ঢাকা : শুক্রবার, ১৬ নভেম্বর ২০১৮

সংবাদ শিরোনাম :

  • জাতীয় নির্বাচন ২৩ ডিসেম্বর          নির্বাচনের তারিখ পেছানোর কোনো সুযোগ নেই : সিইসি          আ.লীগের মনোনয়ন প্রত্যাশীদের সাক্ষাৎকার বুধবার থেকে নেবেন প্রধানমন্ত্রী          দুই দেশের সম্পর্ক আরও এগিয়ে যাক : মমতা          জীবনমান উন্নয়নের শিক্ষাগ্রহণ করতে হবে : প্রধানমন্ত্রী          বঙ্গবন্ধুর নাম কেউ মুছতে পারবে না : জয়
printer
প্রকাশ : ২৪ জুন, ২০১৮ ১৬:১৪:০৭
ভ্যাটমুক্ত ইন্টারনেট দাবি
ফেরদৌস হোসেন বাবু


 


২০১৮-২০১৯ অর্থবছরের প্রস্তাবিত বাজেট নিয়ে ২০ জুন বুধবার রাজধানীর একটি হোটেলে সংবাদ সম্মেলন করে সম্মিলিত প্রতিক্রিয়া জানায় অ্যামটব, বেসিস, বিসিএস, বিএমপিআইএ, আইএসপিএবি, বাক্য ও ই-ক্যাব।
আর সংবাদ সম্মেলনে তথ্যপ্রযুক্তি খাতের এই সাত সংগঠনের নেতারা শোনালেন বাজেটে তাদের অপ্রাপ্তি ও চিন্তার কথা। সংবাদ সম্মেলনে উপস্থিত সংগঠনগুলোর নেতারা জানান, ইন্টারনেটের ওপর ভ্যাট রেখে ডিজিটাল বাংলাদেশের গন্তব্য যাওয়া কঠিন হবে। ইন্টারনেটের ওপর ২১ দশমিক ৭৫ শতাংশ কর হতে সরকার খুব সামান্যই আয় করে।
 
বেসিস সভাপতি সৈয়দ আলমাস কবীর বলেন, অপারেটিং সিস্টেম, ডেটাবেইজ, ডেভেলপমেন্ট টুলস, সাইবার সিকিউরিটি পণ্য আমদাবির ওপর থেকে শুল্ক কমানোর জন্য বেসিস থেকে প্রস্তাব করা হয়েছিল। কম্পিউটার ও সফটওয়্যারের আমদানি শুল্ক ২৫ শতাংশ থেকে কমিয়ে ৫ শতাংশ করা হয়েছে এবং মূসক সম্পূর্ণরূপে প্রত্যাহার করা হয়েছে। দেশে উৎপাদিত হয় এরকম সফটওয়্যারও বিদেশ থেকে আমদানি উৎসাহিত হবে এবং দেশীয় সফটওয়্যার শিল্প বিকশিত হবে ।
অ্যামটবের মহাসচিব টি আই এম নূরুল কবীর বলেন, ইন্টারনেট ব্যবহারের উপর ১৫ শতাংশ ভ্যাট তুলে নেয়া, নতুন ও পুরাতন সিম প্রতিস্থাপনের উপর ১০০ টাকা ট্যাক্স তুলে দেয়া, মোবাইল খাতে বিদ্যমান তালিকাভূক্ত কোম্পানির ক্ষেত্রে ৪০ শতাংশ ও অতালিকাভুক্ত কোম্পানির ক্ষেত্রে ৪৫ শতাংশ কর কমানো, অলাভজনক মোবাইল কোম্পানির মোট আয়ের উপর ধার্য সর্বনিম্ন ০.৭৫ শতাংশ কর্পোরেট কর তুলে দেয়া, দেশীয় কোম্পানিগুলো স্মার্টফোন উৎপাদনের   উপর বিদ্যমান প্রায় ৩১ শতাংশ আমদানি শুল্ক কমানোর আবেদন ছিল। বরং মোবাইল হ্যান্ডসেট আমদানির ওপর আরও ২ শতাংশ কর বাড়ানো হয়েছে
আইএসপিএবি সভাপতি এম এ হাকিম বলেন, ইন্টারনেট সেবা মানুষের দোরগোড়ায় পৌঁছানোর জন্য নেটওয়ার্ক ইকুইপমেন্টের প্রয়োজন  ইন্টারনেট যন্ত্রপাতির সহজলভ্যতা ও সুলভ মূল্য আইসিটি উন্নয়নে যন্ত্রপাতির উপর বর্তমানে ২২.১৬ শতাংশ ভ্যাট ও শুল্ক আরোপিত রয়েছে।
বিসিএসের যুগ্ম-মহাসচিব মো. এ ইউ খান জুয়েল বলেন তথ্যপ্রযুক্তি খাতে ৮৪ দশমিক ৭১ এবং ৮৪ দশমিক ৭৩ শিরোনাম সংখ্যা-এইচ এস কোড-এ ব্যবসায়ী পর্যায়ে কম্পিউটার ও এর যন্ত্রাংশের মূল্য সংযোজন কর (মূসক) অব্যাহতি প্রত্যাহার করার প্রস্তাব হয়েছে। ফলে কম্পিউটার ও এর যন্ত্রাংশের মূল্য প্রায় ১১ শতাংশ বৃদ্ধি পাবে।

printer
সর্বশেষ সংবাদ
তথ্য-প্রযুক্তি পাতার আরো খবর

Developed by orangebd