ঢাকা : সোমবার, ১৬ সেপ্টেম্বর ২০১৯

সংবাদ শিরোনাম :

  • পবিত্র আশুরা ১০ সেপ্টেম্বর          ডিএসসিসির ৩,৬৩১ কোটি টাকার বাজেট ঘোষণা          রপ্তানি বাজার সম্প্রসারণের তাগিদ প্রধানমন্ত্রীর          সংলাপের জন্য ভারতকে ৫ শর্ত দিল পাকিস্তান          এরশাদের শূন্য আসনে ভোট ৫ অক্টোবর          বাংলাদেশে আইএস বলে কিছু নেই : হাছান মাহমুদ
printer
প্রকাশ : ১৮ এপ্রিল, ২০১৯ ১৭:৩৮:১২আপডেট : ১৮ এপ্রিল, ২০১৯ ১৭:৩৯:৪১
প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার ব্রুনাই সফর ২১-২৩ এপ্রিল
রুপম আক্তার


 

মাননীয় প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা ব্রুনেই এর সুলতান মহামহিম হাজীহাসানাল বল্কিয়াহ এর আমন্ত্রণে আগামী ২১-২৩ এপ্রিল২০১৯ ব্রুনেই-এ সরকারি সফর করবেন।
 
প্রধানমন্ত্রীর নেতৃত্বে বাংলাদেশ প্রতিনিধিদলে পররাষ্ট্রমন্ত্রী এ কে আবদুল মোমেন, কৃষিমন্ত্রী, যুব ও ক্রীড়ামন্ত্রী, বিদ্যুৎ, জ্বালানী ও খনিজ সম্পদ মন্ত্রী, মৎস ও প্রাণিসম্পদ মন্ত্রী এবং সংস্কৃতি বিষয়ক প্রতিমন্ত্রীগণসহ উচ্চপর্যায়ের সংশ্লিষ্ট সরকারী কর্মকর্তাবৃন্দ অন্তর্ভুক্ত থাকবেন। এছাড়া দেশের শীর্ষ ব্যবসায়ীদের সমন্বয়ে গঠিত একটি ব্যবসায়ী প্রতিনিধিদলও মাননীয় প্রধানমন্ত্রীর সফরসঙ্গী হবেন।
 
১৮ এপ্রিল বৃহস্পতিবার এক সংবাদ সম্মেলনে প্রধানমন্তী শেখ হাসিনা ব্রুনাই সফর সম্পর্কে এসব তথ্য জানান পররাষ্ট্রমন্ত্রী এ কে আবদুল মোমেন।
তিনি জানান, ব্রুনেই সফরকালে প্রধানমন্ত্রী ব্রুনেই এর রাজপরিবারের সাথে শুভেচ্ছা বিনিময়, ব্রুনেই-এর সুলতানের সাথে আনুষ্ঠানিক দ্বিপাক্ষিক বৈঠক, ও তাঁর সম্মানে আয়োজিত রাষ্ট্রীয় নৈশভোজে অংশগ্রহণ করবেন। এছাড়া প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা ব্রুনেই সরকার ও ব্যবসায়ী সংগঠন কর্তৃক আয়োজিত বাণিজ্য-বিনিয়োগ সেমিনারে প্রধান অতিথি হিসেবে বক্তব্য প্রদান ও প্রবাসী বাংলাদেশীদের জন্য আয়োজিত একটি মতবিনিময় সভায় অংশগ্রহণ করবেন। প্রধানমন্ত্রী এই সফরে বাংলাদেশ হাইকমিশনের নির্মিতব্য নতুন চ্যান্সেরি ভবনের ভিত্তি প্রস্তর স্থাপন করবেন।
 
