ঢাকা : বৃহস্পতিবার, ২৩ নভেম্বর ২০১৭

সংবাদ শিরোনাম :

  • সরকার নদীখননের কার্যক্রম হাতে নিয়েছে : নৌ-পরিবহনমন্ত্রী          দক্ষতা-জ্ঞান-প্রযুক্তির মাধ্যমেই সক্ষমতা অর্জন সম্ভব : পররাষ্ট্রমন্ত্রী           বাংলাদেশে এ বছর রেকর্ড পরিমাণ প্রবৃদ্ধি হয়েছে          জাতীয় নির্বাচনে সেনা মোতায়েনের সিদ্ধান্ত হয়নি : সিইসি          আ.লীগ সরকার ছাড়া কোনো দলই এত পুরস্কার পায়নি : প্রধানমন্ত্রী          মোবাইল ব্যাংকিং সেবার চার্জ কমে আসবে : অর্থমন্ত্রী          রোহিঙ্গাদের ফিরিয়ে নিতে সু চিকে জাতিসংঘের অনুরোধ
printer
প্রকাশ : ৩০ জুলাই, ২০১৭ ০০:৩৮:২৫আপডেট : ০৬ আগস্ট, ২০১৭ ১০:২৫:৪১
রবির এয়ারটেল একিভুত কোম্পানির লাইসেন্স তুলে দিলেন তারানা হালিম
ফেরদৌস হোসেন


 


মোবাইল ফোন অপারেটর রাবি আজিয়াটা লিমিটেডের হাতে আনুষ্ঠানিকভাবে একীভূত কোম্পানির লাইসেন্স তুলে দেন ডাক ও টেলিযোগাযোগ প্রতিমন্ত্রী তারানা হালিম।

 

২৯ জুলাই শনিবার সন্ধ্যায় বঙ্গবন্ধু আন্তর্জাতিক সম্মেল লাইসেন্স প্রদান অনুষ্ঠানে এ লাইনেন্স তুলে দেন।

 

অনুষ্ঠানের তারানা হালিম বলেন, দেশের সবচেয়ে বড় একীভূতকরনের ঘটনাটি টেলিযোগাযোগ খাতে হয়েছে বলে আমরা অনন্দিত। একীভূতকরণ প্রক্রিয়ার স্বচ্ছতা মাননীয় প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার নেতৃত্বে সুশাসনেরই প্রতিচ্ছবি। আমাদের বিশ^াস একীভূত কোম্পানি রবি আরো বিনিয়োগের মাধ্যমে ডিজিটাল বাংলাদেশ রুপকল্প বাস্তবায়নে তাৎপর্যপূর্ণ ভূমিকা পালন করবে।

 

সাংবাদিকদের এক প্রশ্নের জবানে তারানা হালিম বলেন,  টেলিটক (মার্জ)র্ একভূত করার কোন পরিকল্পনা এখন নেই। ভবিস্যতে যদি প্রয়োজন হয় সেটা সময় বলে দেবে। টেলিটকের জন্য ৬৭০ কোটি টাকান একটি প্রকল্প নেওয়া হয়েছে। সে টাকা পেলে টেলিটক নিজের পায়ে দাঁড়াতে পারবে।

 

অনুষ্ঠানে বিটিআরসি’র চেয়ারম্যান ড.শাহজাহান মাহমুদ বলেন, আমি বিশ^াস করি এই একীভূতকরণের ফলে সুষ্ঠু প্রতিযোগিতার সৃষ্টি হয়েছে যা মানসম্মত টেলিযোগযোগ সেবা নিশ্চিত করবে।

 

একীভূত কোম্পানির লাইসেন্স হাতে পাওয়ার পর রবি’র ম্যানেজিং ডিরেক্টর অ্যান্ড সিইও মাহতাব উদ্দিন আহমেদ বলেন, রবির লক্ষ্য পরবর্তী প্রজন্মের ডিজিটাল কোম্পানিতে রুপান্তরিত হওয়া। এয়ারটেলের সঙ্গে সফলভাবে একীভূত হওয়ার পর আমাাদের সে প্রত্যয় আরো দৃঢ় হয়েছে। গ্রাহককেন্দ্রি প্রতিষ্টান হিসেবে আমাদের নেটওয়ার্কের আওতায় একই সঙ্গে রবি ও এয়ারটেল উভয় গ্রাহকদের সেবা দেয়ার সুযোগ পেয়ে আমরা আনন্দিত। রবি -এয়ারটেল সমন্বয়ের ফলে আন-নেট কল সুবিধা এবং এয়ারটেলর গ্রাহকদের বিস্তৃত নেটওয়ার্কের আওতায় আনতে পারায় আমরা ইতোমধ্যে গ্রাহকদের মন জয় করেছি। আমাদের এ সুযোগ দেয়ার জন্য সরকারকে ধন্যবাদ।

 

রবির পক্ষ থেকে জানানো হয়, উচ্চ আদালতের অনুমোদনের ভিত্তিতে ১৬ নভেম্বর ২০১৬ এ রবি আজিয়াটা লিমিটেড (রবি) ও এয়ারটেল বাংলাদেশ লিমিটেড (এয়ারটেল) একীভূত কোম্পানি রবি হিসেবে এর বাণিজ্যিক কার্যক্রম শুরু করেন। রবি’র ব্র্র্যান্ড একটি স্বাধীন ব্র্যান্ড হিসাবে কার্যক্রম পরিচালনা করছে এয়ারটেল।

 

অনুষ্টানে টেলিযোগাযোগ নিয়ন্ত্রক সংস্থা এবং ডাক ও টেলিযোগাযোগ বিভাগের কর্মকর্তা ও রবির কর্মকর্তারা উপস্থিত ছিলেন।

printer
সর্বশেষ সংবাদ
তথ্য-প্রযুক্তি পাতার আরো খবর

Developed by orangebd