ঢাকা : বুধবার, ২১ আগস্ট ২০১৯

সংবাদ শিরোনাম :

  • ডেঙ্গু এখনো নিয়ন্ত্রণের বাইরে : কাদের          ঈদে হাসপাতালের হেল্প ডেস্ক খোলা রাখার নির্দেশ          নবম ওয়েজ বোর্ডের ওপর হাইকোর্টের স্থিতাবস্থা           বন্দরসমূহের জন্য ৩ নম্বর স্থানীয় সতর্ক সংকেত          দেশের সব ইউনিয়নে হাইস্পিড ইন্টারনেট থাকবে
printer
প্রকাশ : ২৫ মে, ২০১৯ ১৩:৫৩:৩০
রমজানে ব্যয়াম
প্রফেসর ডা. আলতাফ সরকার


 


বিভিন্ন গবেষণায় বলা হয়েছে, কোনো ধরনের ফিজিক্যাল এক্সারসাইজ ছাড়া রমজানে একটানা ৩০ দিন রোজা রাখার ফলে মাংশপেশীর স্ট্রেন্থ ও ফিজিক্যাল ফিটনেস কমে যায়। সুতরাং রমজান মাসে হেলদি থাকার জন্য রোজা রাখার পাশাপাশি আমাদের প্রত্যেকেরই ফিজিক্যাল এক্সারসাইজ করা প্রয়োজন। শারীরিক প্রতিবন্ধকতা না থাকলে হাঁটা, সাঁতারকাটা, সাইকেল চালানো ইত্যাদি এক্সারসাইজ করা যেতে পারে। ব্যয়ামের সময় উপযুক্ত কাপড় নির্বাচন করতে হবে ও শ্বাস-প্রশ্বাস স্বাভাবিক রাখতে হবে। যারা নিয়মিত হাঁটেন তারা সকালের দিকেই কিছুক্ষণ হাঁটতে পারেন। রোজা রেখে বিকালের দিকে না হাঁটাই ভালো। কারণ এ সময় রক্তে শর্করার পরিমাণ কমে যায়। অধিক বা অতিরিক্ত এক্সারসাইজ করলে শর্করার পরিমাণ আরও কমে যেতেই পারে। সুতরাং এক্সারসাইজ করতে চাইলে হালকা এক্সারসাইজ করা উচিত। যে এক্সারসাইজ গুলো করলে খুব বেশি ঘাম হয় সেগুলো এই গরমে না করাই ভালো। খুব বেশি ভারী ওজন তুলে এক্সারসাইজ করা উচিৎ  হবে না। রমজানে অনেকেই দীর্ঘ সময় শুয়ে থাকেন। এক্ষেত্রে কোমরের মাংসপেশী দুর্বল হয়ে যায়। সুতরাং দীর্ঘ বিশ্রাম পরিহার করুন। শারীরিক ব্যথা মুক্ত থাকার জন্য কিছু এক্সারসাইজ নিয়মিত করুন। যেমন
কোমরের মাইল্ড স্ট্রেচিং- চিৎ হয়ে শুয়ে দু’পা ভাজ করে বুকের দিকে টানুন ৫-১০ বার, চিৎ হয়ে শুয়ে পেটের মাংশ শক্ত করুন এবং ১০ সেকেন্ড ধরে রাখুন ১০-১৫ বার। চিৎ হয়ে শুয়ে হাঁটু ও হিপ জয়েন্ট ভাজ করে উপরের দিকে ধরে রাখুন ৫ সেকেন্ড করে ৫-১০ বার। দীর্ঘ সময় সামনে ঝুকে কাজ করবেন না। নামাজে সালাম ফিরানোর সময় ঘাড় পূর্ণ ডান ও বাম দিকে ঘুরাবেন ও নিচে-উপরে তাকাবেন। চিৎ হয়ে শুয়ে দুই হাত মাথার পিছনে দিয়ে কনুই বিছানার সাথে লাগানোর চেষ্টা করুন। বুক ফুলিয়ে নাক দিয়ে শ্বাস নিন ও মুখ দিয়ে ছাড়ুন ৪-৫ বার। আপনার হাঁটুকে পূর্ণ সোজা ও বাঁকা করুন, হাঁটু সোজা রেখে বিছানার দিকে চাপ দিন। পা সোজা রেখে পায়ের তালুতে তোয়ালে দিয়ে আঙ্গুল আপনার দিকে টানুন। এছাড়াও যারা ঘাড়, কাঁধ, গোড়ালি ও অনান্য জয়েন্টের সমস্যায় আগে থেকেই ভুগছেন বা রমজানে সমস্যা দেখা দিয়েছে সেক্ষেত্রে একজন মাস্কুলোস্কেলিটাল ডিজঅর্ডারস বিশেষজ্ঞের পরামর্শ নিন। যাদের ডায়াবেটিস, উচ্চ রক্তচাপ, হার্টের সমস্যার জন্য এক্সারসাইজ করা প্রয়োজন তারা ইফতারির পরে বা তারাবির নামাজের পূর্বে অথবা তারাবির পর বা ঘুমানোর পূর্বে হালকা এক্সারসাইজ করতে পারেন। ৩০ মিনিটের বেশী এক্সারসাইজ করা সঠিক নয়। এবারের রমজান যেহেতুু গরমের সময়, সেক্ষেত্রে কম তাপমাত্রার পরিবেশে এক্সারসাইজ করুন। ইফতার ও সেহরীর সময় প্রচুর পানি, ফ্লুইড, সল্ট এবং মিনারেল জাতীয় খাবার খান। ইফতারের সময় বেশি ঠান্ডা পানি পান করবেন না। মহানবী হযরত মুহাম্মদ (সাঃ) ব্যথা নিরাময়ে কিছু প্রাকৃতিক ঔষধের কথা বলেছেন। যেমনÑ খেজুর, কালো জিরা, ওলিভ ওয়েল, তরমুজ, চেরী ফল, কালো আঙ্গুর, কলা ইত্যাদি খাবার বেশি খান এসব খাবার ব্যথা নিরাময়ে সাহায্য করে। ধূমপান বর্জন করুন। মনে রাখবেন, এক্সারসাইজ অনেক প্রকার অসুস্থতার কষ্ট থেকে সুস্থ থাকতে সাহায্য করে। এক্সারসাইজ ইজ মেডিসিন ফর টুডে অ্যান্ড টুমোরো। এক্সারসাইজ শরীরের রক্ত সঞ্চালন বাড়ায়, জয়েন্ট সম্পর্কীয় বিভিন্ন ব্যথা দূর করে, দুশ্চিন্তা বা ডিপ্রেশন কমিয়ে মানসিক প্রশান্তি এনে দেয়। ব্যথামুক্ত জীবণ যাপন করুন এবং রমজানে সুস্থ থাকুন।
লেখক : প্রফেসর ডা. আলতাফ সরকার
মাস্কুলোস্কেলিটাল ডিজঅর্ডারস বিশেষজ্ঞ
লেজার ফিজিওথেরাপি সেন্টার
৪৪/৮, পশ্চিম পান্থপথ, ঢাকা।  ফোন : ০১৭৬৫ ৬৬৮৮৪৬

printer
সর্বশেষ সংবাদ
স্বাস্থ্য ও জীবন পাতার আরো খবর

Developed by orangebd