ঢাকা : শনিবার, ১৫ ডিসেম্বর ২০১৮

সংবাদ শিরোনাম :

  • সততার সাথে দায়িত্ব পালন করতে হবে : সিইসি          নির্বাচনের তারিখ পেছানোর কোনো সুযোগ নেই : সিইসি          দুই দেশের সম্পর্ক আরও এগিয়ে যাক : মমতা          জীবনমান উন্নয়নের শিক্ষাগ্রহণ করতে হবে : প্রধানমন্ত্রী          বঙ্গবন্ধুর নাম কেউ মুছতে পারবে না : জয়
printer
প্রকাশ : ১৪ নভেম্বর, ২০১৮ ১২:৪৯:১০
বিএবির অ্যাক্রেডিটেশন সনদের ক্ষেত্র সম্প্রসারণের উদ্যোগ
টাইমওয়াচ রিপোর্ট


 


শিল্প মন্ত্রণালয়ের আওতাধীন বাংলাদেশ অ্যাক্রেডিটেশন বোর্ড (বিএবি) আন্তর্জাতিকভাবে স্বীকৃত অ্যাক্রেডিটেশন সনদ প্রদানের ক্ষেত্র সম্প্রসারণের উদ্যোগ নিয়েছে। এর অংশ হিসেবে বাংলাদেশে স্থাপিত দেশীয় ও বহুজাতিক মেডিকেল ল্যাবরেটরি এবং মান পরিদর্শন সংস্থার (ইন্সপেকশন বডি) অনুকূলে অ্যাক্রেডিটেশন সনদ প্রদানে সক্ষমতা অর্জনের চেষ্টা চলছে। একই সাথে বিএবি বর্তমানে টেস্টিং ও ক্যালিব্রেশনের ক্ষেত্রে যে সনদ প্রদান করছে, তাও বলবৎ রাখা হবে।
সফররত এশিয়া-প্যাসিফিক ল্যাবরেটরি অ্যাক্রেডিটেশন কোঅপারেশনের দুই সদস্যের মূল্যায়ন প্রতিনিধিদল ভারপ্রাপ্ত শিল্পসচিব মো. আবদুল হালিমের সাথে সাক্ষাৎ করতে এলে তিনি এ কথা বলেন।  সোমবার শিল্প মন্ত্রণালয়ে এ সাক্ষাৎকার অনুষ্ঠিত হয়।
এ সময় বিএবি’র মহাপরিচালক মো. মনোয়ারুল ইসলাম, প্রতিনিধিদলের প্রধান ও স্ট্যান্ডার্ডস্ মালয়েশিয়ার অ্যাক্রেডিটেশন বিষয়ক পরিচালক শাহরুল সাদরী বিন আলভী, ইন্টারন্যাশনাল অ্যাক্রেডিশেন নিউজিল্যান্ডের ব্যবস্থাপক জেফরি ডেভিড হালামসহ বিএবি’র কর্মকর্তারা উপস্থিত ছিলেন।
সাক্ষাৎকালে ভারপ্রাপ্ত শিল্পসচিব প্রতিনিধিদলকে জানান, বাংলাদেশে বিশ্বমানের মান অবকাঠামো গড়ে তুলতে বর্তমান সরকার সর্বাত্মক প্রয়াস অব্যাহত রেখেছে। বিএবি’র প্রাতিষ্ঠানিক সক্ষমতা বাড়াতে শিল্প মন্ত্রণালয় সম্ভব সব ধরনের সহায়তা দিয়ে যাচ্ছে। বিএবি ইতোমধ্যে এপলাক এবং আইলাকের গাইডলাইন অনুসরণ করে দেশব্যাপী অ্যাক্রেডিটেশন বিষয়ক কর্মকান্ড জোরদার করেছে। তিনি বিভিন্ন ক্ষেত্রে বিএবি’র আন্তর্জাতিকভাবে গ্রহণযোগ্য অ্যাক্রেডিটেশন সনদ প্রদানের সক্ষমতা অর্জনে এপলাকের সহায়তা কামনা করেন।
এর আগে এপলাক মূল্যায়ন প্রতিনিধিদল বিএবি’র কার্যালয় পরিদর্শন করেন। এ সময় তারা প্রতিষ্ঠানের মহাপরিচালকের সাথে দ্বিপাক্ষিক বৈঠকে মিলিত হন।
বৈঠকে বিএবি’র পক্ষ থেকে প্রতিনিধিদলকে সংস্থার সার্বিককার্যক্রম সম্পর্কে অবহিত করা হয়। মহাপরিচালক বিএবি’র প্রাতিষ্ঠানিক সক্ষমতা বৃদ্ধি এবং আন্তর্জাতিক অঙ্গনে এর অবস্থান সুদৃঢ় করতে প্রতিনিধিদলের সহায়তা কামনা করেন।
দেশে বিদ্যমান ল্যাবরেটরি, সনদ প্রদানকারী ও পরিদর্শন সংস্থাসহ ওজন, পরিমাণ ও গুণগতমানের সাথে সংশ্লিষ্ট প্রতিষ্ঠানগুলোকে আন্তর্জাতিকভাবে গ্রহণযোগ্য অ্যাক্রেডিটেশন সনদ প্রদানের লক্ষ্যে বাংলাদেশ অ্যাক্রেডিটেশন আইন, ২০০৬ অনুসারে বিএবি গঠিত হয়। এ প্রতিষ্ঠান ২০১৪ সালে এপলাকের পূর্ণ সদস্য পদ লাভ করে। এর ধারাবাহিকতায় প্রতিষ্ঠানটি ২০১৫ সালে টেস্টিং ও ক্যালিব্রেশনের ক্ষেত্রে অ্যাক্রেডিটেশন সনদ প্রদানের জন্য এপলাকের পারস্পরিক স্বীকৃতি ব্যবস্থা (এমআরএ) স্বাক্ষর করে।
বর্তমানে বিএবি মেডিক্যাল ল্যাবরেটরি এবং মান পরিদর্শন সংস্থার (ইন্সপেকশন বডি) অনুকূলে অ্যাক্রেডিটেশন সনদ প্রদানের প্রয়াস চালিয়ে যাচ্ছে। এক্ষেত্রে বিএবি’র সক্ষমতা যাচাইয়ের জন্য এপলাক মূল্যায়ন প্রতিনিধিদল বাংলাদেশ সফর করছে। ১১ থেকে ১৭ নভেম্বর পর্যন্ত এ প্রতিনিধিদল বিএবি এবং সংস্থাটির অ্যাক্রেডিটেশন প্রাপ্ত বিভিন্ন সরকারি ও বেসরকারি প্রতিষ্ঠান সরেজমিনে পরিদর্শন করে এপলাক কাউন্সিল সভায় প্রতিবেদন উপস্থাপন করবে। এ প্রতিবেদনের ভিত্তিতে উল্লিখিত দু’টি ক্ষেত্রে বিএবি’র অ্যাক্রেডিটেশন সনদ প্রদানের বিষয়ে সিদ্ধান্ত গৃহীত হবে।

printer
সর্বশেষ সংবাদ
সারা দেশ পাতার আরো খবর

Developed by orangebd