ঢাকা : বুধবার, ১৭ জানুয়ারি ২০১৮

সংবাদ শিরোনাম :

  • আঞ্চলিক দেশগুলোর চেয়ে বাংলাদেশে নারীরা এগিয়ে : চুমকি          তিন হাজার বিদ্যালয়ে একাডেমিক ভবন নির্মাণ করা হবে          সরকারের কাজ সম্পর্কে জনগণকে ধারণা দিতেই উন্নয়ন মেলা          পাবলিক পরীক্ষায় অনিয়ম হলে কঠোর ব্যবস্থা : শিক্ষামন্ত্রী           সালেই বাংলাদেশ বিশ্বের উন্নত রাষ্ট্রে পরিণত হবে : মেনন          বিশ্ব ইজতেমায় বিভিন্ন দেশ থেকে আসছে শতশত মুসুল্লি
printer
প্রকাশ : ০১ আগস্ট, ২০১৭ ১০:৫১:০৯আপডেট : ০১ আগস্ট, ২০১৭ ১৩:১৮:৩২
ভালোবাসায় নিগূঢ়তা
সুমনা মৃধা


 


রাতের নিশিথে মৃদু বাতাসের উন্মাদনায়
এলোকেশী আমি আর ছন্নছাড়া তুমি।
স্থিরচক্ষু তাকিয়ে থেকে
তোমার চোখের গভীর অতলে
হারানোর নেশায় মাতাল প্রায়।

আমি যখন রোমান্টিকতার ভাঁজে ভাঁজে খুঁজে ফিরছিলাম সুখ
তুমি তখন সুখ খুঁজছিলে নক্ষত্রের ভাঁজে ভাঁজে।
নক্ষত্রপাড়ায় হারিয়ে যাওয়ার
ফন্দি এঁটে যাচ্ছিলে সরবে।

তোমার নক্ষত্রে বিলীন হওয়ার বাসনাকে গলা টিপে হত্যা করে
অগ্নিমূর্তি আমি জিজ্ঞেস করেছিলাম,
‘ভালোবাসো আমায়?’

দীর্ঘ একটা নিশ্বাস ফেলেছিলে।

অতঃপর তোমার অধর কোণে মুচকি একটা হাসি।
অশ্লীলতার আড়ালে শ্লীল কোনো আলিঙ্গনে
ধীর গতির মৃদু স্বরে বলেছিলে,
             ‘অনেক বেশি।’

আমার আধো লাজনত চোখে অশ্রুকণার টলমল
যেনো জানান দিচ্ছিলো, আকাশ ছোঁয়া আনন্দের।
তর্জনি ডগায় ফোঁটা দুয়েক অশ্রুকণা নিয়ে
হাঁটুগেরে তুমি জিজ্ঞেস করেছিলে,
‘বেসে যাবে তো ভালো, এমনি করে?’
উত্তরে বলেছিলাম, ‘রাত্রির বুকে শশাঙ্কের আধিপত্য থাকবে কিনা,
      জিজ্ঞেস না করলেই কি নয়?’

বয়ে যাওয়া বাতাসও নিথর হলো তখন
নীড়ে ঘুমন্ত পাখিরা ডেকে উঠলো
         গোটা দুয়েকবার।

টিমটিম জ্বলে যাওয়া জোনাকিটাও
নিভিয়ে দিলো আলো।

নদীর কলকল ধ্বনি হলো নিস্তব্ধ।

নক্ষত্ররাজী সাঙ্গ করলো খেলা।

আর আমরা দুজন, দুজনাতে হারিয়ে গিয়ে
ঠোঁট বাকিয়ে আবেগী হয়ে,
জিজ্ঞেস করেছিলাম,
                ‘ভালোবাসো আমায়?’

অতঃপর দুজোড়া রক্তবর্ণ চোখ।
  আর এক জোড়া মুচকি হাসি।

printer
সর্বশেষ সংবাদ
সাহিত্য-সংস্কৃতি পাতার আরো খবর

Developed by orangebd