পররাষ্ট্রমন্ত্রী বলেন, ব্রুনেই ১৯৮৪ সালে স্বাধীনতা লাভের অব্যবহিত পর দু’দেশের মধ্যে কূটনৈতিক সম্পর্ক স্থাপিত হয়। মাননীয় প্রধানমন্ত্রীর উদ্যোগে গত ১৯৯৭ সালে ব্রুনেই এ বাংলাদেশের কূটনৈতিক মিশন পুনঃস্থাপনের পর হতে দু’দেশের মধ্যে বন্ধুত্বপূর্ণ সম্পর্ক ও পারস্পরিক সহযোগিতা উত্তরোত্তর বৃদ্ধি পেয়েছে। বিশেষতঃ বিগত এক দশকে ব্রুনেই এর সাথে বিভিন্ন ক্ষেত্রে দ্বিপাক্ষিক সহযোগিতা উল্লেখযোগ্য হারে বৃদ্ধি পেয়েছে।  বর্তমান বিশ্ব পরিস্থিতি এবং দু’দেশের উন্নয়ন লক্ষ্যমাত্রা ও অর্থনীতির বৈশিষ্ট্যসমূহ দ্বিপাক্ষিক সহযোগিতার নতুন নতুন ক্ষেত্র উম্মোচিত করছে। ব্রুনেই ‘ভিশন ২০৩৫’-এর আওতায় গৃহীত উন্নয়ন কর্মসুচী বাস্তবায়নে বন্ধু রাষ্ট্রসমূহের সাথে অর্থনীতির বহুমুখীকরণ, খাদ্য নিরাপত্তা নিশ্চিতকরণ, মানবসম্পদ উন্নয়ন, অবকাঠামো নির্মাণ, স্বাস্থ্যসেবা,জ্বালানী ইত্যাদি খাতে পারস্পরিক সহযোগিতা বৃদ্ধিতে আগ্রহী। জ্বালানী সম্পদে সমৃদ্ধ উচ্চ আয়ের দেশ ব্রুনেই-এর সাথে বিভিন্ন ক্ষেত্রে দ্বিপাক্ষিক সহযোগিতা স্থাপনের মধ্যে দিয়ে দু’দেশই ব্যাপকভাবে লাভবান হতে পারে।
 
তিনি আরও বলেন, প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার এ সফরেবিভিন্ন ক্ষেত্রে দ্বিপাক্ষিক সহযোগিতার বিষয়ে আলোচনার পাশাপাশি নিম্নবর্ণিত সমঝোতা স্মারকসমূহ স্বাক্ষরিত হওয়ার সম্ভাবনা রয়েছে-
 
(ক) কৃষিখাতেবৈজ্ঞানিকএবংপ্রযুক্তিগতসহযোগিতাবিষয়কসমঝোতা স্মারক
(খ) সংস্কৃতিএবংশিল্পসহযোগিতাবিষয়কসমঝোতা স্মারক
(গ) যুবএবংক্রীড়াসহযোগিতাবিষয়কসমঝোতা স্মারক
(ঘ)মৎস্যখাতেসহযোগিতাবিষয়কসমঝোতা স্মারক
(ঙ) পশুসম্পদখাতেসহযোগিতাবিষয়কসমঝোতা স্মারক
(চ) জ্বালানী ক্ষেত্রে সহযোগিতা বিষয়ক সমঝোতা স্মারক
 
এছাড়াও, এ সফরে কূটনৈতিক ও সরকারী পাসপোর্ট বহনকারীদের পারষ্পরিক ভিসা অব্যাহতির লক্ষ্যে কূটনৈতিক পত্র বিনিময় হতে পারে।
 
পররাষ্ট্রমন্ত্রী বলেন, প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার এ সফর দু’দেশের মধ্যে বন্ধুত্বপূর্ণ সম্পর্ক দৃঢ়তর করার পাশাপাশি জ্বালানী, বাণিজ্য, বিনিয়োগ, কৃষি, খাদ্য, বিমান যোগাযোগ, মানবসম্পদ উন্নয়ন, পর্যটন ও কারিগরি সহায়তা ইত্যাদি ক্ষেত্রে দ্বিপাক্ষিক সহযোগিতা সম্প্রসারণে বিশেষ অবদান রাখবে। রোহিঙ্গাসমস্যাসহবিভিন্ন আঞ্চলিক ও আন্তর্জাতিক গুরু্ত্বপূর্ণ ইস্যুতে ব্রুনেই ও আসিয়ান সদস্য দেশসমূহের কার্যকর সমর্থন আদায়ে এ সফর উল্লেখযোগ্য ভূমিকা রাখবে। এছাড়াও এ সফর দক্ষিণ-পূর্ব এশিয়ার দেশগুলির সংগঠন আসিয়ানের সাথে বাংলাদেশের সম্পর্ক উন্নয়ন ও কার্যকর সহযোগিতা বৃদ্ধিতে বিশেষ ভূমিকা রাখবে বলে আশাবাদ ব্যক্ত করেন তিনি।

printer
সর্বশেষ সংবাদ
জাতীয় পাতার আরো খবর

Developed by orangebd