ঢাকা : মঙ্গলবার, ১৮ ডিসেম্বর ২০১৮

সংবাদ শিরোনাম :

  • সততার সাথে দায়িত্ব পালন করতে হবে : সিইসি          নির্বাচনের তারিখ পেছানোর কোনো সুযোগ নেই : সিইসি          দুই দেশের সম্পর্ক আরও এগিয়ে যাক : মমতা          জীবনমান উন্নয়নের শিক্ষাগ্রহণ করতে হবে : প্রধানমন্ত্রী          বঙ্গবন্ধুর নাম কেউ মুছতে পারবে না : জয়
printer
প্রকাশ : ১৬ সেপ্টেম্বর, ২০১৭ ১৫:০৭:৫১
অমুসলিম পুরুষকে বিয়ে করতে বাধা নেই তিউনিসিয়ার নারীদের
টাইমওয়াচ ডেস্ক


 

অমুসলিম পুরুষদের বিয়ে করার স্বাধীনতা পেলে গলেন তিউনিসিয়ার নারীরা। সেদেশের সরকার বিদ্যমান আইন বাতিল করে অমুসলিম পুরুষ বিয়ে করার ওপর থেকে নিষেধাজ্ঞা তুলে নিয়েছে।
 
এতদিন তিউনিসীয় নারীদের অমুসলিম পুরুষদের বিয়ে করা নিষিদ্ধ ছিল। সেই আইন বাতিল করায় অমুসলিম বা যেকোনো ধর্মের পুরুষকে বিয়ে করতে নারীদের আর কোনো বাধা থাকলো না।
 
বিবিসি জানিয়েছে, তিউনিসিয়ার প্রেসিডেন্ট বেজি সাইদ এসেবসির এক মুখপাত্র এ ঘোষণা দিয়ে নারীদের 'স্বামী পছন্দের স্বাধীনতা' অর্জন হওয়ায় শুভেচ্ছা জানিয়েছেন।
 
এর আগে একজন অমুসলিম পুরুষ তিউনিসীয় নারীকে বিয়ে করতে চাইলে প্রথমে তাকে ইসলাম ধর্মে ধর্মান্তরিত হয়ে তার প্রমাণস্বরূপ সনদপত্র দাখিল করতে হতো।
 
তিউনিসিয়ায় ৯৯ শতাংশ মানুষ মুসলমান। আরব দেশগুলোর মধ্যে দেশটি নারীর অধিকার ও স্বাধীনতার দিক থেকে অগ্রগামী। তিউনিসীয় নারীদের বিয়ের ক্ষেত্রে সীমাবদ্ধতার এই আইন প্রণীত হয়েছিল ১৯৭৩ সালে।
 
কিছু দিন আগে প্রেসিডেন্ট এসেবসি বিদ্যমান বাতিল করার উদ্যোগ নেন। গত মাসে জাতীয় নারী দিবস উদযাপনকালে এক ভাষণে প্রেসিডেন্ট এসেবসি বলেন, ‘বিদ্যমান বিবাহ আইন নারীদের স্বাধীনভাবে স্বামী পছন্দ করার ক্ষেত্রে একটি বড় বাধা হয়ে আছে।’
 
এ ছাড়া এই নিষেধাজ্ঞা তিউনিসিয়ায় নতুন সংবিধানের সঙ্গে সাংঘর্ষিক। ২০১৪ সালে আরব বসন্তের প্রাক্কালে এই সংবিধান গৃহীত হয়। সেদেশের মানবাধিকার গ্রুপগুলোও ওই আইন বাতিলের দাবিতে প্রচার চালায়।
 
প্রেসিডেন্ট এসেবসি ওই আইন পরিবর্তনে একটি কমিশন গঠন করেন যার প্রধান করা হয় এক নারীকে। এরপর বিভিন্ন প্রক্রিয়া ও আনুষ্ঠানিকতা সম্পন্নের পর নতুন এই আইন প্রণয়ন করা হলো। এখন তিউনিসীয় নারীরা তাদের পছন্দে স্বামী গ্রহণ এবং সরকারি দপ্তরে গিয়ে বিয়ের নিবন্ধন করতে পারবেন।

printer
সর্বশেষ সংবাদ
আন্তর্জাতিক পাতার আরো খবর

Developed by orangebd