ঢাকা : বুধবার, ২৬ ফেব্রুয়ারি ২০২০

সংবাদ শিরোনাম :

  • একবিংশ শতাব্দীর চ্যালেঞ্জ মোকাবিলায় দক্ষ প্রকৌশলীর বিকল্প নেই : রাষ্ট্রপতি          রাজধানীর ৬৪ স্থানে বাস স্টপেজ নির্মাণ হবে : কাদের          ২০৩০ সালের মধ্যে দেশে ৩ কোটি যুবকের কর্মসংস্থানের হবে : অর্থমন্ত্রী          দ্বীপ ও চরাঞ্চলে পৌঁছাচ্ছে ইন্টারনেট           সরকারি ব্যয়ে স্বচ্ছতা ও জবাবদিহিতা নিশ্চিত করতে হবে : স্পিকার          রপ্তানি বাজার সম্প্রসারণের তাগিদ প্রধানমন্ত্রীর          বাংলাদেশে আইএস বলে কিছু নেই : হাছান মাহমুদ
printer
প্রকাশ : ৩০ মার্চ, ২০১৯ ১৬:৫৩:১০
ডিএনসিসি মার্কেটের ২ শতাধিক দোকান আগুনে পুড়েছে
টাইমওয়াচ রিপোর্ট


 


রাজধানীর গুলশানে ডিএনসিসি মার্কেটের কাঁচাবাজারে অগ্নিকাণ্ডে দুই শতাধিক দোকান পুড়েছে বলে জানিয়েছেন ব্যবসায়ীরা।
২০১৭ সালে এই মার্কেটে আগুন লেগেছিল। সেই ক্ষতি পুষিয়ে ওঠার আগে ফের ক্ষতিগ্রস্ত হওয়ায় ব্যবসায়ীরা তা মানতে পারছেন না। অনেকে সর্বস্ব হারিয়ে বিলাপ করছেন।
স্থানীয়রা ধারণা করছেন শর্ট সার্কিট থেকে আগুনের সূত্রপাত। যদিও এ বিষয়ে কর্তৃপক্ষ এখনো কোনো বক্তব্য দেয়নি।
ফায়ার সার্ভিসের সূত্র জানিয়েছে, গুলশান-১ ডিএনসিসি শপিং সেন্টারের পেছনের দিকের একটি বেবিশপের গোডাউন থেকে আগুনের সূত্রপাত হয়। খবর পেয়ে ফায়ার সার্ভিস ঘটনাস্থলে পৌঁছালেও মার্কেট ভবনের গেটগুলোতে তালা লাগানো থাকায় সঙ্গে সঙ্গে ঢুকতে পারেনি তারা। ফলে সেখান থেকে আগুন ছড়িয়ে পড়ে।   পরে ফায়ার সার্ভিস, সেনাবাহিনী, নৌবাহিনী ও সাধারণ মানুষের চেষ্টায় আগুন নিয়ন্ত্রণে আসে।
ফায়ার সার্ভিস ও সিভিল ডিফেন্সের পরিচালক (অপারেশন ও মেইনটেন্যান্স) মেজর এ কে এম শাকিল নেওয়াজ বলেছেন, ২০১৭ সালে ডিএনসিসি মার্কেটে আগুন লাগার পর কর্তৃপক্ষকে অগ্নিনির্বাপণ যন্ত্র রাখার জন্য তিন থেকে চারবার নোটিশ দেওয়া হয়েছিলো। কিন্তু নোটিশের পরিপ্রেক্ষিতে তারা কোনো ব্যবস্থা গ্রহণ করেননি।
উল্লেখ্য, শনিবার ভোরে ডিএনসিসি মার্কেটে আগুন লাগে। ফায়ার সার্ভিসের ২০ ইউনিট প্রায় ৩ ঘণ্টা চেষ্টা চালিয়ে আগুন নিয়ন্ত্রণে আনে। এ ঘটনায় ফায়ার সার্ভিস ঢাকার উপ-পরিচালক শামীম হাসান চৌধুরীকে প্রধান করে পাঁচ সদস্যের কমিটি গঠন করা হয়েছে। তদন্ত কমিটিকে সাত কার্যদিবসের মধ্যে তদন্ত প্রতিবেদন দিতে বলা হয়েছে।

printer
সর্বশেষ সংবাদ
সারা দেশ পাতার আরো খবর

Developed by orangebd