ঢাকা : শুক্রবার, ২০ সেপ্টেম্বর ২০১৯

সংবাদ শিরোনাম :

  • পবিত্র আশুরা ১০ সেপ্টেম্বর          ডিএসসিসির ৩,৬৩১ কোটি টাকার বাজেট ঘোষণা          রপ্তানি বাজার সম্প্রসারণের তাগিদ প্রধানমন্ত্রীর          সংলাপের জন্য ভারতকে ৫ শর্ত দিল পাকিস্তান          এরশাদের শূন্য আসনে ভোট ৫ অক্টোবর          বাংলাদেশে আইএস বলে কিছু নেই : হাছান মাহমুদ
printer
প্রকাশ : ০১ এপ্রিল, ২০১৮ ১৫:১৮:৫৬আপডেট : ০৪ এপ্রিল, ২০১৮ ১৮:০৫:৫৮
আওয়ামী লীগ দেশ গড়ে আর বিএনপি ধ্বংস করে
চাঁদপুর সংবাদদাতা


 


প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা বলেছেন, ২০২১ সালের মধ্যে বাংলাদেশকে ক্ষুধা ও দারিদ্র্যমুক্ত দেশ হিসেবে গড়ে তোলা হবে। আর এর জন্য দরকার সরকারের ধারাবাহিকতা। তাই আগামী নির্বাচনেও আওয়ামী লীগের প্রার্থীদের বিজয়ী করার আহ্বান জানান। তিনি আগামী নির্বাচনে নৌকা মার্কায় ভোট দেয়ার উদাত্ত আহ্বান জানিয়ে বলেন, মনে রাখতে হবে- আওয়ামী লীগ দেশ গড়ে আর বিএনপি ধ্বংস করে।
শেখ হাসিনা ১ এপ্রিল রোববার চাঁদপুরে এক বিশাল জনসভায় বক্তৃতাকালে এসব কথা বলেন। জেলা আওয়ামী লীগ চাঁদপুর স্টেডিয়ামে এ জনসভার আয়োজন করে।
চাঁদপুর জেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি ও চাঁদপুর পৌরসভার মেয়র নাছিরউদ্দিন আহমেদের সভাপতিত্বে এবং  সাধারণ সম্পাদক আবু নঈম পাটওয়ারীর পরিচালনায় সমাবেশে অন্যান্যের মধ্যে বক্তব্য রাখেন আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক ও সেতুমন্ত্রী ওবায়দুল কাদের, দুর্যোগ ব্যবস্থাপনা ও ত্রাণমন্ত্রী মোফাজ্জল হোসেন চৌধুরী মায়া বীরবিক্রম, ডা. দীপু মনি এমপি, আওয়ামী লীগের কেন্দ্রীয় কমিটির যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক মাহবুবুল আলম হানিফ, জাহাঙ্গীর কবির নানক, দলের উপদেষ্টা ড. মহীউদ্দীন খান আলমগীর, মেজর (অব.) রফিকুল ইসলাম বীরউত্তম, ড. মো. শামছুল হক ভূইঁয়া এমপি।
প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা বিএনপির সমালোচনা করে বলেন, জিয়াউর রহমান অবৈধভাবে ক্ষমতায় এসে জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের খুনিদের পুরস্কৃত করেছিল। মুক্তিযুদ্ধে যারা বাংলাদেশের বিরোধিতা করে লুটপাট, সন্ত্রাস, অগ্নিসংযোগ, হত্যা, নির্যাতন করেছিল বঙ্গবন্ধু তাদের বিচার শুরু করেছিলেন। অনেকের সাজাও হয়েছিল। তারা জেলে ছিল। জিয়া ক্ষমতায় এসে তাদের জেল থেকে মুক্ত করে মন্ত্রী, প্রধানমন্ত্রী, উপদেষ্টা বানিয়েছিল। তারই ধারাবাহিকতায় খালেদা জিয়া যুদ্ধাপরাধী ও খুনিদের গাড়িতে জাতীয় পতাকা তুলে