ঢাকা : বুধবার, ১৯ সেপ্টেম্বর ২০১৮

সংবাদ শিরোনাম :

  • দুই দেশের সম্পর্ক আরও এগিয়ে যাক : মমতা           কারও মুখের দিকে তাকিয়ে মনোনয়ন দেয়া হবে না : প্রধানমন্ত্রী          ২২তম অধিবেশন চলবে ২০ সেপ্টেম্বর পর্যন্ত          জীবনমান উন্নয়নের শিক্ষাগ্রহণ করতে হবে : প্রধানমন্ত্রী          দেশের উন্নয়নে বঙ্গবন্ধু স্যাটেলাইট গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা রাখবে          বঙ্গবন্ধুর নাম কেউ মুছতে পারবে না : জয়
printer
প্রকাশ : ০৫ মার্চ, ২০১৮ ২৩:৫৬:৩৭
রাউজানে পৃথক ঘটনায় চুরি ও যুবলীগ নেতার ঘরে আগুন
এম বেলাল উদ্দিন, রাউজান (চট্টগ্রাম)


 


চট্টগ্রামের রাউজানে পৃথক ঘটনায় সাংবাদিকের ঘরে চুরি ও যুবলীগ নেতার ঘরে পেট্রল ঢেলে আগুন দেওয়ার ঘটনা ঘটেছে।  উপজেলার পূর্ব গুজরা ইউনিয়নের আয়শা বিবির বাড়ির মো. শফির পুত্র, জাতীয় দৈনিক আমাদের কন্ঠের চট্টগ্রাম ব্যুরো চীপ মো. আলাউদ্দিনের ঘরে রবিবার মধ্যরাতে চুরির ঘটনা ঘটে। অন্যদিকে গহিরা ইউনিয়নের ৪নং ওয়ার্ডের কানু মিয়াজির বাড়ীর মোহাম্মদ শফির বড় ছেলে ইউনিয়ন যুবলীগ সদস্য মুহাম্মদ আজমের বসত ঘরে পেট্রুল ঢেলে পুড়িয়ে দেওয়ার চেষ্টা করে। শনিবার রাত আড়াইটায় এ ঘটনা ঘটলেও গতকাল পর্যন্ত মামলা না হওয়ায় এ নিয়ে রহস্য সৃষ্টি হয়েছে। সরেজমিন গিয়ে আজম তার স্ত্রী শারমিন আকতার ও স্থানীয়দের সাথে কথা বলে জানাগেছে পাশে বেড়ার ও ছালের টিনের এ বসত ঘরে প্রতিদিনের মত স্বামী স্ত্রী ও তাদের একমাত্র ৬ বছর বয়সী ছেলে রবিউল হোসেনকে নিয়ে ঘুমিয়ে পড়ে। রাত ২টার দিকে ছেলেকে প¯্রাব করাতে উঠে মা শারমিন আক্তার আবার ঘুমিয়ে পড়ে। হঠাৎ দেখতে পায় তাদের শোয়ার খাট থেকে ঘরের দক্ষিন পাশে আগুন জ্বলে উঠছে। স্বামীসহ তারা দ্রুত চিৎকার দিয়ে ঘরের দরজা খুলতে চাই,কিন্তু বাইরে দরজায় তালা মারা। পরে চিৎকারে পাশের ঘরের সহ স্থানীয়রা এগিয়ে এসে তাদেরকে ঘর থেকে বের করে পানি দিয়ে আগুন নিভিয়ে পেলে। জানাগেছে ঘরের সামনের উঠানে পেট্রল সহ একটি বোতল পাওয়া যায়। আজমের চাচা মোঃ বশরের পাকা ঘরের সামনেও দরজায় দুবৃত্তরা তালা লাগিয়ে দেয়, যাতে কেউ ঘর থেকে বের হতে না পারে। স্থানীয় একজন নাইট গার্ড