ঢাকা : বৃহস্পতিবার, ২৪ সেপ্টেম্বর ২০২০

সংবাদ শিরোনাম :

  • আগের ভাড়ায় ফিরেছে গণপরিবহন          খ্যাতিমান কথা সাহিত্যিক সাংবাদিক রাহাত খান আর নেই          ২০২০ অর্থবছরে জিডিপি প্রবৃদ্ধি হার হয়েছে ৫.২৪ শতাংশ : বিবিএস          ভ্যাট পরিশোধ করা যাবে অনলাইনে
printer
প্রকাশ : ০১ সেপ্টেম্বর, ২০২০ ১৪:১৬:৪৩
ফ্যাক্টরিং-বাংলাদেশের জন্য আন্তর্জাতিক বাণিজ্যিক অর্থায়ন
টাইমওয়াচ রিপোর্ট


 


ইন্টারন্যাশনাল বিজনেস ফোরাম অব বাংলাদেশ (আইবিএফবি) জুম ভার্চুয়াল কনফারেন্সের মাধ্যমে "ফ্যাক্টরিং - বাংলাদেশের জন্য আন্তর্জাতিক বাণিজ্যিক অর্থায়ন" শীর্ষক একটি ওয়েবিনারের আয়োজন করে।
৩১ আগস্ট সোমবার অনুষ্ঠিত এ কনফারেন্সে প্রধানমন্ত্রীর অর্থনৈতিক বিষয়ক উপদেষ্টা ড: মশিউর রহমান ওয়েবিনারে প্রধান অতিথি হিসাবে উপস্থিত ছিলেন। থম্পসন লুই, আঞ্চলিক পরিচালক, দক্ষিণ ও দক্ষিণ-পূর্ব এশিয়া, ওপেন অ্যাকাউন্টের সহজতরকরণ – রিসিভিয়েবল ফিনান্স, ফ্যাক্টরিং চেইন ইন্টারন্যাশনাল (এফসিআই), নেদারল্যান্ডস, সন্মানীত অতিথি হিসাবে উপস্থিত ছিলেন।
ড: প্রশান্ত কুমার বন্দ্যোপাধ্যায়, বাংলাদেশ গবেষণা ইনস্টিটিউট অফ ব্যাংক ম্যানেজমেন্ট (বিআইবিএম) এর পরিচালক (গবেষণা, উন্নয়ন ও পরামর্শ) ওয়েবিনারে মূল প্রবন্ধ পাঠ করেন।
এম. এস. সিদ্দিকী, আইনী অর্থনীতিবিদ ও ভাইস প্রেসিডেন্ট, ইন্টারন্যাশনাল বিজনেস ফোরাম অব বাংলাদেশ (আইবিএফবি), হেলাল আহমেদ চৌধুরী, আইবিএফবির অর্থনৈতিক উন্নয়ন কমিটির চেয়ারম্যান, ও প্রাক্তন সুপারনুুমিরারি প্রফেসর, বাংলাদেশ ইনস্টিটিউট অফ ব্যাংক ম্যানেজমেন্ট (বিআইবিএম) এবং সৈয়দ মাহবুবুর রহমান, ব্যবস্থাপনা পরিচালক ও প্রধান নির্বাহী কর্মকর্তা, মিউচুয়াল ট্রাস্ট ব্যাংক লিমিটেড মনোনীত আলোচক হিসাবে বক্তব্য রাখেন।
আইবিএফবি সভাপতি এবং এনার্জিপ্যাক পাওয়ার জেনারেশন লিমিটেডের ব্যবস্থাপনা পরিচালক ও প্রধান নির্বাহী কর্মকর্তা জনাব হুমায়ুন রশীদ ওয়েবিনারটির চেয়ারপার্সন ছিলেন।
