ঢাকা : শুক্রবার, ১৫ ডিসেম্বর ২০১৭

সংবাদ শিরোনাম :

  • আ.লীগকে হারানোর মতো দল বাংলাদেশে নেই : জয়          ইরানে ৬.২ মাত্রার ভূমিকম্প          সরকার নদীখননের কার্যক্রম হাতে নিয়েছে : নৌ-পরিবহনমন্ত্রী          দক্ষতা-জ্ঞান-প্রযুক্তির মাধ্যমেই সক্ষমতা অর্জন সম্ভব : পররাষ্ট্রমন্ত্রী           বাংলাদেশে এ বছর রেকর্ড পরিমাণ প্রবৃদ্ধি হয়েছে
printer
প্রকাশ : ০৭ ডিসেম্বর, ২০১৭ ১৭:২৬:০০
বিজয় দিবসে নতুন ঘড় পাচ্ছে ২২২ পরিবার
তোফায়েল হোসেন জাকির, গাইবান্ধা


 


প্রধানমন্ত্রীর কার্যালয়ের অগ্রাধিকার ভিত্তিক কর্মসূচী সবার জন্য বাসস্থান (নিজ জমিতে গৃহ নির্মাণ) উপ-খাতের আওতায় ‘যার জমি আছে ঘড় নাই’ প্রকল্প থেকে গাইবান্ধার সাদুল্যাপুর উপজেলার ২২২ হতদরিদ্র পরিবার বিনামূল্যে ঘড় পাচ্ছেন। এবারের মহান বিজয় দিবসে এসব ঘড়ে উঠবেন হতদরিদ্র পরিবারগুলো। প্রধানমন্ত্রীর প্রতিশ্রুত বিনামূল্যে ঘড় পাওয়ায় এই পরবিারগুলোতে এখন আনন্দের বইছে বন্যা ।
উপজেলা সহকারী কমিশনারের কার্যালয় থেকে জানা গেছে, প্রধানমন্ত্রীর কার্যালয় থেকে বরাদ্দ দেওয়া ২ কোটি ২২ লক্ষ টাকা ব্যায়ে সাদুল্যাপুর উপজেলার ১১ ইউনিয়নে ২২২ টি ঘড় নির্মাণ করা হচ্ছে। যাদের জমি আছে কিন্তু ঘড় নেই এমন পরিবারকে এসব ঘড় তৈরী করে দেওয়া হচ্ছে। যেসব হতদরিদ্র পরিবার ঘড় বরাদ্দ পাবেন তাদের তালিকা আগেই প্রধানমন্ত্রীর কার্যালয় থেকে অনুমোদন হয়ে এসেছে। তাই যারা ঘড় বরাদ্দ পাচ্ছেন তারা নিজেরাই দেখেশুনে ঘড়ের কাজ বুঝে নিচ্ছেন।
ঘড় নির্মাণ কমিটির সদস্য সচিব ও উপজেলা প্রকল্প বাস্তবায়ন কর্মকর্তা মনিরুজ্জামান মনির বলেন সরকারী নির্দেশনা মোতাবেক সাদুল্যাপুর উপজেলার ২২২ হতদরিদ্র পরিবারের জন্য নতুন ঘড় নির্মাণ করা হচ্ছে। এই কাজ প্রায় শেষের পথে। ঘড় নির্মাণের ক্ষেত্রে ডিজাইন মোতাবেক কাজ করতে গিয়ে কোন সমস্যা হলে তাক্ষণাত উর্ধতন কর্তৃপক্ষের নির্দেশ নিয়ে সেইকাজ বাস্তবায়ন করা হয়েছে। এরপরও প্রতিটি ঘড় একাধিকবার চেক করে পরিবারগুলোর কাছে হস্তান্তর করা হবে।
উপজেলা আওয়ামীলীগের সহসভাপতি প্রভাষক আবদুল জলিল সরকার বলেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা হতদরিদ্র মানুষকে দেওয়া তাঁর প্রতিশ্রুতি রক্ষা করেছেন। তাঁর কল্যানে হতদরিদ্র পরিবারের মানুষ বিনামুল্যে ঘড় পাচ্ছে। স্থানীয় প্রশাসন সরকারী নির্দেশনা মোতাবেক ঘড়গুলো নির্মাণ করছেন।
ঘড় নির্মাণ কমিটির সদস্য ও উপজেলার বনগ্রাম ইউনিয়নের চেয়ারম্যান শাহীন সরকার বলেন এই উপজেলার প্রথম নারী উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা রহিমা খাতুন নিজেই তদারকি করে সুন্দর ভাবে কাজ আদায় করে নিচ্ছেন। তাই সব কাজ সুন্দর ভাবে সম্পন্ন হচ্ছে।
প্রধানমন্ত্রীর দেওয়া ঘড় বরাদ্দ পাওয়া উপজেলার মান্দুয়ারপাড়া গ্রামের বিলকিস বেওয়া বলেন, শেখ হাসিনার জন্যি (জন্য) হামরা (আমরা) বাকী জেবন (জীবন) পাকা ঘড়োত থাকবার পামো (পাবো)। আল্লাহ জেন (যেন) শেখ হাসিনা সুস্থ্য আকেন (রাখেন)। গরীব মাইনষের (মানুষের) উপকার করিয়া সরকার ভালো কাম করিল (করলো)।
উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা রহিমা খাতুন বলেন প্রধানমন্ত্রীর কার্যালয়ের অগ্রাধিকার ভিত্তিক কর্মসূচীর ঘড় নির্মাণ যথা নিয়মে সম্পন্ন করা হয়েছে। মহান বিজয় দিবসে নতুন ঘড়ে ওঠা শুরু করবে পরিবারগুলো। স্থানীয় সংসদ সদস্য ডাঃ মোঃ ইউনুস আলী সরকার উপস্থিত থেকে ওইসব পরিবারের কাছে ঘড়গুলো হস্তান্তর করবেন।
গাইবান্ধা-৩ (সাদুল্যাপুর-পলাশবাড়ী) আসনের জাতীয় সংসদ সদস্য ডাঃ মোঃ ইউনুস আলী সরকার বলেন মাননীয় প্রধামন্ত্রী জননেত্রী শেখ হাসিনার নেতৃত্বে দেশের সু-সম উন্নয়ন হচ্ছে। আর সেই উন্নয়নের ধারাবাহিকতায় সফল ভাবে সাদুল্যাপুর উপজেলার ২২২ পরিবারের ঘড় তৈরী করে দেওয়া হয়েছে। হতদরিদ্র পরিবারকে দেওয়া ঘড় গুলো দেশের জন্য একটি মাইল ফলক।

printer
সর্বশেষ সংবাদ
সারা দেশ পাতার আরো খবর

Developed by orangebd