ঢাকা : শুক্রবার, ১৫ ডিসেম্বর ২০১৭

সংবাদ শিরোনাম :

  • আ.লীগকে হারানোর মতো দল বাংলাদেশে নেই : জয়          ইরানে ৬.২ মাত্রার ভূমিকম্প          সরকার নদীখননের কার্যক্রম হাতে নিয়েছে : নৌ-পরিবহনমন্ত্রী          দক্ষতা-জ্ঞান-প্রযুক্তির মাধ্যমেই সক্ষমতা অর্জন সম্ভব : পররাষ্ট্রমন্ত্রী           বাংলাদেশে এ বছর রেকর্ড পরিমাণ প্রবৃদ্ধি হয়েছে
printer
প্রকাশ : ১৫ নভেম্বর, ২০১৭ ১৭:৪২:১৩আপডেট : ১৫ নভেম্বর, ২০১৭ ১৭:৪২:৪১
আক্কেল দাঁত কি এবং কেন
টাইমওয়াচ ডেস্ক


 

 
 
আক্কেল দাঁত নামটির সাথে ছেলে বুড়ো কমবেশী সবাই পরিচিত। আমাদের সমাজে আক্কেল দাঁত না উঠলে অনেক সময় বেআক্কেল বলা হয়ে থাকে। আক্কেল দাঁতের সাথে আক্কেল জ্ঞান হওয়ার কি সম্পর্ক সে প্রশ্ন মনে আসতেই পারে। আক্কেল দাঁতের ইংরেজি নাম Wisdom teeth। সাধারণত ১৭ থেকে ২৪ বছর বয়সে আক্কেল দাঁত উঠে থাকে। এই বয়সে একজন মানুষ তারুণ্যের ছেলেমানুষি ছেড়ে দায়িত্ববান ব্যক্তিতে পরিনত হন। এ কারনেই সবদেশে সকল সভ্যতায় আক্কেল দাঁত উঠাটাকে পরিপূর্ণ মানুষে প্রদার্পনের প্রতীক হিসেবে ধরা হয়।
 
3rd molar বা আক্কেল দাতঁ বা wisdom teeth হচ্ছে উপরের ও নিচের মাড়ির সবচেয়ে পেছনের পেষণ দাঁত (3rd Molar)। সাধারণত উপর ও নিচের পাটির ( jaw) শেষদিকে ডান ও বাম পাশে মোট ২ টি করে ৪ টি আক্কেল দাঁত থাকে। অনেকের সবগুলো আক্কেল দাঁত না ও উঠতে পারে । এগুলো সাধারনত ১৭ থেকে ২৪ বছর বয়সের মধ্যে উঠে থাকে। সুস্থ্য ও স্বাভাবিক আবস্থানের আক্কেল দাঁত কোন সমস্যা তৈরী করে না। কিন্তু যদি দাঁতটি ওঠার জন্য পর্যাপ্ত জায়গা না থাকে বা দাঁতটির আকৃতি বা অবস্থানের জন্য অবরুদ্ধ (Impacted) হয়ে থাকে; তবে বিভিন্ন সমস্যা ও উপসর্গ দেখা দিতে পারে। সহজ ভাষায় কোন দাঁত যখন তার পাটির (jaw) অন্যান্য দাঁতের সাথে সমন্বয় না রেখে কোন কারনে কম উদ্গত ( eruption ) হয় তখন তাকে আমরা impacted বা অবরুদ্ধ দাঁত বলি । ( এটি infra erupted বা কম উত্থিত দাঁত নয় )।
 
আংশিক উদ্গত এই অবরুদ্ধ দাঁতের ফলে নিম্নোক্ত সমস্যা দেখা দেয় । যেমনঃ ১। আংশিক উদগত আক্কেল দাঁতের উপরের মাড়ির ত্বকে খাবার সময় কামড় লাগতে পারে, ফলে ব্যাথা হতে পারে। ২। তাছাড়া আক্কেল দাঁতের মাড়ির ত্বকের ভেতর খাদ্যকণা আটকে থাকতে পারে এবং তা থেকে জীবানু সংক্রমণ (Infection) হতে পারে। এমন অবস্থা কে বলা হয় Pericoronitis ( Inflammation of pericoronal tissue); যা থেকে তীব্র ব্যাথা, মুখ হা করতে সমস্যা, জ্বর ইত্যাদি অসুবিধা হতে পারে। ৩. Pericoronitis -এ দীর্ঘদিন ভুগলে ধীরে ধীরে মাড়ি ফুলে যেতে পারে এবং পুঁজ সৃষ্টি হবে যা থেকে মুখে দুর্গন্ধ হবে। ৪। আক্কেল দাঁতের abnormal অবস্থান এর কারনে এর সামনের দাঁতটি ও ক্ষতিগ্রস্থ হতে পারে । চিকিৎসাঃ দাঁতের যে কোন সমস্যার ক্ষেত্রে শুরুতেই একটি এক্স-রে করানো প্রয়োজন। এক্স-রে তে দাঁতটির আকৃতি ও অবস্থান ভালোভাবে দেখে চিকিৎসা পদ্ধতি ঠিক করা হয়। যদি দাঁতটির অবস্থান ও উঠার পথ ঠিক থাকে এবং উঠার জন্য পর্যাপ্ত জায়গা থাকে তবে দাঁতটি তোলার দরকার হয় না। এক্ষেত্রে হালকা গরম লবণ-পানি দিয়ে কুলকুচি ও সাধারন ব্যাথার ঔষধই যথেষ্ট। তবুও দাঁতটি উঠতে সমস্যা হলে বা মাড়িতে ইনফেকশন (Pericoronitis) হলে, আক্কেল দাঁতের উপরের মাড়ির ত্বক একটি ছোট অপারেশন (Operculectomy) -এর মাধ্যমে কেটে দেয়া হয়। সেই সাথে ইনফেকশন রোধের জন্য এন্টিবায়োটিক ও ব্যাথানাশক ঔষধ গ্রহণ করতে হয়।

printer
সর্বশেষ সংবাদ
স্বাস্থ্য ও জীবন পাতার আরো খবর

Developed by orangebd