ঢাকা : শনিবার, ২২ সেপ্টেম্বর ২০১৮

সংবাদ শিরোনাম :

  • দুই দেশের সম্পর্ক আরও এগিয়ে যাক : মমতা           কারও মুখের দিকে তাকিয়ে মনোনয়ন দেয়া হবে না : প্রধানমন্ত্রী          ২২তম অধিবেশন চলবে ২০ সেপ্টেম্বর পর্যন্ত          জীবনমান উন্নয়নের শিক্ষাগ্রহণ করতে হবে : প্রধানমন্ত্রী          দেশের উন্নয়নে বঙ্গবন্ধু স্যাটেলাইট গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা রাখবে          বঙ্গবন্ধুর নাম কেউ মুছতে পারবে না : জয়
printer
প্রকাশ : ১৮ ডিসেম্বর, ২০১৭ ১৮:৩১:৪৮
নাটোরে প্রশ্নপত্র ফাঁস, ০২ স্কুলের পরীক্ষা স্থগিত
নাটোর সংবাদদাতা


 


নাটোর সদর উপজেলার আগদিঘা সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের বার্ষিক পরীক্ষার প্রশ্নপত্র ফাঁসের কারণে ১০২ স্কুলের পরীক্ষা স্থগিত করা হয়েছে। সোমবার (১৮ ডিসেম্বর) সকাল ১০টায় ওই স্কুলে পরীক্ষা চলাকালীন সময়ে প্রথম ও চতুর্থ শ্রেণীর প্রশ্নপত্র ফাঁসের ঘটনা ঘটে। এতে এলাকাবাসী, শিক্ষার্থী ও অভিভাবক বিক্ষুব্ধ হয়ে ওঠলে এক পর্যায়ে এ নিয়ে উত্তেজনা শুরু হয়। পরে খবর পেয়ে পুলিশ ঘটনাস্থলে গিয়ে পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণ করে।
এ ঘটনায় নাটোর সদর উপজেলার ১০২টি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের পরীক্ষা স্থগিত করেছে জেলা প্রশাসন। একই সঙ্গে ঘটনা তদন্তে নাটোর সদর উপজেলা সহকারী কমিশনার (ভূমি) শামিম ভূঁইয়া কে প্রধান করে ৩ সদস্য বিশিষ্ট তদন্ত কমিটি গঠন করা হয়েছে।
তদন্ত কমিটির অপর সদস্যরা হলেন- নাটোর জেলা প্রাথমিক শিক্ষা কর্মকর্তা (ভারপ্রাপ্ত) একেএম আনোয়ার হোসেন ও দিঘাপতিয়া এম কে কলেজের অধ্যক্ষ আব্দুর রাজ্জাক। ওই কমিটিকে তিন কার্যদিবসের মধ্যে প্রতিবেদন দিতে বলা হয়েছে।
নাটোর থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) সিকদার মশিউর রহমান জানান, সোমবার নাটোর সদর উপজেলার ১০২টি প্রাথমিক বিদ্যালয়ে গণিত পরীক্ষার দিন ধার্য ছিল। এতে প্রায় ৪ হাজার পরীক্ষার্থী অংশ নিয়েছিল। উপজেলার আগদিঘা সরকারী প্রাথমিক বিদ্যালয়ের পরীক্ষা শুরু হওয়ার পর হাতে লেখা একটি প্রশ্নপত্র বাইরে পাওয়া যায়। পরীক্ষার প্রশ্নপত্রের সঙ্গে বাহিরের প্রশ্নপত্রের হুবহু মিলও পাওয়া যায়। এতে স্থানীয় লোকজন বিক্ষুব্ধ হয়ে ওঠে। পরে খবর পেয়ে ঘটনাস্থলে পুলিশ পাঠিয়ে পরিস্থিতি শান্ত করা হয়। এছাড়া জেলা প্রশাসনের নির্দেশে পরীক্ষাটি স্থগিত করা হয়। তবে এ ঘটনায় এখন পর্যন্ত কাউকে আটক করা যায়নি।
নাটোরের জেলা প্রশাসক শাহিনা খাতুন ও সদর উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা জেসমিন আক্তার বানু জানান, এ ঘটনার সঙ্গে যারাই জড়িত থাকুক তাদের বিরুদ্ধে কঠোর ব্যবস্থা নেওয়া হবে। তদন্ত কমিটির প্রতিবেদন অনুযায়ী পরবর্তী ব্যবস্থা নেওয়া হবে।
নাটোর জেলা প্রাথমিক শিক্ষা কর্মকর্তা (ভারপ্রাপ্ত) ও তদন্ত কমিটির সদস্য একেএম আনোয়ার হোসেন জানান, আগামী ২১ ডিসেম্বর স্থগিত হওয়া পরীক্ষাটি নেয়া হবে।

printer
সর্বশেষ সংবাদ
শিক্ষা পাতার আরো খবর

Developed by orangebd