উদ্বোধনী বক্তব্যে আইবিএফবি সভাপতি হুমায়ুন রশিদ বলেন, ফ্যাক্টরিং সেবার জন্য বাংলাদেশ ব্যাংক একটি বিধি জারি করেছে। সমস্ত স্টেকহোল্ডারগণ বাংলাদেশ ব্যাংক কর্তৃক প্রদত্ত বিধি সম্পর্কে আলোচনা করছে এবং রপ্তানি বাণিজ্য, ফিনান্স এবং অন্যান্য রপ্তানি বাণিজ্য অর্থের নতুন পণ্য এবং রফতানি অর্থের মসৃণ প্রত্যাবাসন যথাযথভাবে ব্যবহারের জন্য বিশ্বব্যাপী সংযোগের এই জাতীয় সংহতকরণের উপর জড়িত থাকার বিষয়টিতে এর অন্তর্নিহিততার বিষয়ে আলোচনা করেছে। আইবিএফবি হ'ল প্রথম ট্রেড অ্যাসোসিয়েশন যা আজকের ওয়েবিনারের আযয়োজন করে এবং সেন্ট্রাল ব্যাংক, বাণিজ্যিক ব্যাংকসমূহের সমস্ত স্টেকহোল্ডারকে বাংলাদেশে অফিসে থাকা কিছু দেশের ফ্যাক্টরিং সার্ভিস প্রোভাইডার এবং রপ্তানিকারককে বাংলাদেশের ফ্যাক্টরিং চালু করার জন্য বাংলাদেশ ব্যাংকের গতিশীল পদক্ষেপের বিষয়ে আলোচনা করার জন্য আমন্ত্রণ জানিয়েছিল।
তিনি জানান, আন্তর্জাতিক বাণিজ্য অর্থনীতির অন্যান্য অর্থনৈতিক কর্মকাণ্ডের পাশাপাশি রপ্তানি ও আমদানিতে দ্রুত বৃদ্ধি নিয়ে বাংলাদেশে ক্রমবর্ধমান চাহিদা দেখা গেছে। ২০২১ সাল নাগাদ বাংলাদেশের আনুমানিক ৫০ বিলিয়ন মার্কিন ডলার রপ্তানির লক্ষ্যমাত্রা রয়েছে। দেশীয় ব্যাংকিং ব্যবস্থার সীমিত সংস্থান থাকলেও এটি বৈশ্বিক ব্যাংকিং সিস্টেম থেকে অর্থ সংগ্রহ করতে পারে। মজার বিষয় হল, এই অর্থের কোনও সুরক্ষা বন্ধক প্রয়োজন হয় না। নীতিনির্ধারক এবং নিয়ন্ত্রকদের বিদ্যমান বাণিজ্য বিধিমালার সংশোধন করা উচিত এবং বন্ধক ছাড়াই আধুনিক ও সাশ্রয়ী অর্থের জন্য ক্রমবর্ধমান চাহিদা পূরণকারী আর্থিক পণ্যগুলি প্রবর্তন করা উচিত। এগুলি আধুনিক ব্যাংকিং ব্যবস্থার মাধ্যমে সুরক্ষিত করা যায়। অনেক দেশে, ব্যাংকগুলি তাদের সহায়ক সংস্থাগুলির মাধ্যমে ব্যবসায় ফ্যাক্টর করছে। এই কারণগুলি ক্রেডিট হ্রাস সহ সংগ্রহের সম্পূর্ণ ঝুঁকি গ্রহণ করে। দুটি মৌলিক ধরণের ফ্যাক্টরিং রয়েছে: (১) ডিসকাউন্ট ফ্যাক্টরিং, যাতে পরিপক্কতার তারিখের পূর্বে ফ্যাক্টর গ্রহণযোগ্যদের ছাড় দেয় এবং (২) ম্যাচিউরিটি ফ্যাক্টরিং, যাতে ফ্যাক্টর পরিপক্কতার সময়ে ফ্যাক্টর অ্যাকাউন্টগুলির ক্লায়েন্ট ক্রয় মূল্য প্রদান করে।
হুমায়ুন রশিদ বলেন, আমদানিকারক দেশগুলি গ্রহণযোগ্য অ্যাকাউন্টগুলির সাথে সম্পর্কিত এবং পরিষেবা রপ্তানিকারক দেশগুলির সাথে মোকাবিলা করার ক্ষেত্রে সমস্ত পরিসেবা কার্য সম্পাদন করে। যেহেতু ফ্যাক্টর ক্রেডিট ঝুঁকি গ্রহণ করে, এটি গুরুত্বপূর্ণ যে ফ্যাক্টরটি শর্তাদি এবং সম্পর্কিত ক্রেডিট ঝুঁকিটি পুরোপুরি বোঝে।
