ঢাকা : সোমবার, ২০ মে ২০১৯

সংবাদ শিরোনাম :

  • পণ্য মজুদ আছে, রমজানে পণ্যের দাম বাড়বে না : বাণিজ্যমন্ত্রী          বঙ্গবন্ধুর খুনিদের দেশে ফিরিয়ে আনতে চায় সরকার          অর্থনৈতিক উন্নয়নে সব ব্যবস্থা নিয়েছি : প্রধানমন্ত্রী          বনাঞ্চলের গাছ কাটার ওপর ৬ মাসের নিষেধাজ্ঞা          দেশের সব ইউনিয়নে হাইস্পিড ইন্টারনেট থাকবে
printer
প্রকাশ : ১২ এপ্রিল, ২০১৯ ১৩:২৭:৫২আপডেট : ১৬ এপ্রিল, ২০১৯ ১০:৫৯:০০
নুসরাত হত্যার বিচার করতে ৭ দিনের আল্টিমেটাম
টাইমওয়াচ রিপোর্ট

 

নুসরাত জাহান রাফিকে পুড়িয়ে হত্যার ঘটনায় নিপীড়নকারী অধ্যক্ষ সিরাজ উদ দৌলাসহ এ ঘটনায় জড়িত তার সন্ত্রাসী বাহিনীর প্রত্যেক সদস্যের সর্বোচ্চ শাস্তির দাবিতে যৌন নিপীড়ন ও ধর্ষণবিরোধী পদযাত্রা করে গৌরব’৭১ নামক একটি সংগঠন।
১২ এপ্রিল শুক্রবার সকালে গৌরব ৭১-এর আহ্বানে এ পদযাত্রার আয়োজন করা হয়।
পদযাত্রা শেষে জাতীয় শহীদ মিনারে গৌরব’৭১ এর সাধারণ সম্পাদক এফ এম শাহীন নুসরাত হত্যার বিচারের জন্য সাতদিনের সময় বেধে দেন। এই সাতদিনের মধ্যে বিচার না হলে জাতীয় সংসদ ভবন অভিমুখে পদযাত্রার ঘোষণা দিয়েছে সংগঠনটি।
তিনি বলেন, নুসরাত জাহান রাফির হত্যাকারীদের সর্বোচ্চ শাস্তি দিতে হবে। না হলে এমন অপরাধ হতেই থাকবে। আমরা চাই এরপর আর কোনো ধর্ষণ না হোক। আগামী সাত দিনের মধ্যে এই ঘটনার বিচার না হলে আমরা জাতীয় সংসদ ভবন অভিমুখে পদযাত্রা করবো।
এর আগে শাহবাগে সংক্ষিপ্ত সমাবেশে বক্তারা যৌন হয়রানির অভিযোগ করায় আগুনে পুড়িয়ে নুসরাত জাহান রাফিকে হত্যার প্রতিবাদ এবং অধ্যক্ষ সিরাজ উদ দৌলাসহ জড়িতদের সর্বোচ্চ শাস্তির দাবি জানান।নুসরাত হত্যার বিচার করতে ৭ দিনের আল্টিমেটাম
গণমাধ্যম ব্যক্তিত্ব সৈয়দ ইশতিয়াক রেজা বলেন, ২০০৬ সাল থেকে অধ্যক্ষ সিরাজ উদ দৌলা একের পর এক অপকর্ম করে আসছে। এই ঘটনার পর স্থানীয় কিছু ব্যক্তির ভূমিকা বিশেষ করে সোনাগাজী থানার ওসির ভূমিকা প্রমাণ করে যে, স্থানীয় একটি সংঘবদ্ধ চক্র ধর্ষককে প্রশ্রয় দিয়েছিল। আমরা এ সংঘবদ্ধ চক্রের বিচার চাই। আর যারা তাদেরকে প্রশ্রয় দিচ্ছে তারা শুধু ব্যক্তিগতভাবে প্রধানমন্ত্রীর নির্দেশ উপেক্ষা করছে না বরং তারা দেশের বিরুদ্ধেও অবস্থান নিয়েছে।
ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের উপ-উপাচার্য ড. আবদুস সামাদ বলেন, একাত্তরের জামায়াত নেতাদের সহযোগী অধ্যাপক সিরাজ উদ দৌলার মত ব্যক্তিরা আজও সমাজে উপস্থিত। এমন ঘটনা দেখে আমরা শিউরে উঠি। এমনটা মোটেও কাম্য নয়। এমন ঘটনায় জড়িত সবার বিচারের পাশাপশি যারা এদেরকে আশ্রয় দেয়, মদদ দেয় তাদেরকেও বিচারের আওতায় আনতে হবে। কারণ তারাও সমান অপরাধী।
আয়োজক সংগঠনের সাধারণ সম্পাদক এফ এম শাহীনের সভাপতিত্বে সমাবেশে আরও বক্তব্য রাখেন পূর্ণিমা ফাউন্ডেশনের চেয়ারম্যান পূর্ণিমা রানী, সম্মিলিত সাংস্কৃতিক জোটের সভাপতি গোলাম কুদ্দুস, ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষক রোবায়েত ফেরদৌস, গণজাগরণ মঞ্চের নেতা বাপ্পাদিত্য বসু, ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের রোকেয়া হল ছাত্রলীগের সাধারণ সম্পাদক শ্রাবণী ইসলাম, রোকেয়া হল সংসদের এজিএস ফাল্গুনী দাস তন্বী প্রমুখ।

printer
সর্বশেষ সংবাদ
সারা দেশ পাতার আরো খবর

Developed by orangebd