ঢাকা : সোমবার, ০৬ জুলাই ২০২০

সংবাদ শিরোনাম :

  • এইচএসসি পরীক্ষায় বিষয় সংখ্যা কমানোর চিন্তা চলছে : শিক্ষামন্ত্রী          কোরোনায় আরও ৩৪ জনের মৃত্যু, শনাক্ত ৩৫০৪ জন          যুক্তরাষ্ট্র আর লকডাউন হবে না : ট্রাম্প          করোনাভাইরাস সারাবিশ্বটাকে স্থবির করে দিয়েছে : হাসিনা          স্ত্রীসহ হাসপাতালে ভর্তি মুক্তিযুদ্ধবিষয়ক মন্ত্রী          করোনায় ক্ষতিগ্রস্তদের ব্যাংক ঋণের ২ হাজার কোটি টাকা সুদ মওকুফ ঘোষণা
printer
প্রকাশ : ২৬ ডিসেম্বর, ২০১৯ ১৮:০০:৫৭আপডেট : ২৮ ডিসেম্বর, ২০১৯ ১৮:০৭:২২
মৎস্য চাষে নবদিগন্ত সূচনা করতে চায় বাংলাদেশ ফিশ ফারমারস এ্যাসোসিয়েশন


 

দেশের মৎস্য চাষে নবদিগন্ত সূচনা করতে কাজ করছেন বাংলাদেশ ফিশ ফারমারস এ্যসোসিয়েশন।এ লক্ষ্যে আগামী ৩ জানুয়ারী বাংলাদেশ মৎস্য গবেষণা ইন্সটিটিউটে তিন শতাধিক চাষীর অংশ গ্রহনে এক প্রশিক্ষণ কর্মশালা ও বর্ণাঢ্য চাষি সম্মেলনের আয়োজন করা হয়েছে। ওই কর্মশালায় নেদারল্যান্ডের এক অভিজ্ঞ প্রশিক্ষক অংশ গ্রহণ করবেন। মঙ্গলবার এক প্রেস বিজ্ঞপ্তিতে এমন তথ্য জানান বাংলাদেশ ফিশ ফারমারস এ্যসোসিয়েশনের সাধারন সম্পাদক জনাব আহসানুল আলম জন।বিজ্ঞপ্তিতে তিনি জানান, প্রান্তিক পর্যায়ের খামারিদের একটা প্লাটফর্মে এনে অধিকার প্রতিষ্ঠা এবং সিন্ডিকেট মুক্ত মৎস্য খামার পরিচালনার মাধ্যমে দেশের কৃষি নির্ভর অর্থনীনিতিতে মৎস্য সেক্টরকে আরো উচ্চতর অবস্থানে নিয়ে যাওয়াই ফিশ ফারমারস এ্যসোসিয়েশনের মূল লক্ষ্য।কারণ বিশ্ব দরবারে বাংলাদেশকে মৎস্য চাষের এক গুরুত্বপূর্ন দেশ হিসেবে মূল্যায়ন করা হয়।ফলে দেশের আর্থ-সামাজিক উন্নয়ন, খাদ্য ও পুষ্টি নিরাপত্তা, বৈদেশিক মুদ্রা আহরণ, কর্মসংস্থান সৃষ্টির মধ্য দিয়ে মৎস্য সেক্টর দেশের এক সম্ভাবনাময় খাত হিসাবে ইতিমধ্যে স্বীকৃতি পেয়েছে।কিন্তু রেণু উৎপাদনে সঠিক মান নিয়ন্ত্রন জ্ঞানের অদক্ষতা ও মাছের খাবার তৈরীতে মানসম্পন্ন কাচাঁমাল ব্যবহার না করার কারণে প্রায়ই ক্ষতিগ্রস্থ হচ্ছেন প্রান্তিক চাষী ও খামারীরা।ফলে মৎস্য খাতে নবদিগন্তের সূচনা করতে হলে এই দুটি বিষয় জবাবদিতার পর্যায়ে আনা এখন সময়ের দাবি।কিন্তু সম্ভাবনাময় এ মৎস সেক্টরকে আঞ্চলিক ভাবে বিভক্ত করে একটি সুবিধাবাদী মহল নিজেদের প্রভাব সৃষ্টি করার জন্য ষড়যন্ত্রে লিপ্ত রয়েছে বলেও দাবি একাধিক সূত্রের।অভিযোগ উঠেছে, ময়মনসিংহ অঞ্চলের গুটি কয়েক তথাকথিত হ্যাচারি মালিক যাদের মানসম্মত পোনা উৎপাদন নিয়ে যথেষ্ট সন্দেহ আছে তারা এই সম্মেলন বাঁধাগ্রস্থ করতে নেপথেঞ্য কলকাঠি নাড়ছে।যা দেশের মৎস্য বিপ্লবে প্রতিবন্ধকতার শামিল।বাংলাদেশ ফিশ ফারমারস এ্যাসোসিয়েশনের সাধারন সম্পাদক আহসানুল আলম জন বলেন,  ১৯৭২ সালে সামুদ্রিক মৎস্য আহরণের জন্য জাতির জনক বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান উদ্যোগ গ্রহন করে বলেন ‘মাছ হবে দেশের দ্ধিতীয় প্রধান বৈদেশিক মুদ্রা অর্জনকারী সম্পদ। জাতির জনকের সেই স্বপ্ন বাস্তবায়নের মাধ্যমে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার হাতকে শক্তিশালী করতে সিন্ডিকেটমুক্ত মৎস্য সেক্টর গড়ে তোলার জন্যই এ প্রশিক্ষণ কর্মশালা ও বর্ণাঢ্য চাষি সম্মেলনের আয়োজন করা হয়েছে।আশা করছি খামারীদের সাথে একমত পোষন করে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার হাতকে শক্তিশালী করতে সবাই এগিয়ে আসবেন। সংবাদ বিজ্ঞপ্তি।

printer
সর্বশেষ সংবাদ
সারা দেশ পাতার আরো খবর

Developed by orangebd