ঢাকা : বুধবার, ২৩ সেপ্টেম্বর ২০২০

সংবাদ শিরোনাম :

  • আগের ভাড়ায় ফিরেছে গণপরিবহন          খ্যাতিমান কথা সাহিত্যিক সাংবাদিক রাহাত খান আর নেই          ২০২০ অর্থবছরে জিডিপি প্রবৃদ্ধি হার হয়েছে ৫.২৪ শতাংশ : বিবিএস          ভ্যাট পরিশোধ করা যাবে অনলাইনে
printer
প্রকাশ : ০৬ এপ্রিল, ২০২০ ০১:৫৮:৩৪
তাহমিনা ইয়াসমিন বাঁচতে চান, প্রয়োজন ২৫ লাখ টাকা
যশোর সংবাদদাতা


 

ক্যান্সারে আক্রান্ত তাহমিনা ইয়াসমিনের চিকিৎসা ব্যয়ে প্রয়োজন ২৫ লাখ টাকা।তার পরিবারের একমাত্র উপার্জনক্ষম ব্যক্তি তার স্বামী মো. আনিছুর রহমানের পক্ষে এই বিশাল অঙ্কের টাকা জোগাড় করা অসাধ্য হয়ে দাঁড়িয়েছে।
 
গত বছরের নভেম্বরে ব্রেস্ট ক্যান্সারে আক্রান্তের খবর জানতে পারেন তাহমিনা ইয়াসমিন। এরপর থেকেই অপারেশনসহ যাবতীয় চিকিৎসায় প্রায় তিনলাখ টাকা খরচ হয় তাহমিনার পরিবারের। চিকিৎসা ব্যয়ে প্রয়োজন আরো ২৫ লাখ টাকা।
তাহমিনা ইয়াসমিন যশোর শহরের রেলগেট ষষ্ঠীতলা এলাকার বাসিন্দা। তিনি যশোরের মধুসূদন তারা প্রসন্ন উচ্চ বালিকা বিদ্যালয় ও যশোর ক্যান্টনমেন্ট কলেজের শিক্ষার্থী ছিলেন।
 
গত নভেম্বরে গ্রিন লাইফ হাসপাতালের সার্জন অধ্যাপক ডা. নিশাত বেগম তাহমিনার ব্রেস্ট ক্যান্সার শনাক্ত করেন। পরে ল্যাব এইড হাসপাতালের অধ্যাপক ডা. খাদেমুল ইসলামের তত্ত্বাবধানে ৭ ডিসেম্বর ব্রেস্ট অপারেশন (মাস্টেকটমী) করানো হয়। অপারেশনসহ যাবতীয় চিকিৎসায় প্রায় তিন লাখ টাকা ব্যয় হয়। এক মাস ডা. খাদেমুলের তত্ত্বাবধানে থাকার পর বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিব মেডিকেল বিশ্ববিদ্যালয়ের (বিএসএমএমইউ) অনকোলজি বিভাগে রেফার্ড করা হয় তাকে।
 
অনকোলজি বিভাগের চেয়ারম্যান ডা. মো. সারোয়ার আলম ও ডা. রিফাত সব রিপোর্ট পর্যবেক্ষণ করেন। “হার-২ পজিটিভ” হওয়ায় আরও উন্নত চিকিৎসার জন্য আটটি কেমোথেরাপি, আটটি রেডিওথেরাপি ও ১৭টি এন্টিবডির (হরমোন থেরাপি) প্রয়োজন হবে বলে জানান চিকিৎসকরা। যার একটির মূল্য প্রায় এক লাখ টাকা। এ ছাড়াও বিভিন্ন ধরনের রিপোর্ট (প্রতিবার কেমোথেরাপি দেওয়ার আগে ও পরে) করাতে হবে। তাতে আরও দুই থেকে তিন লাখ টাকাসহ প্রায় পঁচিশ লাখ টাকার প্রয়োজন হবে।
 
এর মধ্যে ডা. মো. সারোয়ার আলম ও ডা. রিফাতের তত্ত্বাবধানে চলতি বছরের ৮ জানুয়ারি প্রথম কেমোথেরাপি দেওয়া হয় তাহমিনাকে। বর্তমানে চারটি কেমোথেরাপি শেষ হয়েছে। পঞ্চম কেমোথেরাপি দেওয়ার তারিখ আগামী ৩১ মার্চ।
 
তাহমিনার পরিবারের একমাত্র উপার্জনক্ষম ব্যক্তি তার স্বামী মো. আনিছুর রহমান। তার একার পক্ষে এই বিশাল ব্যয় বহন করা কোনোভাবেই সম্ভব না হওয়ায় চরম হতাশাগ্রস্তহয়ে পড়েছেন তাহমিনা ও তার পরিবার। আর তাই কোনো উপায় না পেয়েসমাজের হৃদয়বান ও বিত্তবানদের এগিয়ে আসার আহ্বান জানিয়েছেন তারা।
তাহমিনা ইয়াসমিনের চিকিৎসায় কেউ সহায়তা করতে চাইলে—
বিকাশ নম্বর : ০১৭২৯৭২২৮৬৩ (পার্সোনাল)
Bank : DBBL,Dhanmondi, Dhaka; A/C No :1101510078593, Name :TahaminaYesmin

 

printer
সর্বশেষ সংবাদ
সারা দেশ পাতার আরো খবর

Developed by orangebd