ঢাকা : সোমবার, ২৬ আগস্ট ২০১৯

সংবাদ শিরোনাম :

  • ডেঙ্গু এখনো নিয়ন্ত্রণের বাইরে : কাদের          ঈদে হাসপাতালের হেল্প ডেস্ক খোলা রাখার নির্দেশ          নবম ওয়েজ বোর্ডের ওপর হাইকোর্টের স্থিতাবস্থা           বন্দরসমূহের জন্য ৩ নম্বর স্থানীয় সতর্ক সংকেত          দেশের সব ইউনিয়নে হাইস্পিড ইন্টারনেট থাকবে
printer
প্রকাশ : ১০ এপ্রিল, ২০১৯ ১২:০৪:৪৬আপডেট : ১০ এপ্রিল, ২০১৯ ১২:১১:৩১
টেনিস এলবো
ডা. সাহিদুর রহমান খান


 


কুনুই ব্যাথার অন্যতম কারণ টেনিস এলবো, টেনিস খেলোয়াড়দের এই সমস্যা বেশী দেখা দেয় বলে একে টেনিস এলবো বলা হয়। মেডিকেল পরিভাষায় এটাকে ল্যাটারাল ইপিকন্ডালাইটিস বলে ।

এ জাতীয় সমস্যা অন্য খেলোয়াড় ও যাদের হাতের কাজ বেশী করতে হয় এমন পেশার মানুষ যেমন- ক্রিকেটার, গলফার, শিক্ষক, গৃহিনী , সাংবাদিক, ছাত্র তাদেরও এ সমস্যা দেখা দিতে পারে।

 
লক্ষণসমুহ
১. হাতের কনুইয়ে ব্যথা অনুভব হয় ,
২. হাতের নড়াচাড়া বা কাজকর্মে ব্যথা বেড়ে যায়,
৩. ব্যথা কনুই থেকে শুরু হয়ে হাতের আঙ্গুল পর্যন্ত যেতে পারে,
৪. অনেক ক্ষেত্রে রোগী কনুইয়ের জোড়ার ভিতর ব্যথা অনুভব করে,
৫.কনুইয়ের বাহিরের দিকে চাপ দিলে প্রচন্ড ব্যথা অনুভব করে।

দীর্ঘদিন এই অসুখে ভূগলে হাতের মাংপেশীর শক্তি ও হাতের কর্মক্ষমতা কমে আসে, যার ফলে হাত দুর্বল হয়ে যায়।

সাধারণত এই রোগ নির্ণয়ে কোন পরীক্ষা করার প্রয়োজন হয় না, একজন বিশেষজ্ঞ চিকিৎসক ক্লিনিক্যালি এই রোগ নির্নয় করতে পারেন

আমাদের কনুইয়ে থাকে তিনটি অস্থি : ওপরে একটি হিউমেরাস এবং নিচে দুটি রেডিয়াস ও আলনা। হিউমেরাস ও রেডিয়াস অস্থি মধ্যবর্তী সন্ধির ত্রুটির ফলে সৃষ্ট হওয়া উপসর্গ গুচ্ছকে বলা হয় টেনিস এলবো।

টেনিস এলবো রোগে কনুইয়ে আসল ক্ষতির প্রকৃতি এখনও অজানা। তবে ধারণা করা হয়, এতে হিউমেরাসের নিম্ন প্রান্তে সংযুক্ত পেশিবন্ধগুলো আংশিক ছিঁড়ে যেতে পারে, রেডিয়াসের লিগামেন্ট ক্ষয়প্রাপ্ত হতে পারে, রেডিয়াস ও হিউমেরাসের অস্থি-সন্ধিতে প্রদাহ হতে পারে, ওই অঞ্চলে সরবরাহকারী রক্তবাহিকার প্রদাহ হতে পারে। আবার সার্বক্ষণিক মাংসপেশির সংকোচনের ফলে অস্থির আবরণীতেও প্রদাহ হতে পারে। তবে যাই ঘটুক, এতে সৃষ্টি হয় কনুইয়ে ব্যথা।

 

