ঢাকা : বৃহস্পতিবার, ১৮ অক্টোবর ২০১৮

সংবাদ শিরোনাম :

  • দুই দেশের সম্পর্ক আরও এগিয়ে যাক : মমতা           কারও মুখের দিকে তাকিয়ে মনোনয়ন দেয়া হবে না : প্রধানমন্ত্রী          ২২তম অধিবেশন চলবে ২০ সেপ্টেম্বর পর্যন্ত          জীবনমান উন্নয়নের শিক্ষাগ্রহণ করতে হবে : প্রধানমন্ত্রী          দেশের উন্নয়নে বঙ্গবন্ধু স্যাটেলাইট গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা রাখবে          বঙ্গবন্ধুর নাম কেউ মুছতে পারবে না : জয়
printer
প্রকাশ : ২৮ ফেব্রুয়ারি, ২০১৮ ১৬:৩০:৩৬
নওগাঁয় ‘জাতিসংঘে বাংলা চাই’ অনলাইন ভোটিং ক্যাম্পেইনের উদ্বোধন
মাহবুবুজ্জামান সেতু, নওগাঁ


 


জাতিসংঘে ৭ম দাপ্তরিক ভাষা হোক বাংলা এ দাবিতে নওগাঁয় অনলাইন ভোটিং ক্যাম্পেইনের আনুষ্ঠানিক উদ্বোধন করা হয়েছে। প্রধান অতিথি হিসেবে ভোটিং কার্যক্রমের উদ্বোধন করেন, নওগাঁ সরকারি কলেজের অধ্যক্ষ প্রফেসর অধ্যক্ষ এএইচএমএ ছালেক।
নওগাঁ সরকারি কলেজ ক্যাম্পাসে শহীদ মিনার চত্বরে এ উপলক্ষে মঙ্গলবার এক আলোচনা সভা অনুষ্ঠিত হয়। পরে এক শোভাযাত্রা কলেজের বিভিন্ন চত্বর প্রদিক্ষণ করে। দেশের শীর্ষস্থানীয় বহুজাতিক শিল্পপ্রতিষ্ঠান প্রাণ গ্রুপের সহযোগিতায় ও অনলাইন নিউজ পোর্টাল জাগোনিউজ২৪.ডটকম-এর আয়োজনে দেশব্যাপী চলছে ‘জাতিসংঘে বাংলা চাই’ অনলাইন ভোটিং কার্যক্রম।
এসময় নওগাঁ প্রেস ক্লাবের সভাপতি কায়েস উদ্দিনের সভাপতিত্বে বক্তব্য রাখেন, উপাধক্ষ্য ড. মোস্তাফিজার রহমান, বাংলা বিভাগের বিভাগীয় প্রধান প্রফেসর ড. মো: বেল্লাল হোসেন, সহযোগী অধ্যাপক ড. মোহাম্মদ সামসুল আলম, প্রভাষক রবিউল আওয়াল, প্রেসক্লাবের সাবেক সভাপতি শাহজাহান আলী, জাগোনিউজের জেলা প্রতিনিধি আব্বাস আলী।
এসময় আরো উপস্থিত ছিলেন, বৈশাখী টেলিভিশনের প্রতিনিধি এবাদুল হক, এশিয়ান টেলিভিশনের প্রতিনিধি লোকমান আলী, বাংলা টিভির প্রতিনিধি আশরাফুল নয়ন, শেয়ার বীজের প্রতিনিধি কামরুল হাসান চৌধূরী, তৃতীয় মাত্রা প্রতিনিধি আব্দুল মান্নান, ফারমান হোসেন, রাসেল রায়হান, রুহুল আমিন, বরেন্দ্র রেডিও প্রোগ্রাম প্রডিউসার রিফাত হোসাইন সবুজসহ কলেজের শিক্ষার্থীরা।