ননায় জানান, রাত দেড়টার দিকে দুই যুবক বাড়ীর সামনে রাস্তা দিয়ে গুড়াগুড়ি করছিল। দুবৃত্তরা ঘরে আগুন দেওয়ার আগে রাস্তার ৯টি বাল্পের তারের লাইন পুড়িয়ে দিয়ে অন্ধকার করে দেয়। যুবলীগ নেতা আজম জানান, আমি জানতে পেরেছি আমার এলাকার ৩নং ওয়ার্ডের কাসেম ফকির বাড়ীর বাসিন্দা  চট্টগ্রাম শহরের কাজীর দেউরি জামান হোটেলের মালিক মান্নান সওদাগরের ছেলে মিজানের নির্দেশে এলাকার ৪নং ওয়ার্ডের আফজাল বাপের বাড়ীর মাহবুবুল আলমের ছেলে মোরশেদ (২৩) ও ৩নং ওয়ার্ডের কাসেম ফকির বাড়ীর মৃত ছোলায়মানের পুত্র মোঃ খোরশেদ (২৪) আমার ঘরে আগুন দিয়েছে। তারা চেয়েছিল আমি আমার স্ত্রী ও আমার ছেলেকে পুড়িয়ে হত্যা করবে। সুত্র জানায় ঘটনাটি রাজনৈতিক গ্রুপিংয়ের কারনে ঘটেছে। জানাগেছে সন্দেহ ভাজন ৩ জনই কেন্দ্রীয় ছাত্রলীগের সাবেক সভাপতি মাহফুজুর হায়দার রোটনের গ্রুপের সক্রিয় কর্মী। আর যুবলীগ সদস্য আজম স্থানীয় এমপির অনুস্বারী। এদিকে সাংবাদিকে ঘরে চুরির ঘটনায়
নগদ দেড়লাখ টাকা, পাঁচ ভরি স্বর্ণালংকারসহ চারলাখ টাকার সম্পদ লুট হয়েছে। ওই গ্রামের আয়েশা বিবির বাড়ির হাজী মো. শফির কনিষ্ঠ ছেলে মো. আলাউদ্দিন জানান, আমি ও আমার দুবাইপ্রবাসী বড় ভাই সালাউদ্দিন টিটু চট্টগ্রাম শহরে বাসায় থাকি। বড় ভাই সালাউদ্দিন প্রবাস থেকে আসার পর গ্রামের বাড়িতে পাকাঘরের নির্মাণকাজ শুরু করেন। এ জন্য মা-বাবা মূল ঘরের পাশে কাচারি ঘরে থাকেন। সোমবার ভোর বেলায় মা উঠে দেখতে পান পূর্বের মূল ঘরের সবকিছু তছনছ হয়ে আছে। এরপর দেখতে পান ঘরের ষ্টীলের আলমিরা, জিনিসপত্র রাখার ট্রাঙ্ক ভাঙ্গা। পরে জানতে পারেন ঘরের নির্মাণকাজের জন্য রক্ষিত নগদ দেড়লাখ টাকা, ৫ ভরি স্বর্ণালংকার, কম্বল, ইলেকট্রনিক্্র সরঞ্জাম, বড় ভাই টিটুর ভিসা, পার্সপোটসহ প্রয়োজনীয় মালামাল লুট হয়ে গেছে। ক্ষতিগ্রস্থরা জানান, ঘরের সামনের দরজা কৌশলে খুলে ভিতরে প্রবেশ করে এই লুটতরাজ চালায় চোর। এ ঘটনায় রাউজান থানার ওসি কেপায়েত উল¬াহকে অবহিত করা হয়েছে। সোমবার দুপুরে ঘটনাস্থল পরিদর্শন করেছেন পূর্বগুজরা পুলিশ ফাঁড়ির দুই কর্মকর্তা  দুলাল হোসেন, মো. মোরশেদ।

printer
সর্বশেষ সংবাদ
সারা দেশ পাতার আরো খবর

Developed by orangebd