ঢাকা : মঙ্গলবার, ২১ নভেম্বর ২০১৭

সংবাদ শিরোনাম :

  • সরকার নদীখননের কার্যক্রম হাতে নিয়েছে : নৌ-পরিবহনমন্ত্রী          দক্ষতা-জ্ঞান-প্রযুক্তির মাধ্যমেই সক্ষমতা অর্জন সম্ভব : পররাষ্ট্রমন্ত্রী           বাংলাদেশে এ বছর রেকর্ড পরিমাণ প্রবৃদ্ধি হয়েছে          জাতীয় নির্বাচনে সেনা মোতায়েনের সিদ্ধান্ত হয়নি : সিইসি          আ.লীগ সরকার ছাড়া কোনো দলই এত পুরস্কার পায়নি : প্রধানমন্ত্রী          মোবাইল ব্যাংকিং সেবার চার্জ কমে আসবে : অর্থমন্ত্রী          রোহিঙ্গাদের ফিরিয়ে নিতে সু চিকে জাতিসংঘের অনুরোধ
printer
প্রকাশ : ২৪ আগস্ট, ২০১৭ ২১:৪৬:৫৬
ইলিশের জিআই সনদ মৎস্য অধিদপ্তরের কাছে হস্তান্তর
টাইমওয়াচ রিপোর্ট


 


বাংলাদেশের ভৌগোলিক নির্দেশক বা জিওগ্রাফিক্যাল ইনডিকেশন (জিআই) পণ্য হিসেবে আনুষ্ঠানিক স্বীকৃতি পেল জাতীয় মাছ ইলিশ।  ২৪ আগস্ট মৎস্য অধিদপ্তরের কাছে আনুষ্ঠানিকভাবে এ জিআই সনদ তুলে দিয়েছেন শিল্পমন্ত্রী আমির হোসেন আমু। মৎস্য অধিদপ্তরের পক্ষে এর মহাপরিচালক সৈয়দ আরিফ আজাদ এ সনদ গ্রহণ করেন।

পেটেন্ট, ডিজাইন ও ট্রেডমার্কস অধিদপ্তরের রেজিস্ট্রার মো. সানোয়ার হোসেন এ তথ্য জানিয়েছেন। ইলিশ বাংলাদেশের দ্বিতীয় পণ্য, যা শিল্প মন্ত্রণালয়ের অধীন পেটেন্ট, ডিজাইন ও ট্রেডমার্কস অধিদপ্তর থেকে জিআই সনদ পেল। জিওগ্রাফিক্যাল ইন্ডিকেশন বা জিআই হচ্ছে একটি প্রতীক বা চিহ্ন, যা পণ্য ও সেবার উৎস, গুণাগুণ ও সুনাম ধারণ ও প্রচার করে। জিআই পণ্যের মালিকানা বিশ্ব বাণিজ্যের একটি গুরুত্বপূর্ণ অংশ। এর সঙ্গে পণ্যের রপ্তানি সক্ষমতা জড়িত। যাদের জিআই পণ্য যত বেশি, তাদের রপ্তানি সক্ষমতা তত বেশি। প্রসঙ্গত, গত বছর মৎস্য অধিদপ্তর জাতীয় মাছ ইলিশকে ভৌগোলিক নির্দেশক (জিআই) পণ্য হিসেবে নিবন্ধনের জন্য আবেদন করে। সেই আবেদন পরীক্ষা-নিরীক্ষা করে ১ জুন গেজেট প্রকাশের পর এ বিষয়ে কারো কোনো আপত্তি না থাকায় ইলিশের নিবন্ধন নিশ্চিত হয়। গত বছর বাংলাদেশের প্রথম জিআই পণ্য হিসেবে স্বীকৃতি পায় জামদানি শাড়ি।

printer
সর্বশেষ সংবাদ
জাতীয় পাতার আরো খবর

Developed by orangebd