ঢাকা : শনিবার, ২২ সেপ্টেম্বর ২০১৮

সংবাদ শিরোনাম :

  • দুই দেশের সম্পর্ক আরও এগিয়ে যাক : মমতা           কারও মুখের দিকে তাকিয়ে মনোনয়ন দেয়া হবে না : প্রধানমন্ত্রী          ২২তম অধিবেশন চলবে ২০ সেপ্টেম্বর পর্যন্ত          জীবনমান উন্নয়নের শিক্ষাগ্রহণ করতে হবে : প্রধানমন্ত্রী          দেশের উন্নয়নে বঙ্গবন্ধু স্যাটেলাইট গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা রাখবে          বঙ্গবন্ধুর নাম কেউ মুছতে পারবে না : জয়
printer
প্রকাশ : ০৯ এপ্রিল, ২০১৮ ১২:৩৮:১৯
নেতৃত্বের ভবিষ্যৎ প্রজন্ম তৈরির প্রত্যয়ে পঞ্চম লিডারশিপ সামিট
টাইমওয়াচ ডেস্ক


 


বাংলাদেশ ব্র্যান্ড ফোরামের আয়োজনে পঞ্চম বারের মতো অনুষ্ঠিত হল লিডারশিপ সামিট। শনিবার দিনব্যাপী এ আয়োজনে নেতৃত্ববিষয়ক নানাবিধ আলোচনা করেন দেশি-বিদেশি বক্তারা। সামিটের মূল প্রতিপাদ্য ছিলো ‘বাংলাদেশের আগামী ১০ বছরের জন্য আলোচনা’। সামিটে চারজন বিশ্বখ্যাত বক্তা মূল প্রবন্ধ উপস্থাপন করেন, যার পাশাপাশি সরকারি প্রতিনিধিগণ  এবং ব্যবসায়ী নেতারা তাদের মূল্যবান মতামত তুলে ধরেন। পঞ্চম লিডারশিপ সামিট-এর পৃষ্ঠপোষকতা করেছে বেক্সিমকো গ্রুপ এবং আমেরিকান ইন্টারন্যাশনাল ইউনিভার্সিটি বাংলাদেশ। এ আয়োজনে সার্বিক সহযোগিতা করে ঢাকা ব্যাংক এবং দ্য ডেইলি স্টার।  
বাংলাদেশকে একটি উন্নত সমৃদ্ধ দেশে পরিণত করতে সমাজের প্রতিটি ক্ষেত্রে প্রয়োজন দক্ষ নেতৃত্বের। লিডারশিপ সামিটের একটি বৃহত্তর লক্ষ্য হচ্ছে আগামী দশ বছরের মধ্যে একশজন যোগ্য নেতা তৈরি করা। সে লক্ষ্যেই পঞ্চম লিডারশিপ সামিটে বিদেশি বক্তারা আলোচনা করেন বহির্বিশ্বের নেতৃত্বচর্চা নিয়ে যার সঙ্গে সরকারি প্রতিনিধিগণ দেশীয় নেতৃত্বচর্চা এবং ব্যবসায়ীগণ তাদের করণীয় বিষয়বস্তু তুলে ধরেন।
সামিটের উদ্বোধন অনুষ্ঠানে বাংলাদেশ ব্র্যান্ড ফোরামের ম্যানেজিং ডিরেক্টর শরীফুল ইসলাম বলেন, আমাদের দেশকে আমরা অর্থনৈতিকভাবে অনেক দূর নিয়ে আসতে পেরেছি। মিলেনিয়াম ডেভলপমেন্ট গোল অর্জনে আমাদের সাফল্য অন্যদের জন্য অনুকরনীয়। তবে টেকসই উন্নয়নের এই যাত্রাকে এগিয়ে নিতে আমাদের নেতৃত্বে উদ্ভাবন এবং সঠিক পরিকল্পনা এবং কৌশল প্রয়োজন। তাই সরকারি এবং বেসরকারি, সবমিলিয়ে সকল ক্ষেত্রে এই ৪ টি প্রধান বিষয়ের আলোচনা করা খুবই জরুরি।
পঞ্চম লিডারশিপ সামিট বিভক্ত ছিলো প্রধানত চারটি ভাগে- অর্থনীতি, উদ্ভাবন, পরিকল্পনা এবং টেকসই উন্নয়ন। প্রতিটি বিভাগের জন্য ছিল একজন বিদেশি বক্তার মূলপ্রবন্ধ উপস্থাপন, একজন সরকারি প্রতিনিধির মতামত প্রকাশ এবং গুরুত্বপূর্ণ ব্যবসায়ী নেতাদের নিয়ে একটি প্যানেল আলোচনা। সামিটে অংশগ্রহণকারী প্রত্যেকে বেক্সিমকো ফার্মার সৌজন্যে উপহার হিসেবে পান ওয়াল স্ট্রিট জার্নাল-এর বেস্টসেলার বই ওপেন সোর্স লিডারশিপ। পাশাপাশি কিনোট উপস্থাপনকারীদের সৌজন্য উপহার হিসেবে দেয়া হয় প্রখ্যাত ভিজুয়াল আর্টিস্ট নাজিয়া আন্দালিব প্রিমার চারটি চিত্রকর্ম।