মূল প্রবন্ধ উপস্থাপক ড: প্রশান্ত কুমার বন্দ্যোপাধ্যায় তার উপস্থাপনায় বর্ণনা করেন আন্তর্জাতিক বাণিজ্য পরিশোধে ওপেন অ্যাকাউন্টের লেনদেনের শতাংশ বিশ্ব বাণিজ্যের প্রায় ৮০%। আইসিসির সমীক্ষা ওপেন অ্যাকাউন্টের শর্তাদির দিকে বাজারের গতিবেগের শিফটগুলিকে নথিভুক্ত করে। বিশেষত, উত্তর আমেরিকা, ইউরোপ এবং এশিয়ার আমদানিকারকগণ এল/সিএস থেকে অ্যাকাউন্ট নিষ্পত্তির দিকে চলে যাচ্ছেন। সাম্প্রতিক বছরগুলিতে, উন্মুক্ত অ্যাকাউন্ট বাণিজ্য এশিয়ায় তীব্র প্রবৃদ্ধি অর্জন করেছে কারণ রফতানিকারকরা খোলা অ্যাকাউন্টের শর্তে বাণিজ্য পরিচালিত হওয়ার ক্ষেত্রে আমদানিকারকরা জোরের মুখোমুখি হচ্ছেন। এক্ষেত্রে বাংলাদেশ ব্যতিক্রম হতে পারে না। অন্যান্য দেশের মতো, বাংলাদেশের আমদানিকারক এবং রফতানিকারীরা আন্তর্জাতিক বাণিজ্য পরিশোধ এবং অর্থের জন্য ডকুমেন্টারি সংগ্রহ এবং ওপেন অ্যাকাউন্ট ট্রেড পেমেন্ট সিস্টেমটি ক্রমবর্ধমানভাবে ব্যবহার করছেন। ডকুমেন্টারি সংগ্রহ এবং উন্মুক্ত অ্যাকাউন্ট বাণিজ্য ক্ষেত্রে উভয় ব্যাংক এবং কর্পোরেট হাউসগুলি পিছিয়ে দেওয়া পেমেন্ট এবং ডিফল্ট ঝুঁকির মতো চ্যালেঞ্জের মুখোমুখি। অতিরিক্ত হিসাবে ব্যাংকগুলি আমদানিকারকদের কাছ থেকে অর্থ সংগ্রহ করতে সমস্যার মুখোমুখি হয় কারণ ডকুমেন্টগুলি ব্যাংকগুলির মাধ্যমে যায় না বরং ডকুমেন্টগুলি সরাসরি আমদানিকারীর কাছে যায়। আন্তর্জাতিক ফ্যাক্টরিং উপরোক্ত সমস্যার একটি সহজ সমাধান সরবরাহ করে। আন্তর্জাতিক ফ্যাক্টরিংয়ে, ফ্যাক্টর / ব্যাংকের ভূমিকা হ'ল বিদেশ থেকে পাওনা অর্থ নিজ দেশে আমদানিকারকদের কাছে গিয়ে সংগ্রহ করা। আমদানিকারকের অর্থ প্রদানে অক্ষমতার বিরুদ্ধে রফতানিকারকদের ১০০% সুরক্ষাও সরবরাহ করতে পারে আন্তর্জাতিক ফ্যাক্টরিং, রফতানিকারকদের তাদের বিদেশী গ্রাহকদের নিরাপদে প্রতিযোগিতামূলক ক্রেডিট শর্তাদি সরবরাহ করতে দেয়। ফলস্বরূপ, আন্তর্জাতিক ফ্যাক্টরিং এখন প্রায় এক বিশ্বব্যাপী শিল্প, যার প্রায় ৯.৪ টিরও বেশি দেশে প্রায় ৪.