ঢাকা : শনিবার, ২২ সেপ্টেম্বর ২০১৮

সংবাদ শিরোনাম :

  • দুই দেশের সম্পর্ক আরও এগিয়ে যাক : মমতা           কারও মুখের দিকে তাকিয়ে মনোনয়ন দেয়া হবে না : প্রধানমন্ত্রী          ২২তম অধিবেশন চলবে ২০ সেপ্টেম্বর পর্যন্ত          জীবনমান উন্নয়নের শিক্ষাগ্রহণ করতে হবে : প্রধানমন্ত্রী          দেশের উন্নয়নে বঙ্গবন্ধু স্যাটেলাইট গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা রাখবে          বঙ্গবন্ধুর নাম কেউ মুছতে পারবে না : জয়
printer
প্রকাশ : ২৩ জুন, ২০১৮ ১৭:০৫:১০
সুদ হার না কমালে কর সুবিধা পাবে না ব্যাংকাররা
ফেরদৌস হোসেন বাবু


 

ব্যাংক ও আর্থিক প্রতিষ্ঠানের কর্পোরেট করহার আড়াই শতাংশ কমানোর প্রস্তাব করা হয়েছে। যদি ব্যাংকগুলো সুদহার না কমায় তাহলে কর্পোরেট ট্যাক্স কমানোর সুবিধা দেয়া হবে না বলে জানিয়েছেন জাতীয় রাজস্ব বোর্ডের (এনবিআর) চেয়ারম্যান মো. মোশাররফ হোসেন ভূঁইয়া।
 
বৃহস্পতিবার (২১ জুন) রাজধানীর মতিঝিলে মেট্রোপলিটন চেম্বার অব কমার্স অ্যান্ড ইন্ডাস্ট্রির (এমসিসিআই) বাজেট আলোচনা সভায় তিনি এ কথা বলেন।
এনবিআর চেয়ারমান বলেন, আমরা তালিকাভুক্ত ও তালিকা বহির্ভূত আর্থিক প্রতিষ্ঠানের মধ্যে থেকে সর্বোচ্চ করপোরেট কর রয়েছে, এমন প্রতিষ্ঠানগুলো থেকে আড়াই শতাংশ ট্যাক্স কমিয়েছি, যেটা ব্যাংক পেয়ে গেছে। তবে যদি সব খাতে একই হারে কমানো হতো তাহলে আমাদের রাজস্ব আয় কমে যেত।
 
মোশাররফ হোসেন ভুঁইয়া বলেন, আগামী ২০১৮-১৯ অর্থবছরের বাজেটে ব্যবসায়ীদের দাবির অনেক কিছুরই প্রতিফলন হয়েছে। এবার আমরা ব্যবসাবান্ধব বাজেট করেছি। এটা করতে গিয়ে আমাদের রাজস্ব আয়ের ক্ষেত্রে অনেক কিছু ছাড় দিতে হয়েছে। নতুন করে কোনো করারোপ করা হয়নি। এ নিয়ে রাজস্ব লক্ষ্যমাত্রা চ্যালেঞ্জের মধ্যে পড়বে। অনেকের অনেক আপত্তি আমলে নিচ্ছি। যতটা সম্ভব আমরা বাজেট পাসের আগে সেগুলো সংশোধন করার চেষ্টা করব।
 
এনবিআর চেয়ারমান বলেন, ব্যক্তি করমুক্ত আয়সীমা না বাড়ানো ঠিক আছে। কিন্তু সব দিকে ছাড় দিতে গিয়ে এটা করা যায়নি। কারণ করপোরেট টাক্স কমানোর কারণে রাজস্ব আয় কমবে ২ হাজার কোটি টাকা।
 
তিনি বলেন, ভ্যাট কার্যকর করতে আমরা ইলেকট্রনিক ফিসক্যাল ডিভাইস (ইএফডি) ব্যবহার বাধ্যতামূলক করব। আগামী এক বছরের মধ্যে ছোট বড় যত লেনদেন আছে সব লেনদেনের ক্ষেত্রে ইএফডি কার্যকর করা হবে। এর মাধমে যদি অটোমেশন হয় এবং ভ্যাট আইন কার্যকর হয় তাহলে রাজস্ব আয় বেড়ে যাবে। তিনি বলেন, বিদেশ থেকে যারা বাংলাদেশে এসে চাকরি করে টাকা নিয়ে যাচ্ছেন তাদের ট্যাক্সের আওতায় নিয়ে আসার জন্য কাজ করছি।
 
ড. আহসান এইচ মনসুর বলেন, বাংলাদেশ মধ্যম আয়ের দেশ হতে হলে অভ্যন্তরীণভাবে রাজস্ব আহরণের পরিমাণ বাড়াতে হবে। ট্যাক্স জিডিপির রেশিও যদি ২০ এর কাছাকাছি না হয় তাহলে মধ্যম আয়ের দেশ হওয়া সম্ভব না।
 
তিনি বলেন, একটি মধ্য মেয়াদী পরিকল্পনার মাধ্যমে এসডিজি অর্জন করা যাবে। আর তা করতে হলে বাংলাদেশের আয়ের ৮০ শতাংশ রাজস্ব আয়ের মাধ্যমে অর্জন করতে হবে। তিনি বলেন, বাংলাদেশের ডিপোজিট গ্রোথ এক সময় খুব ভালো অবস্থানে থাকলেও বর্তমানে তা নেই। কয়েক বছর আগে এফডিআর ১৯ শতাংশ থাকলেও বর্তমানে তা সাড়ে ৯ শতাংশে নেমে এসেছে। এটা উদ্বেগের কারণ।
 
সভায় সভাপতিত্ব করেন এমসিসিআইয়ের সভাপতি ব্যারিস্টার নিহাদ কবির। এ সময় উপস্থিত ছিলেন বেসরকারি গবেষণা সংস্থা পলিসি রিসার্চ ইনস্টিটিউটের (পিআরআই) চেয়ারম্যান ড. জাইদি সাত্তার, গণস্বাস্থ্য কেন্দ্রের প্রতিষ্ঠাতা ডা. জাফরুল্লাহ চৌধুরী প্রমুখ।

printer
সর্বশেষ সংবাদ
অর্থ-বাণিজ্য পাতার আরো খবর

Developed by orangebd