বক্তারা বলেন, ১৯৫২ সালের ভাষা আন্দোলনের জন্য সংগ্রাম শুরু হয়েছিল। আর ১৯৭১ সালে ৩০ লাখ বাঙ্গালীর জীবনের বিনিময়ে স্বাধীনতা অর্জিত হয়েছে। আমরা মায়ের ভাষায় কথা বলতে পারছি। নির্মল নিশ্বাস বুক ভরে নিতে পারছি। ১৯৯৯ সালে আন্তর্জাতিক মাতৃভাষা দিবস হিসেবে স্বীকৃতি দেয়া হয়েছে। কিন্তু দুঃখের বিষয় আজো বাংলা ভাষা জাতিসংঘের দাপ্তরিক ভাষা হিসেবে স্বীকৃতি পায়নি।
প্রধান অতিথি অধ্যক্ষ এএইচএমএ ছালেক বলেন, ভাষার জন্য আমাদের দেশের মানুষ প্রাণ দিয়েছিল। এতদিন আন্তজার্তিক মাতৃভাষা দিবস আমরা পালন করেছি। এখন সারা পৃথিবীতে পালিত হয়। তাই জাতিসংঘের ৭ম দাপ্তরিক ভাষা বাংলা করা হোক। এটা আমাদের দাবি। জাগোনিউজ২৪ডটকম যে উদ্যোগ নিয়েছে তা অত্যন্ত প্রশংসনীয়। দেশপ্রেমে উদ্বুদ্ধ হয়ে এ দাবি বাস্ত বায়নের লক্ষে অনলাইনে ভোটিং কার্যক্রমে অংশগ্রহণের জন্য সব মহলের প্রতি তিনি আহ্বান জানান।
উপাধক্ষ্য ড. মোস্তাফিজার রহমান বলেন, যে ভাষার জন্য বাঙ্গলী জাতী প্রাণ দিয়েছিল সে জন্য আমরা গর্বীত। ভাষার অন্য কোন দেশে এমন নজির নেই। তাই জাতিসংঘের ৭ম দাপ্তরিক ভাষা বাংলা করা এটা আমাদের প্রাপ্য অধিকার বলে আমি মনে করি।
প্রফেসর ড. মো: বেল্লাল হোসেন বলেন, বিশ্বের প্রায় ৩০ কোটিরও বেশি মানুষ বাংলা ভাষায় কথা বলে। এ কারণে জাতিসংঘের ৭ম দাপ্তরিক ভাষা হোক বাংলা। আমরা চাই সব দাপ্তরিক ভাষা যেন বাংলা হয়। যেহেতু ৩০ কোটির বেশি মানুষ বাংলায় কথা বলে। সেহেতু আমার জাতিসংঘের ৭ম দাপ্তরিক ভাষা বাংলা হোক দাবী করতেই পারি। এ দাবি উঠুক সর্বত্র। বিশেষ করে বাংলা ভাষার দাবি আদায়ে তরুন প্রজন্মকে এগিয়ে আসতে হবে।
শিক্ষার্থী রিফাত হোসাইন সবুজ বলেন, ভাষার জন্য যে কোন জাতি প্রাণ দিতে পারে তা প্রমাণ করেছিল সালাম, রফিক, বরকত, জব্বারসহ নাম না জানা বাংলার দামাল ছেলেরা। আমরা গর্বিত এক জাতি। আমরা মনে করি  জাতিসংঘের উচিত বাংলা ভাষাকে  ৭ম দাপ্তরিক ভাষা বাংলা করে আমাদের দাবিকে বাস্তবায়ন করুক।
এছাড়া জাতিসংঘের দাপ্তরিক ভাষা বাংলা চালু করার দাবিতে অনলাইনে ভোট প্রদান করেন শিক্ষক-কর্মচারি, স্কুল-কলেজের শিক্ষার্থী, সাংবাদিক সহ বিভিন্ন শ্রেণিপেশার মানুষ।
দেশ ও দেশের বাহিরে যে কোন অবস্থানে থেকে যে কোনো ব্যক্তি তার নাম এবং ই-মেইল অথবা মোবাইল নম্বর ব্যবহার করে আবেদন (দাবির প্রতি একাত্মতা) করতে পারবেন।  আবেদন করার লিংক www.jagonews24.com/makebanglaofficial#

printer
সর্বশেষ সংবাদ
সারা দেশ পাতার আরো খবর

Developed by orangebd