিকড়ির হাটবাজারগুলোতে দেশের বিভিন্ন অঞ্চলের পাইকারী ব্যবায়ীদের সমাগমে সরব হয়ে উঠেছে।বিশেষ করেএ অঞ্চলের উৎপাদিত কাঁঠাল সংগ্রহ করে নিয়ে যাচ্ছে। উপজেলার নাজিরহাট, বিবিরহাট, নানুপুরসহ বিভিন্ন হাটবাজার ঘুরে দেখা যায় মৌসুমী ফলমূল আম, জাম, কাঠাঁল, আনারস, লিচু, খেজুর, জামরুলসহ বিভিন্ন মৌসুমী ফলে বাজার সয়লাভ। এসব মৌসুমী ফল ক্রয়ে ক্রেতাদের ভীড় লক্ষণীয়। তবে দাম এখনো চড়া হওয়ায় নিু আয়ের সাধারন মানুষগুলো চাহিদা অনুযায়ী  ক্রয় করতে পারছেনা।প্রতিশ দেশীয় লিচু বিক্রি হচ্ছে ১০০-১৫০ টাকা চায়না-২ চায়না-৩ ও রাজশাহী প্রতিশ লিচু বিক্রি হচ্ছে ২০০-৪০০ টাকা র্পযন্ত ।ছোট সাইজের প্রতি কাঁঠাল ৫০-৮০ টাকা।মাঝারী সাইজের প্রতি কাঁঠাল ১০০-১৫০টাকা। বড় সাইজের প্রতি কাঁঠাল ২০০-৩০০ র্পযন্ত বিক্রি হচ্ছে।দেশীয় আম প্রতি কেজি ৪০-৬০ টাকা। গোপালভোগ, মোহনভোগ, ল্যাংড়াসহ বিভিন্ন প্রজাতের আম বিক্রি হচ্ছে ১০০-২৫০টাকা র্পযন্ত। দিনমজুর আলী নেওয়াজ বলেন বছরের ফল হিসেবে ছেলে মেয়েদের জন্য ক্রয় করছি।দাম বেশি হওয়ায় চাহিদামত ক্রয় করতে পারছি না। বক্রেতা আজম উদ্দিন বলেন দাম বেশি হলেও বিক্রি ভাল হচ্ছে । তবে কিছুদিন পর দাম কমবে তখন বেচা বিক্রি আরো ভাল হবে।

printer
সর্বশেষ সংবাদ
সারা দেশ পাতার আরো খবর

Developed by orangebd