ঢাকা : মঙ্গলবার, ২১ নভেম্বর ২০১৭

সংবাদ শিরোনাম :

  • সরকার নদীখননের কার্যক্রম হাতে নিয়েছে : নৌ-পরিবহনমন্ত্রী          দক্ষতা-জ্ঞান-প্রযুক্তির মাধ্যমেই সক্ষমতা অর্জন সম্ভব : পররাষ্ট্রমন্ত্রী           বাংলাদেশে এ বছর রেকর্ড পরিমাণ প্রবৃদ্ধি হয়েছে          জাতীয় নির্বাচনে সেনা মোতায়েনের সিদ্ধান্ত হয়নি : সিইসি          আ.লীগ সরকার ছাড়া কোনো দলই এত পুরস্কার পায়নি : প্রধানমন্ত্রী          মোবাইল ব্যাংকিং সেবার চার্জ কমে আসবে : অর্থমন্ত্রী          রোহিঙ্গাদের ফিরিয়ে নিতে সু চিকে জাতিসংঘের অনুরোধ
printer
প্রকাশ : ০১ নভেম্বর, ২০১৭ ১১:০৫:২২আপডেট : ০১ নভেম্বর, ২০১৭ ১১:৩০:৩৯
ফের চট্টগ্রাম ওয়াসা’র এমডি হলেন প্রকৌশলী এ কে এম ফজলুল্লাহ
বিপ্লব বিজয়


 

অনেক জল্পনা কল্পনার অবসান ঘটিয়ে আবারো চট্টগ্রাম পানি সরবরাহ ও পয়ঃনিস্কাশন কর্তৃপক্ষ (ওয়াসা )- এর  ম্যানেজিং ডিরেক্টর পদে পূণর্নিয়োগ পেলেন প্রকৌশলী এ কে এম ফজলুল্লাহ । ৩১ অক্টোবর (মঙ্গলবার) চুক্তিভিত্তিক আগামী ৩ বছরের জন্য এই আদেশ জারি করে সরকারের জন প্রশাসন মন্ত্রণালয়।
 
ওয়াসা সুত্রে জানা যায়, প্রকৌশলী এ কে এম ফজলুল্লাহ দীর্ঘদিন চট্টগ্রাম ওয়াসা’র বিভিন্ন গুরুত্বপূর্ণ পদে দায়িত্ব পালন করে অবসরে যাওয়ার পরে ২০০৯ সালে বর্তমান সরকার চেয়ারম্যান পদে চুক্তিভিত্তিক নিয়োগ দেয় । পরবর্তীতে ২০১১ সালে ম্যানেজিং ডিরেক্টর পদে তাকে পূণর্নিয়োগ দেওয়া হয় । সূত্রে জানা গেছে, বিগত বছরে ম্যানেজিং ডিরেক্টর পদে প্রকৌশলী এ কে এম ফজলুল্লাহ দায়িত্ব পালনকালে চট্টগ্রাম ওয়াসায় ২ হাজার কোটি টাকার ৬ টি প্রকল্প বাস্তবায়ন করা হয়। এছাড়াও আরো সাড়ে ৭ হাজার কোটি টাকার একাধিক প্রকল্প বাস্তবায়ানাধীন রয়েছে । সম্পন্ন হওয়া প্রকল্পের মধ্যে অন্যতম হচ্ছে, সাড়ে ১৮ কোটি টাকার কর্ণফুলী পানি সরবরাহ প্রকল্প । এই প্রকল্পের আওতায় নির্মিত হয় বাংলাদেশের একক বৃহত্তর পানি শোধনাগার প্রকল্প শেখ হাসিনা পানি সরবরাহ প্রকল্প । প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা নিজে এসে এই প্রকল্পটি উদ্বোধন করেন চলতি বছরের প্রথমার্ধে । এছাড়া কর্ণফুলী পানি সরবরাহ প্রকল্পের আওতায় ছিল পানি ট্রান্সমিশন ও ডিস্ট্রিবিউশনে বিভিন্ন সুবিধাদি নির্মাণ।ফের চট্টগ্রাম ওয়াসা’র এমডি হলেন প্রকৌশলী এ কে এম ফজলুল্লাহ
 
চট্টগ্রাম ওয়াসা’র প্রকৌশল বিভাগের ভাষ্য মতে, কর্ণফুলী পানি সরবরাহ প্রকল্প নির্মাণ চট্টগ্রাম ওয়াসার জন্য সবচেয়ে বড় চ্যালেঞ্জ ছিলো । কারণ যখনি প্রকল্প বাস্তবায়ন শুরু হয় তখনি স্থানীয় ও প্রশাসনিক নানা বাধার কারণে নির্মাণ কাজ মুখ থুবড়ে পড়েছিলো । এর পরপরই শুরু হয়েছিলো বিরোধীদলের সরকার পতনের আন্দোলন ও টানা ৩ মাসের অবরোধ। এরপরে সংগঠিত হয়েছিলো গুলশানের হলি আটিজান হত্যাকাণ্ড । ওই দুঃসময়ে তৎকালীন ওয়াসা’র ম্যানেজিং ডিরেক্টর  জনাব ফজলুল্লাহ অগ্রভাগে থেকে প্রকল্প নির্মাণে নেতৃত্ব দিয়েছিলেন । এছাড়াও স্থানীয়ভাবে নানা বাধা ছিলো প্রকল্প নির্মাণে । অবশেষে নানা বাধা বিপত্তি অতিক্রম করে আলোর মুখ দেখে কর্নফুলী পানি সরবরাহ প্রকল্প। এছাড়াও অচিরেই চালু হবে আরেকটি বহুল প্রতীক্ষিত প্রকল্প মদুনাঘাপ প্রকল্পটি। একই সাথে চলমান রয়েছে আরেকটি বৃহৎ প্রকল্প কর্ণফুলী ফেস-২। সাড়ে ৪ হাজার কোটি টাকা ব্যয়ে এই প্রকল্পটি আগামী ২০২১ সাল নাগাদ নির্মাণ কাজ সম্পন্ন হলে নগরীর শতভাগ পানির চাহিদা মেঠানো সম্ভব হবে বলে অভিজ্ঞমহল মনে করেন।
 
চট্টগ্রাম ওয়াসা’র ম্যানেজিং ডিরেক্টর পদে চুক্তিভিত্তিক পূণর্নিয়োগ পাওয়া প্রসঙ্গে প্রকৌশলী এ কে এম ফজলুল্লাহ বলেন, চট্টগ্রামে পানি সমস্যা সমাধানে আমাকে আবারো দায়িত্ব দেওয়ার জন্য মাননীয় প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনাকে ধন্যবাদ জানাই । আমি নির্দিধায় বলতে চাই, আমার উপর অর্পিত দায়িত্ব পালনে আমি সর্বদা সচেষ্ট থাকবো । তিনি বলেন,  আগামীতে চট্টগ্রামের সুয়ারেজের কাজগুলো সম্পন্নের পাশাপাশি আরো যেসব ওয়াসার প্রকল্প বাস্তবায়াধীন রয়েছে; সেই সব শেষ করার চেষ্টা করবো। এইসব প্রকল্পের কাজ শেষ হলে আগামী ২০৩০ সাল নাগাদ চট্টগ্রাম মহানগরীতে পানির কোনো সমস্যা থাকবে না ।

printer
সর্বশেষ সংবাদ
জাতীয় পাতার আরো খবর

Developed by orangebd