ঢাকা : শনিবার, ২১ জুলাই ২০১৮

সংবাদ শিরোনাম :

  • ২০১৮-১৯ অর্থবছরের বাজেট পাস          বাংলাদেশে মানুষের গড় আয়ু ৭২ বছর          মুম্বাইয়ে বিমান বিধ্বস্তে নিহত ৫          প্রস্তাবিত বাজেট সর্বোচ্চ জনকল্যাণমুখী : পরিকল্পনামন্ত্রী          গণতন্ত্র এখন সুরক্ষিত : প্রধানমন্ত্রী          নারীবান্ধব পরিবেশ সৃষ্টিতে সকলকে সহযোগিতার আহবান স্পিকারের
printer
প্রকাশ : ১২ ডিসেম্বর, ২০১৭ ১৯:২৭:৩৬
জেরুজালেম রক্ষায় ঐক্যের আহ্বান এরশাদের
টাইমওয়াচ রিপোর্ট


 

মুসলমানদের পবিত্র নগরী জেরুজালেমকে রক্ষায় ইসরায়েলি আগ্রাসনের বিরুদ্ধে মুসলিম উম্মাহকে ঐক্যবদ্ধ প্রতিরোধ গড়ে তোলার আহ্বান জানিয়েছেন জাতীয় পার্টির চেয়ারম্যান হুসেইন মুহম্মদ এরশাদ।
 
১২ ডিসেম্বর মঙ্গলবার দুপুরে রাজধানী কাকরাইলে পার্টির কেন্দ্রীয় কার্যালয়ের সামনে এক বিক্ষোভ সমাবেশে তিনি এ আহ্বান জানান।
 
জেরুজালেমকে ইসরায়েলের রাজধানী হিসেবের স্বীকৃতির প্রতিবাদে এ কর্মসূচির আয়োজন করে জাতীয় পার্টি।
 
হুসেইন মুহম্মদ এরশাদ বলেন, জেরুজালেমকে ইসরায়েলের রাজধানী হিসেবে ট্রাম্পের স্বীকৃতি যুক্তরাষ্ট্রের একতরফা সিদ্ধান্ত। এই সিদ্ধান্ত বাংলাদেশের জনগণ কখনো মেনে নেবে না। এই সিদ্ধান্তের কারণে ট্রাম্প ও ইসরায়েলকে ভয়াবহ পরিণতি ভোগ করতে হবে। জেরুজালেম রক্ষায় ইসরায়েলের বিরুদ্ধে মুসলিম উম্মাহকে সম্মিলিতভাবে প্রতিরোধ গড়ে তুলতে হবে।
 
তিনি আরো বলেন, জেরুজালেম একটি পূণ্য স্থান। মুসলমানদের প্রথম কেবলা বায়তুল মোকাদ্দাস এই জেরুজালেমে অবস্থিত। এখান থেকেই আমাদের মহানবী হজরত মুহাম্মদ (সা.) মহান আল্লাহর সান্নিধ্য লাভ করতে পবিত্র মিরাজে গমন করেন। এটা মুসলমানদের তীর্থ স্থান। পবিত্র নগরীকে ইসরায়েলের রাজধানী করার ঘোষণা মূলত একে অপবিত্র করার শামিল। তাই এই পবিত্র নগরীকে মুসলমানরা যেকোনো মূল্যে রক্ষা করবে।’
 
সমাবেশ শেষে পার্টির মহাসচিব এ বি এম রুহুল আমিন হাওলাদারের নেতৃত্বে একটি বিক্ষোভ মিছিল বের করা হয়। কাকরাইল থেকে বিজয়নগর হয়ে মৎস্য ভবনে গিয়ে সংক্ষিপ্ত সমাবেশের মধ্যে দিয়ে শেষ হয় জাতীয় পার্টির বিক্ষোভ কর্মসূচি।
 
জাপা মহাসচিব এ বি এম রুহুল আমিন হাওলাদার বলেন, আমাদের পবিত্র নগরী জেরুজালেম নিয়ে রাজনীতি করার সুযোগ নেই। এটি আমাদের, মুসলমানদেরই সম্পদ। এই পবিত্র নগরী নিয়ে খেলা করলে ট্রাম্প ও ইসরায়েলকে ভয়াবহ পরিণতি ভোগ করতে হবে।’
 
জেরুজালেম ইস্যুতে কর্মসূচিতে যোগ দেওয়ায় নেতা-কর্মীদের ধন্যবাদ জানান তিনি।
 
সমাবেশে উপস্থিত ছিলেন দলের কো-চেয়ারম্যান জি এম কাদের, প্রেসিডিয়াম সদস্য এম এম সাত্তার, কাজী ফিরোজ রশীদ এমপি, অধ্যাপক দেলোয়ার হোসেন খান, সৈয়দ আবু হোসেন বাবলা এমপি, সাহিদুর রহমান টেপা, মুজিবুল হক চুন্নু এমপি, মশিউর রহমান রাঙ্গা এমপি, এস এম ফয়সল চিশতী, মীর আবদুস সবুর আসুদ, অবসরপ্রাপ্ত মেজর খালেদ আখতার, রেজাউল ইসলাম, শফিকুল ইসলাম সেন্টু, মো. নোমান এমপি, কাজী মামুনুর রশিদ, নাজমা আক্তার, সাবেক সচিব এম এম নিয়াজ উদ্দিন মিয়া, জোটের ইসলামী ফ্রন্টের নেতা মাওলানা স উ ম আব্দুস সামাদ, অধ্যাপক এম এম মোমেন, মাওলানা মাসুদ হোসেইন আল কাদেরি, ইসলামী মহাজোটের চেয়ারম্যান আবু নাছের ওয়াহেদ ফারুক, জোটের সেকেন্দার আলী মনি, জাপার ভাইস চেয়ারম্যান ইকবাল হোসেন রাজু, জহিরুল ইসলাম জহির, আরিফুর রহমান খান, আলমগীর সিকদার লোটন, দিদারুল আলম দিদার, সরদার শাহজাহান, ইয়াহইয়া চৌধুরী এমপি, আশরাফ সিদ্দিকী, জহিরুল আলম রুবেল, মহিলা পার্টির সেক্রেটারি অনন্যা হোসেন মৌসুমী, সুলতান মাহমুদ, সুজন দে, শ্রমিক পার্টির আসরাফুজ্জামান খান, ছাত্রসমাজের মিজানুর রহমান মিরু, শারমিন পারভীন লিজা, সৈয়দা পারভীন তারেক, ডা. সেলিমা খান, মনোয়ারা তাহের মানু, দ্বীন ইসলাম, আজিজুল হুদা সুমন প্রমুখ।

printer
সর্বশেষ সংবাদ
রাজনীতি পাতার আরো খবর

Developed by orangebd