ঢাকা : শুক্রবার, ২২ সেপ্টেম্বর ২০১৭

সংবাদ শিরোনাম :

  • মেক্সিকোতে ভূমিকম্প : নিহত ২৪৮          রোহিঙ্গাদের ব্যাপার ঐক্যবদ্ধ হতে ওআইসি’র প্রতি প্রধানমন্ত্রীর আহ্বান          দু-এক দিনের মধ্যে চালের দাম কমবে : বাণিজ্যমন্ত্রী          রোহিঙ্গাদের প্রতি আন্তরিকতার কমতি নেই : ওবায়দুল কাদের          রোহিঙ্গারা ক্যাম্প ত্যাগ করলে অবৈধ বলে গণ্য হবেন : আইজিপি          রোহিঙ্গাদের আশ্রয় দিয়ে বাংলাদেশ নৈতিক সাফল্য অর্জন করেছে : রুশনারা আলী
printer
প্রকাশ : ২৪ আগস্ট, ২০১৭ ১৫:০৬:৩১
সীমান্তে বেড়েছে ভারতীয় পশু আমদানি, লোকসানের মুখে খামারীরা
এম এ রহিম, বেনাপোল


 


আর মাত্র ৮দিন পর কুরবানীর ঈদ। ঈদের বাজার ধরতে বেনাপোল গোগা ও রুদ্রপুর সীমাস্ত দিয়ে বেড়েছে ভারতীয় পশু আমদানি। দেশী বিদেশী পশুতে জমে উঠেছে শার্শা নাভারন ও সাতমাইল পশুর হাট। ভারতীয় পশুর আমদানি বাড়ায় লোকসানের মুখে পড়ছেন খামারীরা-গত ৮দিনে এসেছে প্রায় ৩ হাজার পশু।
দেশের দক্ষিন-পশ্চিমাঞ্চলের বৃহৎ পশুর খাটাল (করিডর) বেনাপোল পুটখালি দিয়ে ভারতীয় পশু আমদানি অনেকাংশে বন্ধ থাকলেও রুদ্রপুর-খলসি গোগা ও দৌলতপুর পশুর খাটালে কুরবানীর ঈদকে সামনে রেখে ভারত থেকে পশু আমদানি শুরু হয়েছে। এসব পশু নাভারন শুল্ক করিডর থেকে ভ্যাট রেজিষ্টেশন করে তোলা হচ্ছে নাভারন ও সাতমাইল পশুর হাটে। এ হাট থেকে রফতানি হচ্ছে ঢাকা খুলনা চিটাগাং কুষ্টিয়া মেহেরপুর সহ বিভিন্ন জেলা শহরে। সীমান্তের এসব খাটাল দিয়ে ৪বছর আগে বন্ধ হয়ে যায় পশু আমদানি,বেকার হয়ে পড়ে অনেক ব্যাবসায়ি। অনেকেই গরুর খামার গড়ে নির্বাহ করছেন জীবন জিবিকা। যেখানে ভারত থেকে প্রতিদিন আমদানি হতো ৫থেকে ৬হাজার পশু সেখানে গত ৪৩দিনে  এসেছে ১১ হাজার ৬শ গরু। তবে কুরবানীর ঈদকে সামনে রেখে আবারও পশু আমদানি শুরু হয়েছে। গত ৮দিনে এসেছে২৪শ৭৫টি পশু। ভারতীয় পশু আসায় খামারী ও ব্যাবসায়িরা পড়ছেন লোকসানের মুখে।
গরু খামারী-আরসাদ আলী ও ফরিদার খাতুন ও মনির হোসেন বলেন পশু খাদ্যের দাম বেড়ে গেছে। তারপরও শ্রমিকের মুজুরী বেশী। বেধভাবে গরুর ব্যাবসা করতে যেয়ে সমস্যায পড়েছেন তারা।
বিএসএফের হত্যাযঙ্গ-কড়াকড়ি এবং বিজিবির টহল জোরদারে ভারতীয় গরু আমদানি অনেকাংশে বন্ধ হয়ে যায়। বছরের অধিকাংশ সময় গরু না আসলেও কুরবানীর ঈদে বাড়ে আমদানি। এবার পশুর হাটে খামারীদের গরুর দাম বেশী আর ভারতীয় গরুর দাম কম এজন্য ব্যাবসায়িরাও পড়ছেন লসের মুখে। কুষ্টিয়া ও ফরিদপুর থেকে হাটে আসা ব্যাপারী জাহিদ শেখ ও সেলিম মন্ডল বলেন,দেশী গরু বেশীদামে কিনেও লাভ হয় ভাল আর ভারতীয় গরু কমদামে কিনেও লাভ হয় কম। ফলে দোটানায় পড়েছেন তারা।   
 ২১ বিজিবি ব্যাটলিয়ন খুলনা অধিনায়ক  লে: কর্নেল তারিকুল হাকিম-বলেন গত ১ মাসে ভারত থেকে প্রায় ৮হাজার পশু আমদানি হয়েছে। কুরবানী ঈদ উপলক্ষে পশু আমদানি বাড়ছে প্রতিদিন আসছে প্রায় ৫শ পশু সরকার পাচেছন রাজস্ব। সীমান্ত এলাকার মানুষকে বাড়ীতে ও খামার গড়ে পশু চাষে পরামর্শ দিচ্ছেন তারা।
দেশী গরু চাষে লাভ হবে ভাল-উপকৃত হবেন চাষী ও গরু ব্যাবসায়িরা-ভারতীয় গরু আসা বন্ধ হলেও কোন ক্ষতি হবেনা বলে জানান স্থানীয়রা।

printer
সর্বশেষ সংবাদ
অর্থ-বাণিজ্য পাতার আরো খবর

Developed by orangebd