মূল প্রবন্ধ উপস্থাপন করেন কেলগ ইনোভেশন নেটওয়ার্ক-এর কো-ফাউন্ডার এবং এক্সিকিউটিভ ডিরেক্টর প্রফেসর রবার্ট সি ওয়ালকট; মালয়েশিয়ার দ্য ইক্লিফ লিডারশিপ এন্ড গভর্ন্যান্স সেন্টার এর চিফ মার্কেটিং অফিসার ললিত গুপ্ত; দ্য বোস্টন কন্সালটিং গ্রুপের প্রিন্সিপাল ডক্টর মীর সেলিম; মেকিনজে এন্ড কো¤পানির পার্টনার নম্রতা দুবাশি। বক্তারা যথাক্রমে বিশ্বের উদ্ভাবনী মডেল, ভবিষ্যতের জন্য নেতা তৈরি, বৈশ্বিক অর্থনীতির ধারা, এবং বৈশ্বিক পরিকল্পনার মডেল বিষয়গুলো নিয়ে মূল প্রবন্ধ উপস্থাপন করেন। এছাড়া দুটি ইনসাইট সেশন উপস্থাপন করেন প্রধানমন্ত্রীর কার্যালয়ের এটুআইয়ের পলিসি এডভাইজার অনির চৌধুরী এবং বাংলাদেশ ব্যাংকের চিফ ইকোনমিস্ট ফয়সাল আহমেদ।
চারটি আলাদা প্যানেল আলোচনায় দেশীয় ব্যবসায়ী নেতারা এবং শিক্ষাবীদগণ উপরিউক্ত চারটি বিভাগের বাংলাদেশ প্রেক্ষাপট নিয়ে আলোচনা করেন। আলোচকদের মধ্যে ছিলেন এসিআই লিমিটেডের ম্যানেজিং ডিরেক্টর ড. আরিফ দৌলা; এমসিসিআই এর প্রেসিডেন্ট নিহাদ কবির; ইউনিলিভার বাংলাদেশ-এর সিইও এবং এমডি কেদার লেলে; আনোয়ার গ্রুপ-এর জুট এন্ড অটোমোবাইলস ডিভিশন-এর ম্যানেজিং ডিরেক্টর হোসেন খালেদ; এপেক্স ফুটওয়্যার লিঃ-এর এমডি সৈয়দ নাসিম মঞ্জুর; ব্রিটিশ আমেরিকান টোব্যাকো বাংলাদেশ-এর এমডি শেহজাদ মুনিম; ঢাকা ব্যাংক-এর এমডি মাহবুবুর রহমান; রবি আজিয়াটা লিমিটেড-এর সিইও এবং এমডি মাহতাব উদ্দিন আহমেদ; গ্রামীণফোন লিঃ-এর ডেপুটি সিইও এবং সিএমও ইয়াসির আজমান; প্রধানমন্ত্রীর কার্যালয়ের গভর্নেন্স ইনোভেশন ইউনিট-এর মহাপরিচালক আব্দুল হালিম; এটুআই-এর রেজাল্টস ম্যানেজমেন্ট ও ডাটার প্রধান ড. রমিজ উদ্দিন; ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়-এর অর্গানাইজেশন স্ট্র্যাটেজি অ্যান্ড লিডারশিপ ডিপার্টমেন্ট প্রফেসর এবং চেয়ারম্যান ড. মুহাম্মাদ আব্দুল মইন; এবং ডিনেট এর সিইও অনন্য রায়হান।
লিডারশিপ সামিট বাংলাদেশ ব্র্যান্ড ফোরামের একটি উদ্যোগ। সামিটের পঞ্চম আসরের পৃষ্ঠপোষকতা করছে বেক্সিমকো গ্রুপ এবং আমেরিকান ইন্টারন্যাশনাল ইউনিভার্সিটি বাংলাদেশ। আয়োজনে সার্বিক সহযোগিতা করছে ঢাকা ব্যাংক এবং দি ডেইলি স্টার। ইভেন্ট পার্টনার হিসেবে ছিল আনোয়ার গ্রুপ এবং লা মেরিডিয়ান ঢাকা। এছাড়াও ছিলো ব্যাংকুয়েট পার্টনার বিইওএল, অফিশিয়াল ক্যারিয়ার ইতিহাদ এয়ারওয়েজ; স্ট্র্যাটেজিক পার্টনার ফিউচার লিডারস; নলেজ পার্টনার মার্কেটিং সোসাইটি অব বাংলাদেশ; পার্টনার ওমেন ইন লিডারশিপ এবং ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের অর্গানাইজেশন স্ট্র্যাটেজি অ্যান্ড লিডারশীপ ডিপার্টমেন্ট; মিডিয়া পার্টনার ইন্ডিপেন্ডেন্ট টিভি, টেকনোলজি পার্টনার আমরা টেকনোলজিস, পিআর পার্টনার মাস্টহেড পিআর; সোশ্যাল মিডিয়া পার্টনার মেলোনেডস; ব্র্যান্ডিং পার্টনার টেরাকোটা এবং ওয়েব টেকনোলজি পার্টনার সিম্বল।

printer
সর্বশেষ সংবাদ
অর্থ-বাণিজ্য পাতার আরো খবর

Developed by orangebd