ঢাকা : সোমবার, ১৬ ডিসেম্বর ২০১৯

সংবাদ শিরোনাম :

  • একবিংশ শতাব্দীর চ্যালেঞ্জ মোকাবিলায় দক্ষ প্রকৌশলীর বিকল্প নেই : রাষ্ট্রপতি          রাজধানীর ৬৪ স্থানে বাস স্টপেজ নির্মাণ হবে : কাদের          ২০৩০ সালের মধ্যে দেশে ৩ কোটি যুবকের কর্মসংস্থানের হবে : অর্থমন্ত্রী          দ্বীপ ও চরাঞ্চলে পৌঁছাচ্ছে ইন্টারনেট           সরকারি ব্যয়ে স্বচ্ছতা ও জবাবদিহিতা নিশ্চিত করতে হবে : স্পিকার          রপ্তানি বাজার সম্প্রসারণের তাগিদ প্রধানমন্ত্রীর          বাংলাদেশে আইএস বলে কিছু নেই : হাছান মাহমুদ
printer
প্রকাশ : ০৪ এপ্রিল, ২০১৮ ১৮:০৩:৪৯
‘অক্ষর’-এর নতুন করে যাত্রা শুরু
নারায়ণগঞ্জ সংবাদদাতা


 


প্রায় ৩৮ বছর পর নারায়ণগঞ্জের ঐতিহ্যবাহী সাহিত্য ও সাংস্কৃতিক সংগঠন ‘অক্ষর’ নতুন করে যাত্রা শুরু করেছে। ৪৭তম স্বাধীনতা দিবস উদযাপনের মধ্য দিয়ে  অক্ষর তার নবযাত্রা করল।
গত শুক্রবার (৩১ মার্চ) বিকেলে ১৩১ বঙ্গবন্ধু সড়ক চতুর্থ তলায় অক্ষরের উদ্যোগে স্বাধীনতা দিবসের ওপর আলোচনা সভা অনুষ্ঠিত হয়। অক্ষরের প্রতিষ্ঠাকালীন পরিচালক কথাশিল্পী আলী এহসানের সভাপতিত্বে অনুষ্ঠিত আলোচনা সভায় শীর্ষ আলোচক ছিলেন জাহাঙ্গীরনগর বিশ্ববিদ্যালয়ের প্রতœতত্ত্ব বিভাগের অধ্যাপক ড. এ কে এম শাহনাওয়াজ। আলোচনায় অংশ নেন কবি আমজাদ হোসেন, অর্থ ও পুঁজিবাজার বিশ্লেষক সিনিয়র সাংবাদিক এবং অক্ষরের প্রতিষ্ঠাকালীন মহাপরিচালক ফজলুল বারী, সাবেক ছাত্রনেতা মলয় দাশ চন্দন। আবৃত্তি ও কবিতা পাঠে অংশ নেন ভবানী শংকর রায়, মোহাম্মদ সেলিম, নাসিম আফজাল, রাজলক্ষ্মী, আসমা বেগম, নীরব মজুমদার, নম্রতা মজুমদার, পুণ্য ও দেবাশ্রিতা।
সূচনা বক্তব্য রাখেন অক্ষরের প্রতিষ্ঠাকালীন পরিচালক কবি করীম রেজা। অনুষ্ঠান তত্ত্বাবধান ও সঞ্চালনা করেন অক্ষরের প্রতিষ্ঠাকালীন পরিচালক সাংবাদিক-ছড়াকার ইউসুফ আলী এটম।
ড. শাহনাওয়াজ বলেন, দীর্ঘদিন পর অক্ষরের নবযাত্রায় নারায়ণগঞ্জের সাংস্কৃতিক অঙ্গন আলোড়িত হবে, বিকশিত হবে। অক্ষরের নবযাত্রায় শরিক হতে পেরে নারায়ণগঞ্জের সন্তান হিসেবে তিনি নিজে উচ্ছ্বসিত। স্থানীয়ভাবে প্রতœতাত্ত্বিক শিক্ষার উন্নয়নের সাথে সাথে বিদেশিদের মতবাদ সব ভুল প্রমাণিত হয়েছে। তিনি বলেন, ইউরোপীয়দের প্রাথমিক পর্যায়ের শিক্ষা ব্যবস্থা শুরুর শত বছর আগেই বাংলা অঞ্চলে আবাসিক বিশ্ববিদ্যালয় সুপ্রতিষ্ঠিত ছিল। তিনি প্রাচীন থেকে বর্তমান পর্যন্ত বাঙালির সভ্যতা ও সংগ্রামের চিত্র তুলে ধরেন। মধ্যযুগে বিশেষত সুলতানি আমলে বাংলার অসাম্প্রদায়িক সমাজব্যবস্থা দৃঢ় ছিল, উদাহরণস্বরূপ তিনি বৈষ্ণব ও সূফিবাদের মানবিক আবেদনের সর্বজনীনতা উল্লেখ করেন।
কবি আমজাদ হোসেন অক্ষরের অতীত ঐতিহ্য স্মরণ করে ভবিষ্যৎ সাফল্য কামনা করেন। ফজলুল বারী জাতীয় ঐক্যে বিভক্তি উন্নয়নের প্রধান বাধা বলে মনে করেন। অক্ষর পরিশীলিত সাংস্কৃতিক চর্চার দ্বারা সমাজে-রাষ্ট্রে জ্ঞানের প্রসার ঘটাবে বলে আশা করেন। মলয় দাশ চন্দন স্বাধীনতা দিবসের আলোচনায় বর্তমান যুবসমাজের আচরণে গেীরবময় অতীত অনুপস্থিতির কারণ অনুসন্ধানের উপর গুরুত্বারোপ করেন। সভাপতি আলী এহসান বাংলার সংস্কৃতি যে ভূঁইফোড় নয় তা সবাইকে মনে রাখার ওপর জোর দেন। সংগীত পরিবেশনায় অংশগ্রহণ করে এককভাবে জ্যোতি দাস এবং দলীয়ভাবে ব্যান্ড দল ‘নিক্কন’। তাদের পরিবেশনা দর্শক-শ্রোতাদের মুগ্ধ করে।

printer
সর্বশেষ সংবাদ
সাহিত্য-সংস্কৃতি পাতার আরো খবর

Developed by orangebd