৪ ট্রিলিয়ন ইউরো রয়েছে। বিসিবিএমের পাশাপাশি আইসিসি বাংলাদেশ, এডিবি এবং এফসিআই অনেক আগে থেকেই এই বিষয়গুলিতে কাজ করছে। এই আন্তর্জাতিক আর্থিক পরিষেবা চালু করতে ব্যাংকারদের সক্ষমতা বৃদ্ধির জন্য বিআইবিএম কর্তৃক বেশ কয়েকটি প্রশিক্ষণ কর্মসূচি এবং গবেষণা কাজ পরিচালিত হয়েছিল। তদুপরি, রফতানি নীতি ২০১৫-২০১৮ এ, আন্তর্জাতিক ফ্যাক্টরিং পরিষেবাগুলি আন্তর্জাতিক বাণিজ্যকে অর্থায়নে উত্সাহিত করা হয়েছে। এই উদ্যোগগুলি নিয়ন্ত্রক এবং নীতি নির্ধারকদের এই আর্থিক পরিষেবাটি চালু করার জন্য পদক্ষেপ নিতে উৎসাহিত করেছিল।
এই দৃষ্টিকোণে বাংলাদেশ ব্যাংক এই সেবার নাইটটি-গ্রটিটি পরীক্ষা করার জন্য একটি কোর কমিটি এবং একটি প্রযুক্তিগত কমিটি গঠন করেছে। এই দলিল এই কমিটিগুলির ধারণা। এটি নীতি সরবরাহের পাশাপাশি অনুশীলনকারীদের জন্য আন্তর্জাতিক ফ্যাক্টরিং পরিচালনার কাঠামো সরবরাহের লক্ষ্যে প্রস্তুত করা হয়েছে।
আঞ্চলিক পরিচালক, দক্ষিণ ও দক্ষিণ-পূর্ব এশিয়া, ওপেন অ্যাকাউন্টের সহজতরকরণ – রিসিভিয়েবল ফিনান্স, ফ্যাক্টরিং চেইন ইন্টারন্যাশনাল (এফসিআই), থম্পসন লুই তার বক্তব্যে বলেন যে যেসব উন্নয়নশীল দেশে ফ্যাক্টরিং সার্ভিস চালু হয়েছে প্রাথমিক পর্যায়ে সে সব দেশে অনেক সমস্যার সন্মুখীন হতে হচ্ছে। ট্রায়াল এবং এরর মেখড এ পর্যায়ক্রমে এসব সমস্যাগুলীর সমাধান করতে হবে। যেহেতু ফ্যাক্টরিং সার্ভিস একটি নতুন পরিসেবা তাই এই নীতি সম্বন্ধে সবাইকে অবহিত করা আবশ্যক।
প্রধানমন্ত্রীর অর্থনৈতিক বিষয়ক উপদেষ্টা ড: মশিউর রহমান, উক্ত ওয়েবিনারে বলেন বাংলাদেশের ট্রেডিশনাল ব্যাংকিং এ মর্টগেজ গুরুত্বপূর্ণ কিন্তু আন্তর্জাতিক বানিজ্যের ক্ষেত্রে মর্টগেজ কষ্টকর, এক্ষেত্রে  আন্তর্জাতিক বাণিজ্য প্রসারের জন্য এবং আইনী জটিলতা দূরীকরনের জন্য উন্নতমানের ফ্যাক্টরিং সার্ভিস বিধি প্রয়োজন। তিনি তার বক্তব্যে উল্লেখ করেন যে, ফ্যাক্টরিং নীতি এর ক্ষেত্রে যদি কোনো দুর্বলতা থাকে তা পর্যায়ক্রমে সংশোধন করা হবে। তিনি আরো বলেন, ফ্যাক্টরিং এর মত নতুন বিষয়ে আইবিএফবির এই ওয়েবিনারের আয়োজন সত্যিই প্রশংসার দাবীদার।

printer
সর্বশেষ সংবাদ
অর্থ-বাণিজ্য পাতার আরো খবর

Developed by orangebd