শারিরীক পরীক্ষা
কনুইয়ে ব্যথা ও দুর্বলতা অবশ্য অনেক কারণেই হতে পারে। তবে এটি যে আসলেই টেনিস এলবোজনিত, সেটি বুঝতে একটি পরীক্ষা করা যেতে পারে। প্রথমে কনুইকে সোজা করে, কব্জি পর্যন্ত হাতের অংশকে উপুড় করতে হবে। এ অবস্থায় জোর করে কব্জি ভাঁজ করলে কনুইয়ে ব্যথা অনুভূত হবে। এরপর কব্জি আবার জোর করে উল্টো দিকে ভাঁজ করে শক্তির বিপরীতে কব্জি থেকে কনুই পর্যন্ত চিত করতে গেলে, টেনিস এলবোজনিত ক্ষতে, ব্যথার তীব্রতা ও অস্বস্তির মাত্রা আরও বাড়বে।

এক্সরে
এক্স-রে করে তেমন কিছু বোঝার উপায় নেই, যেহেতু কনুই সংযুক্ত পেশিবন্ধ আংশিক ছিন্ন এবং এক্স-রেতে এটি বোঝার কথা নয়।
তবে ক্ষেত্র বিশেষে ক্ষুদ্র বিচ্ছিন্ন অস্থি-পিণ্ড ও এবড়ো-থেবড়ো অস্থি আবরণী এক্স-রেতে বোঝা যেতে পারে। যা রোগ নির্ণয়ে কখনও কখনও সহায়ক হয়।

চিকিৎসা
টেনিস এলবোর চিকিৎসা খুব কঠিন কিছু নয়।
প্রথমেই প্রাথমিক চিকিৎসা প্রসঙ্গে আসা যাক। কনুইকে একটি নির্দিষ্ট সময়কাল পর্যন্ত বিশ্রাম দিতে হবে। এক্ষেত্রে কনুইকে ইষৎ ভাঁজ অবস্থায় ও কব্জিকে সোজা ও চিত অবস্থায় রেখে হাতের পেছনে কাস্ট বা স্পিলিন্ট ব্যবহার করা যেতে পারে।
সঙ্গে কনুইয়ে হালকা গরম সেঁক দিতে হবে। এ উদ্দেশ্যে শর্ট ওয়েভ ডায়াথার্মীও প্রযুক্ত হতে পারে।
ক্ষেত্র বিশেষে রেডিয়েশন থেরাপিও দেওয়া যায়। সঙ্গে বেদনানাশক ওষুধ চলবে।

আলট্রা-সাউন্ড থেরাপিও ব্যবহৃত হতে পারে। এই প্রাথমিক প্রক্রিয়া অনেক ক্ষেত্রে কার্যকর হলেও উপসর্গের পুনরাবৃত্তি প্রায়ই ঘটকে পারে।

এরপর আসে ম্যানিপুলেশন প্রসঙ্গ। এক্ষেত্রে উদ্দেশ্য থাকে প্রদাহযুক্ত আংশিক ছিন্ন পেশিবন্ধকে টানাহেঁচড়ার মাধ্যমে পুরোপুরি ছিঁড়ে ফেলা, ফলে অনেক ক্ষেত্রে ব্যথার তীব্রতা কমতে পারে।

স্টেরয়েড ইঞ্জেকশন ব্যাবহার করা যায়।

সবশেষে আসে সার্জারি, অর্থাৎ অপারেশন প্রসঙ্গ। অপারেশন তেমন জটিল কোনো প্রক্রিয়া নয়। দ্রুত ও দীর্ঘমেয়াদি উপসর্গ মুক্তির মূল উপায় হলো অপারেশন।
সময় মতো, বিশেষজ্ঞ চিকিৎসকের পরামর্শ গ্রহণ করে, রোগমুক্তি ও স্বাভাবিক কাজকর্মে ফিরে আসা সম্ভব।

 

লেখক : ডাক্তার মোঃ সাহিদুর রহমান খান, কনসালট্যান্ট অর্থোপেডিক সার্জন

ইবনে সিনা মেডিকেল কলেজ হাসপাতাল, কল্যানপুর, ঢাকা

 

printer
সর্বশেষ সংবাদ
স্বাস্থ্য ও জীবন পাতার আরো খবর

Developed by orangebd