দিয়েছিল। তিনি বলেন, বিএনপি-জামাত ক্ষমতায় এলে দেশের মানুষের ওপর অত্যাচার, নির্যাতন করে। তারা মানি লন্ডারিং করে, দেশের সম্পদ পাচার করে, জনগণের ঘর-বাড়ি, ব্যবসা-বাণিজ্য সবই কেড়ে নেয়। লুটে খাওয়াই তাদের চরিত্র। সন্ত্রাস, জঙ্গিবাদ, বোমা হামলা, গ্রেনেড হামলায় তারা পারদর্শী। আগুন দিয়ে পুড়িয়ে পুড়িয়ে তারা মানুষ হত্যা করে। এটাই নাকি তাদের আন্দোলন।
প্রধানমন্ত্রী জানান, ২০১৩ থেকে ২০১৫ সাল পর্যন্ত তারা আন্দোলনের নামে তিন হাজার মানুষকে পুড়িয়ে মেরেছে, ৫শ’র মতো মানুষকে হত্যা করেছে, ৩ থেকে ৪ হাজার গাড়ি, বাস-ট্রাক, সিএনজি, রেলে আগুন দিয়ে সেগুলো পুড়িয়ে দিয়েছে। ধ্বংস করাই তাদের চরিত্র। বেগম খালেদা জিয়া এতিমদের টাকা মেরে খেয়ে আদালতের রায়ে জেলে গেছেন। এমন নেত্রীর মুক্তির জন্য তারা আন্দোলন করছে। তিনি বলেন, খালেদা জিয়ার দুই ছেলের দুর্নীতির কথা এখন মানুষের মুখে মুখে। যুক্তরাষ্ট্রের ফেডারেল কোর্টে তারেকের দুর্নীতি প্রমাণিত হয়েছে। ছোট ছেলে সিঙ্গাপুরে টাকা পাচার করেছে। সেসব টাকার কিছু আমরা ফেরতও এনেছি।
শেখ হাসিনা আরো বলেন, নৌকায় ভোট দিয়ে আমরা মাতৃভাষায় কথা বলার অধিকার পেয়েছি, ১৯৭১ সালে স্বাধীনতা পেয়েছি। নৌকা তথা আওয়ামী লীগ ক্ষমতায় এলে উন্নয়ন হয়। এই উন্নয়ন গ্রামের উন্নয়ন, সাধারণ মানুষের উন্নয়ন। আমাদের লক্ষ্য মানুষ শান্তিতে থাকবে। তিনি তার সরকারের বিভিন্ন উন্নয়ন কর্মকা-ের ব্যাখ্যা দিয়ে বলেন, আমরা শিক্ষা, স্বাস্থ্য, গ্রামীন অবকাঠামো উন্নয়ন, বিদ্যুৎ, প্রযুক্তির প্রসার ও উন্নয়নের জন্য কাজ করে যাচ্ছি। আজকে দেশের মানুষের হাতে হাতে মোবাইল ফোন। ইন্টারনেট সুবিধা সারা দেশে ছড়িয়ে দেয়া হয়েছে। বঙ্গবন্ধু স্যাটেলাইট উৎক্ষেপণের ব্যবস্থা নেয়া হয়েছে। আইটি পার্ক স্থাপন করা হয়েছে। স্যাটেলাইট উৎক্ষিপ্ত  হলে উন্নত প্রযুক্তির ব্যবহার আরো বাড়বে এবং সহজ হবে। তিনি বয়স্ক বাতা, বিধবা ভাতা, প্রতিবন্ধী ভাতা, দুস্থ মুক্তিযোদ্ধাদের ভাতা প্রদানের কথা উল্লেখ করে বলেন, এসবই হচ্ছে সাধারণ মানুষের ভাগ্যোন্নয়নের জন্য। তিনি বলেন, বাংলাদেশ ভিক্ষুকমুক্ত করা হবে। এজন্য সরকার জেলায় জেলায় কাজও শুরু করে দিয়েছে। শেখ হাসিনা বলেন, আমরা বিজয়ী জাতি। মাথা উঁচু করে বাঁচব। কারো কাছে হাত পেতে নয়। বঙ্গবন্ধু মাত্র সাড়ে তিন বছরে যুদ্ধবিধ্বস্ত বাংলাদেশকে স্বল্পোন্নত দেশে পরিণত করে গেছেন। আওয়ামী লীগ ক্ষমতায় এসে এখন দেশকে উন্নয়নশীল দেশে উন্নীত করেছে। ২০৪১ সালের মধ্যে বাংলাদেশ উন্নত দেশে পরিণত হবে।

printer
সর্বশেষ সংবাদ
রাজনীতি পাতার আরো খবর

Developed by orangebd